অনলাইন ক্লাস কিভাবে করবো

অনেকে জানতে চেয়েছেন অনলাইন ক্লাস কিভাবে করবো সেই সম্পর্কে। তাই আজকের আর্টিকেলে অনলাইন ক্লাস করার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

বর্তমান করোনা ভাইরাসের কারণে অনলাইন ক্লাস এর চাহিদা অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। শুধু যে করোনা ভাইরাসের কারণে অনলাইন ক্লাস বৃদ্ধি পেয়েছে সেটা কিন্ত নয়।

আপনি ঘরে বসে অফিসের মিটিং এই অনলাইনের মাধ্যমে সম্পর্ন করতে পারবেন। কিন্তু, বর্তমান সময় এমন অনেক মানুষ রয়েছে যারা জানেন না অনলাইন ক্লাস কিভাবে করবো?

আবার অনেকে আছেন যারা অনলাইন ক্লাস সম্পর্কে কোনো কিছুই জানে না। তাই আজকে ভার্চুয়াল জগতে কিভাবে অনলাইনের মাধ্যমে ক্লাস করতে হবে সেই সম্পর্কে বিস্তারিত বলবো।

অনলাইন ক্লাস কিভাবে করবেন সেটা জানার আগে আমাদের জানতে হবে অনলাইন ক্লাস কী এর ব্যাপারে।

অনলাইন ক্লাস কী? (What is online class)

ইন্টারনেট ব্যবহার করে কম্পিউটার বা স্মার্টফোন এর মাধ্যমে শিক্ষা গ্রহন এবং শিক্ষা প্রদান করা হলো অনলাইন ক্লাস। 

এই পদ্ধতিতে একজন শিক্ষক নিদিষ্ট সময়ে যেকোনো জায়গায় বসে বিশ্বের যেকোনো প্রান্তের স্টুডেন্টদের শিক্ষাদান করতে পারেন। 

শিক্ষাদানের সময় ছাত্র শিক্ষক উভয়ের কথা শুনতে পারবেন এবং ছাত্ররা শিক্ষকের কাছে পাঠদানের বিষয় প্রশ্ন করতে পারবেন।

অনলাইন ক্লাস হলো এমন একটি পদ্ধতি যেখানে শিক্ষক অনেক দুরে থেকেও ইন্টারনেটের মাধ্যমে স্মার্টফোন বা কম্পিউটার স্কিন ব্যবহার করে স্টুডেন্টদের ক্লাস নিয়ে থাকে।

অনলাইন ক্লাস কাকে বলে?

ইন্টারনেট, কম্পিউটার বা স্মার্টফোন ব্যবহার করে অনলাইনের মাধ্যমে শিক্ষা গ্রহন বা প্রদান করার পদ্ধতিকে বলা হয় অনলাইন ক্লাস। 

বিশ্বের যেকোনো জায়গা থেকে একজন শিক্ষক তার স্টুডেন্টদের সহজে ইন্টারনেটের মাধ্যমে পাঠদান করতে পারেন।

তাছাড়া, বিশ্বের যেকোনো প্রান্তের স্টুডেন্টরা অনলাইন ক্লাসে যুক্ত হতে পারেন। কোনো কারণে কোনো স্টুডেন্ট যদি ক্লাস মিস করে তাহলে পরবর্তীতে ক্লাসের ভিডিও দেখে নিতে পারবেন।

অনলাইন ক্লাস অ্যাপ গুলো কি কি?

অনলাইন ক্লাস করার জন্য বর্তমানে অনেক গুলো অ্যাপ রয়েছে। তার মধ্যে জনপ্রিয় কিছু অ্যাপস নিচে উল্লেখ করা হয়েছে। 

উপরের অ্যাপ গুলো মানুষ বেশি ব্যবহার করে এবং এর জনপ্রিয় বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই অ্যাপ গুলো ইন্টারন্যাশনাল ভাবে ব্যবহার করা হয়।

তাছাড়া, বিশ্বের যেকোনো প্রান্তে বসে এই অ্যাপের মাধ্যমে অনলাইন ক্লাস করতে পারবেন। এই অ্যাপ গুলোর মাধ্যমে আপনার করা অনলাইন ক্লাস গুলো রেকর্ড করে নিতে পারবেন।

এগুলো আপনি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত ব্যবহার করতে পারবেন। যেমন, আপনি যদি zoom app ব্যবহার করেন তাহলে ৪০ মিনিট ফ্রি ক্লাস নিতে পারবেন। 

আর আপনি যদি ৪০ মিনিটের বেশি সময় ধরে ক্লাস নিতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে প্রিমিয়ার সিস্টেম ক্রয় করে হতে এক মাস বা এক বছরের জন্য।

অনলাইন ক্লাস করার জন্য কি কি দরকার? 

অনলাইনে ক্লাস করার জন্য আপনার কিছু জিনিসের দরকার হবে। এগুলো ছাড়া আপনি কখনো অনলাইন ক্লাস করতে পারবেন না।

(১) একটি ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস

আপনি অনলাইনে ক্লাস করবেন তার জন্য প্রথমে আপনাকে ইন্টারনেট জগতে প্রবেশ করতে হবে। আর ইন্টারনেট জগতে প্রবেশ করার জন্য আপনার দরকার হবে একটি ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস।

ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস বলতে এখানে বুঝানো হয়েছে কম্পিউটার / ল্যাপটপ, স্মার্টফোন / ট্যাব এবং এর সাথে দরকার হবে ইন্টারনেট সংযোগ।

কম্পিউটারে অনলাইন ক্লাস করার জন্য একটি ওয়েব ক্যামেরা ব্যবহার করতে হবে। কারণ, ডেক্সটপে ল্যাপটপের মতো ক্যামেরা সেটআপ করা থাকে না

(২) অনলাইন ক্লাস করার অ্যাপ / সফটওয়্যার

অনলাইন ক্লাস করার জন্য ভালো একটি ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস থাকার পাশাপাশি আপনার এক বা একাধিক অ্যাপ এর দরকার হবে।

আপনার ডিভাইসে ইন্টারনেট সংযোগ দিয়ে এই অ্যাপে ঢুকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাথে সংযুক্ত হতে পারবেন।

এছাড়া, আপনার কাছে যদি হেডফোন বা ইয়ারফোন থাকে তাহলে ব্যবহার করতে পারেন। যদি না থাকে দরকার নেই।

এই অ্যাপের মাধ্যমে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক শিক্ষিকারা স্টুডেন্টদের পাঠদান করতে পারবেন। পাঠদানের পাশাপাশি আপনি তাদের সাথে সরাসরি কমিউনিকেশন করতে পারবেন।

অনলাইন ক্লাস করার নিয়ম

অনলাইন ক্লাস করার দুইটা নিয়ম বা পদ্ধতি রয়েছে। এই দুইটা নিয়মে আপনারা খুব সহজে ঘরে বসে অনলাইন ক্লাস করতে পারবেন।

আপনাদের সুবিধার জন্য এই দুইটা নিয়ম আপনাদের সাথে আলোচনা করবো। আপনারা দুইভাবে অনলাইন ক্লাস করতে পারবেন।

(১) অনলাইন ক্লাস অ্যাপ ব্যবহার করে

উপরে উল্লেখ করা অ্যাপ গুলোর মাধ্যমে সহজে অনলাইন ক্লাস করতে পারবেন। এর জন্য আপনি ইন্টারনেট সংযোগ দিয়ে অ্যাপে লগইন করুন।

অ্যাপে লগইন করার পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দেওয়া নিদিষ্ট লিংকে প্রবেশ করে জয়ের অপশনে ক্লিক করলে অনলাইন ক্লাসে যুক্ত হতে পারবেন।

(২) ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনলাইন ক্লাস

আপনি চাইলে বিভিন্ন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে লাইভ অনলাইন ক্লাস করতে পারবেন। এর জন্য আপনি ইন্টারনেট সংযোগ দিয়ে যেকোনো একটি ব্রাউজার ওপেন করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দেওয়া লিংকে ক্লিক করলে সরাসরি ক্লাসে যুক্ত হতে পারবেন।

অনলাইন ক্লাস কিভাবে করবো 

অনলাইনের মাধ্যমে শিক্ষক শিক্ষার্থী এবং অফিস আদালতের যে কোনো মিটিং খুব সহজে করা সম্ভব। কিন্ত, আমাদের মধ্যে অনেকে আছেন যারা অনলাইন ক্লাস করার সঠিক নিয়ম জানেন না।

যারা জানেন না অনলাইন ক্লাস করার নিয়ম তারা নিচের ধাপসমূহ অনুসরণ করুন।

অনলাইন ক্লাস করার জন্য প্রথমে একটি ডিভাইসে ইন্টারনেট সংযোগ করুন এবং নিদিষ্ট সময় এবং অ্যাপ ডাউনলোড করে ইনস্টল করুন।

আপনি জেনেছেন অনলাইন ক্লাস করা হয় যেকোনো একটি অ্যাপ বা ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে। এক্ষেত্রে ওয়েবসাইটের লিংক এবং অ্যাপের আইডি ও পাসওয়ার্ড সংগ্রহ করুন।

অ্যাপের মাধ্যমে অনলাইন ক্লাস করার জন্য আইডি এবং পাসওয়ার্ড সংগ্রহ করার পরে আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করলে সরাসরি ক্লাসে যুক্ত হতে পারবেন।

আর যদি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনলাইন ক্লাস করতে চান তাহলে যেকোনো একটি ব্রাউজার ওপেন করে ক্লাসের লিংক সেখানে কপি করে ইন্টার করলে সরাসরি ক্লাসে যুক্ত হতে পারবেন।

আপনি যদি অ্যাপ ব্যবহার করে ক্লাস করেন তাহলে মোবাইলের স্কিনে ভালো করে লক্ষ্য করলে ক্যামেরা অপশন, মাইক্রোফোন অপশন, স্কিন শেয়ার অপশন এবং চ্যাটিং অপশন গুলো দেখতে পাবেন।

ঠিক একই ভাবে যখন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ক্লাস করবেন তখন একই ভাবে উক্ত অপশন গুলো দেখতে পাবেন। নিজের দরকার অনুসারে অপশন গুলো ক্লিক করে ব্যবহার করবেন।

অ্যাপের মাধ্যমে অনলাইন ক্লাস করার সময় কোনো কারণ সমূহ যদি ক্লাস থেকে বেরিয়ে আসতে চান তাহলে লিভ (leave) অপশনে ক্লিক করলে বেরিয়ে আসতে পারবেন।

কম্পিউটারের মাধ্যমে অনলাইন ক্লাস করার সময় কোনো কারণে যদি ক্লাস থেকে বেরিয়ে আসতে চান তাহলে ক্রস করলে হবে।

জুমে ক্লাস করার নিয়ম

অনলাইন ক্লাস করার সফটওয়্যার গুলোর মধ্যে zoom একটি জনপ্রিয় সফটওয়্যার। অ্যাপটি ওপেন করার পরে আপনি দুইটি অপশন দেখতে পাবেন। 

এর মধ্যে একটি অপশন হলো Host, মানে আপনি নিজে স্টুডেন্টদের ক্লাস নিতে পারবেন। আর অপর অপশনটি হলো স্টুডেন্ট পোর্টাল। এর মাধ্যমে শিক্ষক শিক্ষকারা কি ক্লাস করাচ্ছে সেই ক্লাস স্টুডেন্টরা করতে পারবেন।

জুমে ক্লাস করার নিয়ম এবং ক্লাস করানোর নিয়ম নিচে উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রথমে জুম সফটওয়্যার ডাউনলোড করে নিজের ডিভাইসে ইনস্টল করে ওপেন (open) করুন।

জুম সফটওয়্যার ওপেন (open) করার পরে একাউন্ট খোলার জন্য জিমেইল একাউন্ট দরকার হবে। আপনি জিমেইল একাউন্ট দিয়ে লগইন করে নিবেন।

এবার আপনি নতুন একটি অপশন দেখতে পাবেন। সেটা হলো আপনি ক্লাস করবেন নাকি ক্লাস করাবেন?

আপনি যদি শিক্ষক বা শিক্ষিকা হয়ে থাকে তাহলে ক্লাস করানোর জন্য হোস্ট (host) অপশনে ক্লিক করুন। ক্লিক করার পরপরই একটা লিংক পেয়ে যাবেন। এই লিংকের মাধ্যমে স্টুডেন্টদের আপনার ক্লাসে যুক্ত করতে পারবেন।

আপনি যদি একজন স্টুডেন্ট হয়ে থাকেন এবং জুমে ক্লাস করতে চান তাহলে টিচারের কাছ থেকে ক্লাস লিংক (class link) সংগ্রহ করুন। তারপর উক্ত লিংকে ক্লিক করলে ক্লাসে যুক্ত হয়ে যাবেন।

অনলাইন ক্লাস সুবিধা গুলো কি কি?

স্টুডেন্টদের স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় যাওয়ার প্রয়োজন হয় না, নিজের ঘরে বসে অনলাইন ক্লাস করতে পারেন।

সারা বিশ্বের বড় বড় সুনাম অর্জন করা ইউনিভার্সিটি যেমন, অক্সফোর্ড, হার্ভার্ড, কেমব্রিজ ইউনিভার্সিটির প্রফেসরদের কাছে ক্লাস করতে পারবেন। 

টিচারদের দেওয়া হোমওয়ার্ক গুলো খুব সহজে অনলাইনের মাধ্যমে জমা দিতে পারবেন। তাছাড়া, online class এর বিষয় বস্তুু গুলো যখন খুশি অ্যাক্সেস করতে পারবেন।

আশাকরি “অনলাইন ক্লাসের উপকারিতা” সম্পর্কে ধারণা পেয়ে গেছেন।

অনলাইন ক্লাস এর উদ্দেশ্য

বর্তমানে করোনা ভাইরাসের কারণে শিক্ষা জগতের একটি আলোচিত বিষয় হলো অনলাইন ক্লাস। অনলাইন ক্লাস এর মূল উদ্দেশ্য হলো সেশন জট নিরসন।

অনেক শিক্ষক এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান মনে করছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাবার কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলো বন্ধ হয়ে যাওয়াও শিক্ষার্থীরা  একটি দীর্ঘমেয়াদি সেশন জটে পড়বে।

শিক্ষার্থীদের এই সেশন জট থেকে মুক্তি দেওয়ার জন্য প্রত্যেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনলাইন ক্লাস চালু করেন।

শেষ কথা

আজকে আমরা জানলাম অনলাইন ক্লাস কিভাবে করবো বা অনলাইন ক্লাস করার নিয়ম সম্পর্কে।

অনলাইনে ক্লাস করার সম্পর্কে যদি আর কোনো বিষয় জানতে চান তাহলে নিচের কমেন্টে লিখে জানাবেন এবং ভালো লাগলে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন।

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap