ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই জানুন অনলাইনে ইনকাম করার পদ্ধতি গুলো

0
215
ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই অনলাইনে ইনকাম করার পদ্ধতি
ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই অনলাইনে ইনকাম করার পদ্ধতি

অনেকে আমার কাছে প্রশ্ন করেন, ভাই ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই (work from home and earn money online) কিভাবে করবো এবং অনলাইনে ইনকাম করার পদ্ধতি গুলো কি কি? আপনাদের এই দুইটি প্রশ্নের উত্তর দেওয়া জন্য আজকের এই আর্টিকেলটি লিখেছি।

এর আগে আমার এই ব্লগে আমি বলেছি, ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার বিভিন্ন উপায় বা মাধ্যম গুলো সম্পর্কে। আর আজকের আর্টিকেলে আমি কেবল সেই অনলাইন ইনকাম পদ্ধতি গুলো বলবো যেগুলো ঘরে বসে আয় করার ক্ষেত্রে লাভজনক।

আপনি হতে পারেন একজন ছাত্র, মহিলা বা ফুল-টাইম জব করা একজন ব্যাক্তি। তবে, চিন্তা করার কিছুই নেই কারণ এই অনলাইন ইনকাম করার পদ্ধতি গুলো ব্যবহার করে আপনারা ঘরে বসে আয় করতে পারবেন।

এর আগের আর্টিকেলে এই ব্লগে আমি আপনাদের বলেছি ঘরে বসে মোবাইলে আয় করার উপায় গুলো। বর্তমানে আমরা এই করোনা ভাইরাসের কারণে প্রত্যেকে ঘরে বসে রয়েছি।

তাই আমাদের হাতে অনেক সময় পড়ে রয়েছে। আমরা চাইলে এই সময়টাকে কাজে লাগিয়ে অনলাইন ইনকাম এর পদ্ধতি গুলো ব্যবহার করে ঘরে বসে টাকা আয় করতে পারি। (online income tips in bangla)

মনে রাখবেন, ইন্টারনেটের এই বিভিন্ন ধরনের কাজ গুলো করে মানুষরা ঘরে বসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছে। তাই এই সুযোগ আপদেরও কাজে লাগানোর জন্য আমি পরামর্শ দিবো। এর জন্য আপনাকে প্রথমে অনেক ধৈর্যশীল হতে হবে এবং মন দিয়ে প্রতিদিন কিছু কাজ করতে হবে।

ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই অনলাইনে কোন পদ্ধতি সেরা?

আমি আগেই বলেছি ঘরে বসে টাকা আয় করার ক্ষেত্রে অনেক ধরনের উপায় বা পদ্ধতি রয়েছে। তবে, এই অনেক গুলো অনলাইন ইনকাম করার পদ্ধতি গুলোর মধ্যে আমি আপনাদের সেরা ও লাভজনক উপায় গুলো বলবো।

বর্তমানে যেগুলো করে মানুষরা প্রচুর পরিমানে টাকা আয় করছে। তবে, এই কাজ গুলো করার আপনার একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ এবং ইন্টারনেট কানেকশন থাকতে হবে। আবার কিছু কিছু কাজ আপনি স্মার্টফোন দিয়ে করতে পারবেন।

আমি আপনাদের সেই সকল কাজ গুলো করার পরামর্শ দিবো যে কাজ গুলোর বিষয়ে আপনার মোটামোটি জ্ঞান রয়েছে। তা না হলে পরবর্তীতে আপনার কাজ করার রুচি থাকবে না এবং কাজ গুলো ভালো ভাবে শিখতে অনেক সময় লেগে যাবে।

তাই, আমি আপনাদের পরামর্শ দিবো ঘরে বসে টাকা আয় করার জন্য নিজের পছন্দ হিসাবে home based online work গুলো করার পরামর্শ দিচ্ছি।

Work from home and earn money online – 2021

তাহালে চলুন নিচে থেকে জেনে আসি ঘরে বসে কাজ করে অনলাইনে টাকা আয় (how to make money online) করার সেরা পদ্ধতি গুলোর ব্যাপারে।

১. কনটেন্ট রাইটিং

আপনার যদি লেখালেখি করতে ভালো লাগে এবং ঘরে বসে পার্ট-টাইম হিসাববে টাকা আয় করার উপায় খুঁজছেন, তাহালে কনটেন্ট রাইটিং আপনার জন্য সেরা হতে পারে।

বর্তমানে ইন্টারনেটে এমন অনেক ব্লগ, ওয়েবসাইট, নিউজ পোর্টাল রয়েছে যেখানে মানুষকে আর্টিকেল বা কনটেন্ট রাইটিং করার কাজ দেওয়া হয়। আপনি যদি ১৪০০ থেকে ১৫০০ শব্দের একটি ভালো কোয়ালাটির আর্টিকেল লিখতে পারেন,

তাহালে ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা আয করতে পাবেন ঘরে বসে। এই ধরনের online content writing work গুলো খোঁজার জন্য আপনি ব্লগিং এবং কনটেন্ট রাইটিং এর সাথে জড়িত ফেসবুক পেজ গুলোতে জয়েন (Join) হতে হবে।

তাছাড়া, অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের অনলাইন নিউজ পোর্টাল বা ব্লগ রয়েছে যেগুলোর contact পেজের মাধ্যমে তাদের ইমেইল করে কাজের বিষয়ে যোগাযোগ করতে পারবেন।

কনটেন্ট রাইটিং করার জন্য আপনাকে এসইও অপটিমাইজেশন আর্টিকেল (SEO optimized articles) লিখতে হবে। তাহালে আপনি প্রচুুর সংখ্যাক কাজ পেয়ে যাবেন অনলাইনে।

২. Blogging

Blogging সব সময় ঘরে বসে টাকা আয় করার জন্য সেরা উপায় ছিলো এখনো রয়েছে। আমার মতো সারা বিশ্বের অনেক ব্লগাররা প্রফোসানাল ভাবে blogging করে online income করছেন। সত্তি কথা বলতে ব্লগিং করে সাধারন চাকরির তুলনায় অনেক টাকা আয় করা যায়।

আমার মতে ব্লগিং হলো এমন একটি অনলাইন বিসনেস যেটা একজন students, housewife বা অন্য যেকোনো ব্যাক্তিরা করতে পারবেন। বর্তমানে স্কুল কলেজের ছাত্ররাও ব্লগিং করে মাসে হাজার হাজার টাকা আয় করছে।

এখানে আপনি যত বেশি সময় দিয়ে কাজ করবেন  ততো বেশি টাকা আয় করার সুযোগ থাকবে। তাই, blogging এর ক্ষেত্রে আপনাকে কিছুটা সময় নিয়ে কাজ করতে হবে। কারণ, ব্লগ থেকে টাকা আয় করতে হলে, আপনার ব্লগে কমপক্ষে প্রতিদিন ১০০০ ইউনিক ভিজিটর্স গুগল থেকে আসতে হবে।

আর আপনার ব্লগে ভালো পরিমানে ভিজিটর্স নিয়ে আসার জন্য প্রায় ৭ থেকে ৮ মাস সময় লাগতে পারে। আপনি যত ভালো কোয়ালাটির আর্টিকেল ব্লগে পাবলিশ করতে পারবেন, ততো দ্রুত ট্রাফিক পেয়ে যাবেন।

৩. YouTube channel

ব্লগিং এর মতো YouTube অবশ্যই ঘরে বসে টাকা আয় করার জন্য সেরা মাধ্যম গুলোর মধ্যে একটি। ছাত্র থেকে শুরু করে বয়স্ক মানুষরা পর্যন্ত নিজে একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে টাকা আয় করছেন।

YouTube channel বানানোর পরে সেখানে আপনাকে নিয়মিতভাবে ভিডিও আপলোড করতে হবে। আপনার নিজের অভিজ্ঞতা, জ্ঞান দিয়ে যেকোনো ভিডিও তৈরি করে upload করতে পারবেন।

ধীরে ধীরে আপনার চ্যানেলে প্রচুর সাবস্ক্রইবার হতে থাকবে এবং ভিডিও গুলোর ভিউ হতে থাকবে। যার ফলে আপনি বিভিন্ন মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন। blogging এর মতো এখানে আপনি রাতারাতি ধণী হতে পারবেন না।

এখানে আপনাকে সময় নিয়ে ভালো কোয়ালাটির ভিডিও পাবলিশ করতে হবে। যখন আপনার চ্যানেলে ১০০০ সাবস্ক্রইবার এবং ৪ হাজার ঘন্টা ওয়ার্চ টাইম হয়ে যাবে তখন ইউটিউব মনিটাইজেশন চালু করে ভিডিও গুলোতে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে অনলাইন আয় করতে পারবেন।

ঘরে বসে টাকা আয় করার জন্য বা যেকোনো জায়গায় বসে আপনি এই বিসনেস (business) করতে পারবেন। এই কাজ করার জন্য কম্পিউটার বা ল্যাপটপ দিয়ে কাজ করাটা আপনার জন্য সুবিধা হবে। তবে, মোবাইল থেকে কাজ করেও ইউটিউব থেকে আয় করতে পারবেন।

৪. গ্রাফিক্স ডিজাইন

আপনি যদি গ্রাফিক্স ডিজাইন এর লোগো, ব্যানার, ফটো এডিটিং ইত্যাদি কাজ জানেন, তাহালে এটার মাধ্যমে অনলাইনে ইনকাম করা সম্ভব। অনলাইনে এমন অনেক বিসনেস, ওয়েবসাইট, সোশ্যাল মিডিয়া পেজ রয়েছে, যাদের গ্রাফিক্স ডিজাইনার প্রয়োজন হয়।

আপনার যদি এই বিষয়ে ভালো দক্ষতা থাকে তাহালে আপনি তাদের সাথে কাজ করতে পারবেন। এই সম্পর্ন কাজটি আপনি ঘরে বসে একটি ল্যাপটপ এর মাধ্যমে করতে পারবেন। আর কাজ খোঁজার জন্য আপাকে বিভিন্ন freelancing website গুলোতে যেতে হবে।

৫. ওয়েব ডিজাইন

আপনার মধ্যে যদি ওয়েব ডিজাইন বা ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্ট করার দক্ষতা থাকে, তাহালে আপনি নিজের দক্ষতা দিয়ে অন্যদের জন্য একটি website তৈরি করে টাকা আয় করতে পারবেন।

আমি এমন অনেক ব্যাক্তিকে দেখিছি যারা বিভিন্ন ধরনের ব্লগ সাইট, বিসনেস পেজ, পোটফলিও ওয়েবসাইট বা ই-কমার্চ ওয়েবসাইট ক্লায়েন্ট দের জন্য তৈরি করেন। আপনি সুন্দর ও আকর্ষনীয় ভাবে ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারলে সহজে কাজ পেয়ে যাবেন।

আর কাজ খোঁজার জন্য আপনাকে বিভিন্ন ধরনের freelancing website গুলোতে নিজের সুন্দর একটি একাউন্ট তৈরি করে কাজ খুঁজতে হবে।

৬. ডিজিটাল মার্কেটিং

বর্তমানে ছোট-বড় বিভিন্ন ধরনের কোম্পানি গুলো ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে তাদের পণ্য বা সার্ভিস গুলো অনলাইনে প্রচার করতে চায়। এর জন্য আপনার প্রয়োজন হবে ভালো একজন Digital marketing করতে জানা একজন দক্ষ ব্যাক্তির।

আপনার মধ্যে যদি ডিজিটাল মার্কেটিং এর জ্ঞান থাকে, তাহালে আপনি ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে বিভিন্ন ক্লায়েন্ট (clients) এর কাজ করে ইন্টারনেটের মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন। মনে রাখবেন, এই ধরনের অনলাইন মার্কেটিং কাজ কিন্ত সবাই করতে পারে না।

তাই, এই ধরনের কাজের জন্য আপনার সুযোগ থাকবে অনেক অনেক বেশি। Digital marketing কাজ করার বিভিন্ন ভাগ রয়েছে। যেমন- সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং, ইমেইল মার্কেটিং, ইউটিউব মার্কেটিং ইত্যাদি। আপনার কাছে যদি একটি ল্যাপটপ বা কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট থাকে তাহালে ঘরে বসে টাকা আয় করতে পারবেন।

৭. ডাটা এন্ট্রি

ইন্টারনেটে ডাটা এন্ট্রি কাজ করার জন্য প্রচুর ওয়েবসাইট আপনি অবশ্যই পেয়ে যাবেন। আপনার মধ্যে যদি data entry কাজ করার জ্ঞান থাকে, তাহালে আপনি আয় করতে পারবেন। গুগল সার্চ ইঞ্জিনে সার্চ করলে আপনি অনেক ধরের ডাটা এন্ট্রি ওয়েবসাইট পেয়ে যাবেন।

এই কাজ গুলো আপনি দুই ভাবে করতে পারবেন, পার্ট-টাইম বা ফুল-টাইম জব হিসাবে। তবে, এই কাজ করতে হলে আপনার অবশ্যই একটি computer বা laptop থাকতে হবে। এখানে আপনি যত দ্রুত টাইপিং করতে পারবেন তত বেশি আয় করতে পারবেন।

ডাটা এন্ট্রির কাজ গুলো বিভিন্ন ধরনের হতে পারে, যেমন- translation, editing, copy pasting ইত্যাদি।

৮. অনলাইনে ছবি বিক্রিয়

ইন্টারনেটে এমন অনেক ইমেজ ওয়েবসাইট রয়েছে যেখানে আপনি একাউন্ট তৈরি করে নিজের মোবাইলে বা ক্যামেরাতে তোলা সুুন্দর এবং আকর্ষনীয় ছবি গুলো বিক্রিয় করতে পারবেন।

এই ধরনের ওয়েবসাইটকে বলা হয় স্টক ইমেজ ওয়েবসাইট (stock image website). যেমন- shutter stock, istock photo, bigstock, getty images, adobe stock ইত্যাদি।

এই ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে আপনি কেবল সেই সকল ছবি গুলো বিক্রিয় করতে পারবেন, যে ছবি গুলো আপনি নিজে তুলেছেন এবং যে গুলো হাই কোয়ালাটির ছবি। আপনি যত ইউনিক image upload করতে পারবেন, ততো সেগুলো বিক্রিয় হওয়ার সুযোগ থাকবে।

আপনার কাছে যদি একটি DSLR camera বা ভালো কোয়ালাটির স্মার্টফোন থাকে এবং আপনি যদি ভালো ছবি তুলতে পারেন, তাহালে নিজের তোলা ছবি গুলো বিক্রিয় করে অনলাইনে টাকা আয় করাটা আপনার জন্য লাভজনক বলে প্রমাণীত হতে পারে।

আজকে আমরা কি শিখলাম

তাহালে, বন্ধুরা আজকে আমরা জানলাম যারা ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই তারা কোন কোন মাধ্যমে অনলাইনে টাকা আয় করতে পারবেন। আর্টিকেলে বলা অনলাইন আয় করা পদ্ধতি গুলো যদি আপনার পছন্দ হয়, তাহালে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন।

আমি আশাকরি, উপরের অনলাইন ইনকাম করার পদ্ধতি গুলো আপনাদের অবশ্যই কাজে আসবে। তাছাড়া, এই আর্টিকেলের সাথে জড়িত যদি কোনো পরামর্শ বা প্রশ্ন থাকে তাহালে নিজে অবশ্যই কমেন্ট করুন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে