বিশ্বের প্রথম ইউটিউব গ্রাম বাংলাদেশে

ইউটিউব গ্রাম কথাটা শুনে আপনারা কেমন যেন হতভম্ব হয়ে গেছেন। অনেকে তো মনে করছেন বিশ্বের প্রথম ইউটিউব গ্রাম সেটাও আবার বাংলাদেশে?

হা আমাদের দেশে একটা ইউটিউব গ্রাম নামে একটি গ্রাম রয়েছে। আজকের আর্টিকেলে এই গ্রামের সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরবো।

বাংলাদেশে ইউটিউব গ্রাম থাকায় সারা বিশ্বে আমাদের দেশের নাম উজ্জ্বল হচ্ছে। তাহলে চলুন নিচে থেকে জেনে আসি বিশ্বের প্রথম ইউটিউব গ্রাম সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।

ইউটিউব গ্রাম বাংলাদেশের কোথায় অবস্থিত? 

বিশ্বের প্রথম ইউটিউব গ্রাম তাও আবার আমাদের বাংলাদেশের কুষ্টিয়া জেলার খোকসা উপজেলার শিমুলিয়া এই গ্রামটি ইউটিউব গ্রাম নামে সারা বিশ্বে পরিচিতি পেয়েছে। 

এই গ্রামের দেলোয়ার মাস্টার এবং লিটন আলী এর নেতৃত্বে ২০-২৫ জন মিলে সখের বসে “এরাউন্ডমি বিডি” নামে একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলেন।

তাদের এই ইউটিউব চ্যানেলে গ্রামীন বাংলার জীবন, পরিবেশ এবং মুলত রান্না-বান্না তুলে ধরা হয় সারা বিশ্বের কাছে।

তারা শতশত মানুষকে রান্না করে খাবানোর কাজ প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত শৈল্পিক ভাবে ভিডিও চিত্র তুলে ধরের এই ইউটিউব চ্যানেলে।

YouTube কে আবিষ্কার করেন

মজার ব্যাপার হলো এই চ্যানেলের ভিডিও গুলোতে নেই কোনো উপস্থাপন, নেই কোনো ব্যাকগ্রাউন্ড সাউন্ড। গ্রামের মানুষের স্বাভাবিক কথা বার্তাগুলো ভিডিওতে তুলে ধরা হয়।

বর্তমানে এই এরাউন্ডমি বিডি ইউটিউব চ্যানেলে ২৪ লাখের বেশি সাবস্ক্রাইবার রয়েছে। তাছাড়া, দিনে দিনে এই চ্যানেলের সাবস্ক্রাইব প্রচুর পরিমানে বৃদ্ধি পাচ্ছে। 

এই চ্যানেলের পক্ষ থেকে গ্রামের শতশত মানুষকে সম্পূর্ণ ফ্রিতে খাওয়ানো হয়। এখানে সব বয়সের মানুষরা একসাথে বসে আনন্দ করে খাওয়া-দাওয়া করে।

রান্নার কাজ থেকে শুরু করে খাওয়া পর্যন্ত সব কিছু কয়েকটি ক্যামেরায় ভিডিও করে সুন্দর করে এডিটিং করে ইউটিউবে আপলোড করা হয়।

এছাড়া, এই চ্যানেলের পক্ষে থেকে গ্রামে তৈরি করা হয়েছে একটি থীম পার্ক। সেখানে ছোট বড় সকলে ঘুরতে যায় এবং আনন্দের সাথে সময় কাটায়।

আমেরিকার সানি নামে বিশ্বের বিখ্যাত একজন ফুডরিভিওয়ার রয়েছে। তিনি তার ইউটিউব চ্যানেলে বিশ্বের বিখ্যাত সব ফুড নিয়ে রিভিউ করেন। 

তিনি বাংলাদেশের এই এরাউন্ডমি বিডি চ্যানেলের ভিডিও দেখে বাংলাদেশে আসেন এরাউন্ডমি বিডি চ্যানেলের মালিকের সাথে দেখা করার জন্য।

ইউটিউব কি? এর ইতিহাস এবং ব্যবহার সম্পর্কে জানুন

সানির আগমন ঘিরে এরাউন্ডমি বিডি চ্যানেলের মালিক একটি মহিষ জবাই করে প্রায় ৪ হাজার মানুষের খাওয়ানো হয়। সানির সফর সঙ্গী হিসেবে ছিলেন বাংলাদেশের বিখ্যাত ফুড রিভিউয়ার রাফসান দ্যা বড়ভাই এবং আদনান ফারুক।

এরাউন্ডমি বিডি ইউটিউব চ্যানেল কত সালে চালু করেন?

এরাউন্ডমি বিডি ইউটিউব চ্যানেলটি ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে চালু করা হয়। প্রথম দিকে তারা প্রামের বিভিন্ন প্রকৃতিক দৃশ্য, মাছ ধরার চিত্র সহ আরো বিভিন্ন ধরনের ভিডিও আপলোড করতো।

এরপর তারা বিনামূল্যে গ্রামের মানুষের খাওয়ানোর ভিডিও গুলো আপলোড করেন। এই চ্যানেলের এডমিন হলেন লিটন আলী খান এবং চ্যানেল পরিচালনার কাজ করের স্থানীয় মাষ্টার দেলোয়ার হোসেন।

এই চ্যানেলটি তৈরি করার প্রধান উদ্দেশ্য হলো গ্রামের মানুষ গুলোকে খুশি করা। প্রত্যেক মাসে গ্রামে ১ বার করে রান্না করে খাওয়ানো হয় গ্রাম সহ আসেপাশের মানুষদের।

শুধু খাওয়ানোর কাজ নয় এই চ্যানেলের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে গ্রামের ৩০ জন কর্মচারী। তারা এই চ্যানেলের সাথে কাজ করে তাদের সংসার চালায়।

শিমুলিয়া গ্রামের আবুল হোসেন আমাদেরকে জানান লিটন খান ঢাকায় থাকে আর দেলোয়ার মাস্টার তিনি গ্রামের একটি প্রাইমারি স্কুলে জব করেন।

আমরা লিটন আলী খানের সাথে কথা বলেছি তিনি আমাদের বলেন গ্রামের মানুষের জন্য কিছু করার জন্য তিনি অনেক দিন ধরে চেষ্টা করছিলেন।

কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন করব

শেষে তিনি এই ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে গ্রামের মানুষের জন্য কিছু করতে পেরে অনেক খুশি। তার চ্যানেলের সাথে বর্তমানে ৩০ জন কাজ করে এবং তাদের বেতন দেওয়া হয়।

তিনি এটাও ভেবে আনন্দিত যে তার পক্ষে গ্রামের ৩০ জন মানুষ কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে। 

তিনি আরো বলেন, আমি ঢাকায় থাকি সেখানে তার একটি তথ্য প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান রয়েছে। তিনি ছিলেন খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (কুয়েট) এর ছাত্র।

শেষ কথা 

আজকে আমরা জানলাম বাংলাদেশের ইউটিউব গ্রাম সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য। লিটন আলী খানের এই এরাউন্ডমি বিডি ইউটিউব চ্যানেলের জন্য বিশ্ব দরবারে আমাদের দেশ পরিচিতি পেয়েছে।

ইউটিউব ভিলেজ সম্পর্কে আরো তথ্য জানতে পারবেন আমাদের দ্বিতীয় প্রতিবেদনের মাধ্যমে।  সকলকে ধন্যবাদ।

4 thoughts on “বিশ্বের প্রথম ইউটিউব গ্রাম বাংলাদেশে”

  1. এই চ্যানেলের ভিডিও গুলো আমার খুব ভালো লাগে, ধন্যবাদ জানাচ্ছি এমন একটা সুন্দর প্রতিবেদনের জন্য। আর অপেক্ষায় রইলাম দ্বিতীয় প্রতিবেদনের।

    Reply

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap