ইউটিউব SEO কি? কিভাবে ইউটিউব ভিডিও এসইও করবেন

0
436
ইউটিউব SEO কি? কিভাবে ইউটিউব ভিডিও এসইও (SEO) করবেন
ইউটিউব SEO কি? কিভাবে ইউটিউব ভিডিও এসইও (SEO) করবেন

ইউটিউব SEO কি? কিভাবে নিজের ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিও গুলো এসইও (SEO) করবন? এবং YouTube ভিডিও গুলো SEO করে কি লাভ হবে? এই সকল বিষয়ে বিস্তরিত ভাবে জানবো আজকের এই আর্টিকেল থেকে।

আমরা যখন একটি ইউটিউব চ্যানেল বানিয়ে সেখানে ভিডিও (video) আপলোড করি তখন আমাদের সেই ভিডিও গুলোতে এসইও (SEO) র ব্যবহার করাটা অনেক বেশি জরুলি হয়ে পড়ে। আর আপনি যদি ভিডিওতে এসইও না করেন তাহালে আপনি বেশি ভিজিটরর্স পাবেন না।

অনেকে আমার কাছে জিগেশ করেছে আমার ইউটিউব চ্যানেলে ভিজিটরর্স আসতেছে না, কি করবো? আমার আপলোড করা ভিডিও গুলো মানুষরা দেখছে না কেন? অথবা আমার পাবলিশ করা ভিডিও গুলো ইউটিউব সার্চ বা গুগল সার্চ রেজাল্টে দেখাচ্ছে না কেন?

এই সকল প্রশ্নের উত্তরে আমি বলবো আপনার নিজের ভিডিওতে এসইও এর ব্যবহার করা হচ্ছে না। আর যদিও আপনি SEO করছেন তবে সেটা সঠিক ভাবে হচ্ছে না। এজন্য ইউটিউবে আপলোড করার পরে ভিজিটরর্স পাচ্ছেন না। বা ভিডিও গুলো গুগল সার্চ বা ইউটিউব সার্চ রেজাল্ট পেজে দেখাচ্ছে না।

তাহালে আপনারা এখন কি করবেন? কি করলে আপনার আপলোড করা ভিডিওতে ট্রাফিক বা ভিজিটরর্স আসবে? এটাই যদি আপনাদের মূল প্রশ্ন হয় তাহালে, সহজ উত্তর হলো SEO বা Search Engine Optimization এর সঠিক ভাবে ব্যবহার করতে হবে।

তাহালে চলুন আমরা নিচে থেকে এক এক করে যে সকল বিষয় গুলো জেনে নিবো –

  • ইউটিউব SEO কি?
  • কেন ইউটিউব ভিডিও গুলোতে SEO করা জরুলি?
  • কিভাবে ইউটিউব ভিডিও এসইও করবেন?

ইউটিউব ভিডিও SEO কি? (What is YouTube video SEO in bangla)

YouTube SEO সম্পর্কে জানার আগে আপনাদের জানতে হবে SEO এর ব্যাপারে। এসইও (seo)  এর মানে হলো সার্চ ইঞ্জিন optimization যার কাজ হলো আপনার অনলাইন কন্টেন্ট যেমন- ভিডিও, ওয়েবসাইট, বা যেকোনো ফাইল সার্চ ইঞ্জিনের প্রথম ১ থেকে ১০ টি রেজাল্টের মধ্যে দেখানো।

সার্চ ইঞ্জিন বলতে আমরা সাধারণত বুঝি গুগল সার্চ ব ইয়াহু সার্চ এবং ইউটিউব ভিডিও সার্চ। এমন হয়তো গুগলে ইউটিউব seo লিখে সার্চ করে আমার এই আর্টিকেলটি আপনি পেয়েছেন। কি তাই তো?

আপনি যদি দেখে এই একই বিষয়ে সার্চ ইঞ্জিনে হাজার হাজার আর্টিকেল রয়েছে কিন্ত তাদের বাদ দিয়ে আমার আমাে ব্লগের আর্টিকেল প্রথমে পেলের কেন? আর বাকি আর্টিকেল গুলো কেন সার্চ ইঞ্জিনে দেখালো না?

এর মূল কারণ হলো SEO. এসইও ব্যবহার করার ফলে গুগল সার্চ খুব সহজে ভালো করে বুঝতে পারছে আপনি যেটা লিখে সার্চ করছেন তার সঠিক উত্তর এই আর্টিকেলে দেওয়া আছে। এজন্য গুগল প্রথম ১০ টি পেজে আমার এই আর্টিকেলটি রেখেছে।

আর এ কারণে আপনারা দ্রুত আমার এই আর্টিকেলটি গুগলে পেয়ে গেছেন। ঠিক এই ভাবে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে বা ভিডিওতে সঠিক ভাবে এসইও এর ব্যবহার করলে গুগল সার্চ বা ইউটিউব সার্চ আপনার ভিডিও সম্পর্ন ভালো ভাবে বুঝতে পারবে।

এতে ভিডিও এর সাথে জড়িত কোন শব্দ লিখেও যদি কেউ সার্চ করে তাহালে YouTube ভিডিও সার্চে আপনার পাবলিশ করা ভিডিও আগে দেখাবে। এতে আপনি ফ্রীতে অনেক বেশি ভিজিটরর্স বা ট্রাফিক পেয়ে যাবেন।

এজন্য ইউটিউব ভিডিও seo হলো এমন একটি প্রক্রিয়া যার সঠিক ব্যবহার করে নিজের ভিডিও গুলোকে Google সার্চ বা YouTube সার্চ রোজাল্টে প্রথম পেজে দেখতে পাবেন। এতে আপনি সহজে ভিডিওতে প্রচুর পরিমানে ভিজিটর্স পেয়ে যাবেন।

কেন ইউটিউব ভিডিও গুলোতে SEO করা জরুলি?

আপনি ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করার আগে কোনো নিদিষ্ট টপিক বা বিষয় নিয়ে ভিডিও বানিয়ে নেন। কি তাই না? কিন্ত যে বিষয় নিয়ে আপনি ভিডিও বানিয়েছ সেই বিষয়ে একটি বার ইউটিউবে সার্চ করে দেখুন সেই আগে থেকে অনেক ভিডিও দেওয়া আছে।

তাহালে আপনি যে বিষয়ে ভিডিও তৈরি করবেন সেই বিষয়ে যদি আগে থেকে ভিডিও থাকে তাহালে আপনার ভিডিও বানিয়ে লাভ কি? যদিও আপনার ভিডিও ইউটিউব রোজাল্টে প্রথম পেজে দেখাবে কিন্ত আগে থেকে এমন হাজার ভিডিও রয়েছে ইউটিউবে।

আসলে এটাে বলা হয় প্রতিযোগীতা। আর আপনি যদি এমন ভিডিও বানিয়ে আপলোড দেন তাহালে কোনোদিন সেই ভিডিওতে ভিজিটরর্স পাবেন না। কারণ, আগে থেকে ইউটিউবে যেকোনো বিষয়ে অনেক ভিডিও রয়েছে। আর সেই ভিডিও গুলোকে YouTube সার্চ রেজাল্টে  দেখাবে।

এবার কাজে আসবে আপনার SEO র জ্ঞান। আপনি যদি ভিডিও তৈরি করে ইউটিউব এলগোরিদম (YouTube algorithm) কে এটা বুঝাতে পারেন যে বিষয়ে আপনি ভিডিও তৈরি করেছেন সেটা অন্যদের থেকে ভালো তাহালে আপনি ভিডিওতে ট্রাফিক পাবেন।

সহজ করে বললে আপনার তৈরি করা ভিডিওর বিষয়ে সুন্দর করে বুঝায়ে দিতে হবে ইউটিউবকে SEO এর মাধ্যমে। এবার যখন কেউ ইউটিউবে সার্চ করবে তখন যদি আপনার ভিডিও এর টফিকের সাথে ম্যাচ করে তাহালে ইউটিউব আপনার ভিডিও কে সার্চ রেজাল্টে প্রথমে দেখাবে।

সহজ ভাবে বললে আপনার ভিডিও রেংকি ভালো হবে। কারণ, আপনি ইউটিউবকে ভালো করে বুঝিয়ে দেছেন আপনার ভিডিও কি বিয়ষে তৈরি করা হয়েছে। এজন্য আপনি যদি SEO না করেন তাহালে ইউটিউব কখনো বুঝতে পারবে না আপনি কি বিষয়ে ভিডিও তৈরির করেছেন।

আশাকরি সহজে বুঝতে পারছেন YouTube SEO কেন জরুলি। বা ইউটিউবের ভিডিওতে SEO করাটা কের জরুলি।

কিভাবে ইউটিউব ভিডিও এসইও (SEO) করবেন?

আপনাদের আমি সম্পর্ন বিষয়ে বলবো কিভাবে ভিডিও seo করবেন বা কিভাবে ভিডিও রেংক করবেন। এর জন্য আপনারা শুধু মন দিয়ে সম্পর্ন আর্টিকেলটি পড়ুন এবং জেনে নিন ইউটিউব seo কি সেই সম্পর্কে।

তবে, ভিডিও seo করার আগে বলে দেয় যে বিষয়ে ভিডিও বানাবেন সেই বিষয়ে আগে ইউটিউবে সার্চ করে দেখুন মানুষদের সেই বিষয়ে জানার চাহিদা রয়েছে কিনা। যদি চাহিদা না থাকে তাহালে কষ্ট করে ভিডিও বানিয়ে কেউ দেখবে না।

তাছাড়া ভিডিও এসইও করে ও কোনো লাভ হবে না। এজন্য সব সময় এমন বিষয় নিয়ে ভিডিও তৈরি করবেন যে বিষয়ে ইউটিউবে প্রচুর ভাবে সার্চ হচ্ছে। তাহালে সহজে ভিডিওকে ভিজিটরর্স বা ট্রাফিক পাবেন।

কোন কীওয়ার্ড, টফিক বা বিষয়ে ইউটিউবে বেশি সার্চ হয়?

ইউটিউবে কেন বিষয়ে মানুষরা বেশি সার্চ করছে বা আপনি যে বিষয়ে ভিডিও তৈরি করবেন সে বিষয়ে মানুষরা সার্চ করছে কিনা সেটা চেক করার জন্য অনলাইন টুল (online tool) রয়েছে। এই tools গুলোর মাধ্যমে আপনারা সার্চ ভলিয়ম কত সেটা জানতে পারবেন।

আমি যে টুল ব্যবহার সেটার নাম হলো keyword everywhere extension. এই extension টি আপনারা firebox browser বা chrome browser এ ইনস্টল করে নিতে পারবেন। এবার আপনি ভিডিও বিষয়ে বা কীওয়ার্ড বক্সে ইউটিউবে গিয়ে সার্চ করতে হবে।

আপনি যে keyword লিখে সার্চ করবেন সেই বিষয়ের সাথে মিল মেলে আরে অনেক গুলো কীওয়ার্ড আপনি পেয়ে যাবেন। মানুষরা এই কীওয়ার্ড গুলো লিখেও সার্চ করছে। আর সেই কীওয়ার্ড গুলো ব্যবহার করে আপনি ভালো SEO করতে পারবেন।

আপনি আপনাদের বলবো যে বিষয়ে ভিডিও তৈরি করবেন সেই বিষয়ে অবশ্যই দেখে নিবেন ইউটিউবে প্রতিমাসে কত সার্চ হচ্ছে। যদি সেই কীওয়ার্ড মাসে সর্বোচ্চ ১০০০ সার্চ হয় তাহালে সেটা নিয়ে কাজ করা আপনার জন্য লাভ জনক হবে।

YouTube ভিডিও SEO করুন এবং ভিডিও রেংক (Rank) করান

আমি আগেই বলেছি ইউটিউব ভিডিও গুলোতে ভিজিটরর্স পাওয়ার জন্য আপনার ভিডিও গুলো সার্চ রেজাল্টে প্রথমে থাকতে হবে। এতে মানুষরা সহজে আপনার ভিডিও পেয়ে যাবে এবং ভিজিট করবে।

কিন্ত আমি আবার এটাও বলেছি যে যেকোনো ভিডিও তৈরি করাতে তাতে প্রতিযোগিতা থাকবে। এতে করে মানুষারা আপনার ভিডিও খুঁজে পাবে না কারণ আগে থেকে সেই বিষয়ে অনেক ভিডিও রয়েছে।

এজন্য আপনার ভিডিও সার্চ রেজাল্টে দেখানো এবং ভিজিটরর্স পাওয়ার জন্য একটাই উপায় হলো YouTube video SEO এর প্রয়গ করা। তাই নিচে আমি ভিডিও এসইও এর প্রয়োগ বলবো সেটা আপনারা বুঝে ভিডিওতে ব্যবহার করবেন। এতে অবশ্যই ভালো পরিমানে ভিজিটরর্স পাবেন।

১. ভিডিও টফিক বা কীওয়ার্ড ভালো করে বেছে নিন

প্রথমে আমি বলবো ভিডিও টফিক, বিষয় বা কীওয়ার্ড রিচার্স করে নিতে। আমরা সবচেয়ে বড় যে ভুলটি করি কোনো কীওয়ার্ড রিচার্স না করে ভিডিও বানিয়ে ফেলি। যে কারণে আমাদের ভিডিও কেউ দেখে না।

কীওয়ার্ড রিচার্স মানে হলো আপনি যে বিষয়ে বা টফিকের উপর ভিডিও তৈরি করছেন সেই বিষয়ের উপর ভালো করে জ্ঞান নেওয়া। আপনার বেঁচে নেওয়া কীওয়ার্ড এর উপর মানুষের রুচি / চাহিদা রয়েছে কিনা সে বিষয়ে অবশ্যই জেনে নেওয়া।

এজন্য সব সময় লাভজনক টফিক বা keyword খুঁজে ভিডিও তৈরি করতে হবে। এতে সহজে মানুষরা ভিডিও গুলো খুঁজে পাবে এবং দেখবে। তাহালে ইউটিউব ভিডিও SEO এর প্রথম সিঁড়ি হলো লাভজনক ভিডিও কীওয়ার্ড খুঁজে বের করা।

২. ভিডিও description এবং title এ keyword এর ব্যবহার করা

মনে রাখবেন SEO এর জন্য ভিডিও optimization করা অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। video optimization এর সবচেয়ে লাভজনক এবং জরুলি নিয়ম হলো description এবং title এ keyword focused করে ব্যবহার করা।

YouTube বা Google বুঝতে পারবে তখন যখন আপনি ভিডিও টফিক title এবং description দেখে। ভিডিও টাইটেল ও ডেসক্রিপশন এর উপর নিভর্র করে ভিডিও ইউটিউব এবং গুগল সার্চ রেজাল্টে রেংক করে।

এজন্য আপনার ভিডিও গুগল এবং ইউটিউবে রেংক করাতে চাইলে টাইটেলে এবং ডেসক্রিপশন এর অবশ্যই কীওয়ার্ড ব্যবহার করতে হবে। এমন ভাবে ব্যবহার করতে হবে যেন যেকেউ দেখে সজজে বুঝতে পারে।

কিন্ত মনে রাখবেন, বেশি কীওয়ার্ড টাইটেল এবং ডেসক্রিপশন এর ব্যবহার করবেন না। সাধারন ভাবে ২ থেকে ৩ টি কীওয়ার্ড ব্যবহার করবেন টাইটেল এবং ডেসক্রিপশন এর জন্য।

৩. ভিডিওতে SEO Tags ব্যবহার করুন

ইউটিউব ভিডিও রেংক করার জন্য ইউটিউব ভিডিও ট্যাগ অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। যখন আপনার ভিডিও আপলোড করবেন তখন টাইটেল এবং ডেসক্রিপশন এ ট্যাগ (tag) ব্যবহার করার সাথে সাথে আপনাকে আর একটি অপশন দেওয়া হবে।

সেই অপশনটি হলো video tags. মনে রাখবেন video tags একটি ভিডিও ইউটিউব থেকে রেংক করার জন্য অনেক জরুলি। এতে সার্চ ইঞ্জিন আপনার ভিডিও এর বিষয় সম্পর্কে ভালো ভাবে জানতে পারে। 

আর যখন কেউ ঔ ট্যাগ লিখে সার্চ করবে তখন ইউটিউব আপনার ভিডিও সার্চ রেজাল্ট পেজে দেখাবে। তাই সব সময় আপনাকে ভিডিও ট্যাগ বা SEO tags ব্যবহার করতে হবে। সব সময় চেষ্টা করবেন YouTube SEO Tips কীওয়ার্ড এর সাথে জড়িত tags ব্যবহার করার জন্য।

৪. ভিডিও আপলোড করার আগে Video file name পরিবর্তন করুন

আপনি যখন একটি ভিডিও তৈরি করে সুন্দর করে এডিটিং করবেন তখন সেটা ইউটিউবে আপলোড করার জন্য রেডি (reddy) হয়ে যাবে। কিন্ত তখন ভিডিও আপলোড করবেন না। আপনাকে ঔ ভিডিওর ফাইল নাম পরিবর্তন করে যে টাইটেল নাম দিতে চাচ্ছেন ভিডিওতে সেই নাম করে দিবেন।

এতে ভিডিওটি আরো ভালো seo optimization হবে। এজন্য ভিডিও আপলোড করার আগে ভিডিওর default নাম পরিবর্তন করে তাতে SEO friendly নাম দিতে হবে। এবং ফাইল নামের স্থানে অবশ্যই এসইও টার্গেট করা কীওয়ার্ড অবশ্যই ব্যবহার করতে হবে।

৫. লম্বা এবং ডিটেল্স (details) ভিডিও তৈরি করুন

আপনারা যে বিষয়ে ভিডিও তৈরি করবেন অবশ্যই সম্পর্ন details সহ হাই কোয়ালাটির ভিডিও তৈরি করবেন। লম্বা ভিডিও সব সময় বেশি রেংক করে। এবং ভিডিও এমন ভাবে তৈরি করবেন যাবে সবসময় আপনার তৈরি করা ভিডিও দেখে ভালো পায় এবং কিছু শিখতে পারে।

আপনি যদি নিজের ভিডিও দ্রুত রেংক করাতে চান তাহালে ভিডিও ভালো ভাবে video SEO optimization করতে হবে। সব সময় মিনিমাম ১০ মিনিটের বেশি ভিডিও বানায় এবং তার মধ্যে ভিডিওর সম্পর্ন বিষয়টা তুলে ধরবেন।

আজকে আমরা কি শিখলাম

তাহালে বন্ধুুরা আজকে আমরা শিখলাম ইউটিউব SEO কি এবং কিভাবে ইউটিউব ভিডিওতে এসইও করবেন সেই সম্পর্ন বিষয়ে। আমার লেখা What is YouTube SEO in bangla আর্টিকেলটি কেমন লাগলো সেটা কমেন্টে জানাবেন।

আর অবশ্যই আমার এই আর্টিকেলটি নিচের শেয়ার বাটুন থেকে শেয়ার করে দিবেন। তাছাড়া কোনো ধরনের পরামর্শ বা প্রশ্ন থাকলে নিচের কমেন্টে লিখে বলতে পারেন। ধন্যবাদ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে