ছাত্রজীবনে পার্ট টাইম চাকরি করার লাভ ও সুবিধা ২০২১

3
342
ছাত্রজীবনে পার্ট টাইম চাকরি করার লাভ ও সুবিধা ২০২১
ছাত্রজীবনে পার্ট টাইম চাকরি করার লাভ ও সুবিধা ২০২১

আপনি কি একজন ছাত্র (student)? এবং আপনি কি ছাত্রজীবনে পার্ট টাইম চাকরি করার কথা চিন্তা করছেন? তাহালে আপনি নিজের ভবিষ্যতের জন্য একটি সঠিক এবং ভালো সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

কারণ, ছাত্রজীবনে পার্ট টাইম চাকরি করে টাকা আয় করে বিভিন্ন ভাবে লাভোবান হতে পারবেন। আপনি একজন স্টুডেন্ট হিসাবে যখন পার্ট-টাইম চাকরি করবেন। তখন আপনার মধ্যে এমন নতুন নতুন কিছু দক্ষতা চলে আসে, যে দক্ষতা গুলো অন্য স্টুডেন্টদের মধ্যে থাকবে না।

তাছাড়া আপনার শিক্ষা জীবন শেষ হওয়ার আগে আপনি অন্যদের চেয়ে অনেক অংশে এগিয়ে যাবেন। তবে মনে রাখবেন পড়াশোনা করার পাশাপাশি পার্ট টাইম জব করা তেমন সহজ কাজ নয়। কিন্ত আপনি যদি একটু কষ্ট করে দুইটি কাজ এক সাথে করতে পারেন তাহালে আপনার ভবিষ্যৎ নিশ্চিত উজ্জ্বল।

কি বিশ্বাস হচ্ছে না? তাহালে চলুন নিচে থেকে জেনে আসি ছাত্রজীবনে পার্ট টাইম চাকরি করলে কি কি লাভ ও সুবিধা হতে পারে।

কেন ছাত্রজীবনে পার্ট টাইম চাকরি করা জরুলি?

আসলে বন্ধুরা আমাদের মাইন্ড (mind) হলো এমন একটি প্রক্রিয়া যেটাকে আপনি যেভাবে function সেই ভাবে কাজ করবে। এজন্য আপনি স্টুডেন্ট থাকতে ঘরে বসে পার্ট টাইম জব করে নিজেকে ব্যাস্ত রাখতে পারেন, তাহালে অনেক আগে থেকে আপনার মাইন্ড কিছু ভালো দক্ষতা, গুন, অভ্যাস, ব্যবহার, উপলদ্বির সাথে পরিচিত করিয়ে দিবে।

যার ফলে, আপনার মাইন্ডকে চিরকাল অভ্যাস এবং দক্ষতার সাথে কাজ করবে এবং আপনার জীবনকে পজিটিভ ভাবে এগিয়ে নিয়ে যাবে। মনে রাখবেন, আপনার জীবনের সাথে সব সময় একটি থাকে যার জন্য আপনি নিজের একটি ভালো ক্যারিয়ার তৈরি করতে পারেন।

আর সেটা হলো আপনার নিজের কাজের অভিজ্ঞতা (work experience). এজন্য যত দ্রুত আপনি চাকরি জীবনের সাথে যুক্ত হতে পারবেন ততটা বেশি পরিমানে আপনার কাজের অভিজ্ঞতা হবে।

এখন হয়তো আপনার মনে প্রশ্ন তৈরি হয়েছে ছাত্রজীবনে পার্ট টাইম জব করে কি কি লাভ ও সবিধা হবে আমার।

#১. পার্ট টাইম টাকা আয়

আপনি যদি কোথাও পার্ট-টাইম বা ফুল-টাইম চাকরি করেন তাহালে সেখান থেকে অবশ্যই কিছু বেতন (salary) পাবেন। আপনি হয়তো জানেন ছাত্রজীবনে টাকা পয়সা নিয়ে সমস্যা থাকে। অধিঅংশ ছাত্রদের দেখা যায় কাছে টাকা পয়সা একেবারে থাকে না।

আবার অনেক ছাত্রদের টাকার অভাবে পড়াশোনা বন্ধ হয়ে যায়। এজন্য ছাত্রজীবনে পার্ট টাইম চাকরি আপনাকে আর্থিক ভাবে কিছুটা শক্তিশালী বানিয়ে দিতে পারবে। তাই আপনিও নিজের প্রয়োজন নিজে সম্পর্ন করতে পারবেন যদি আপনার কাছে একটা পার্ট-টাইম চাকরি থাকে।

(২) নতুন নতুন বিষয়ে জ্ঞান অর্জন

আপনি যখন পড়াশুনো করার পাশাপাশি একটা চাকরি করবেন তখন নতুন নতুন কিছু নলেজ এর মুখে পড়তে হবে। সেখানে কিভাবে মানুষের সাথে প্রফেশনাল কথা বলতে হয়, কম্পিউটার অপারেটিং, সেলস, মার্কেটিং ইত্যাদি বিষয়ে নানা ভাবে আপনার স্কিল (skills) তৈরি হবে।

এতে আপনি যে বিষয়ে পার্ট-টাইম চাকরি করছেন সেই বিষয়ে সম্পর্ন দক্ষতা বা জ্ঞান অর্জন করে নিজেকে একজন এক্সপার্ট হিসাবে তৈরি করতে পারবেন।

#৩. কাজের অভিগতা

আপনি বর্তমানে যে চাকরি করতে যাবেন না কেন সকল চাকরির ক্ষেএে তাদের প্রথম প্রশ্ন থাকবে কাজের অভিজ্ঞতা আছে কি না। মানে আপনি আগে কোথাও কাজ করেছেন কি না। আর বর্তমানে যেকোনো কোম্পানি নতুনদের চাকরি দিতে চাই না।

কারণ, আপনি চাকরি জীবনে নতুন তাই আপনার কোনো কাজের অভিজ্ঞতা নেই। এজন্য আপনি যদি পড়ালেখার পাশাপাশি একটা পার্ট-টাইম জব করেন তাহালে সেটা আপনার পরবর্তী সময়ে চাকরির জন্য বিশেষ ভূমিকা পালন করবে।

আপনি নিজে একটু চিন্তা করুন তো? কাকে আপনার কোম্পানিতে চাকরি দিবেন?

  • যে ব্যাক্তি নিজের জীবনকে কখনো সেই সমস্ত কোনো কাজ করেনি।
  • সেই ব্যাক্তি যার মধ্যে কাজের অভিজ্ঞতা রয়েছে।

#৪. সময়ের গুরুত্ব বুঝবেন

বিখ্যাত একজন লোক যার নাম হলো Benjamin Franklin বলেছিলেন Time is money. মানে তিনি বলেছিলেন সময় মানে হলো টাকা। আর এই কথার গভীরতা যিনি জীবনে বুঝতে পেরেছেন তিনি সফল। আপনি যদি টাকাকে ভালো করে ম্যানেজ করতে না পারেন তাহালে কখন যে টাকা আপনার হাত থেকে সরে যাবে বুঝতে পারবেন না।

এজন্য সময়কে সঠিক ভাবে পরিচালনা না করতে পারলে নিজের অজান্তে কখন যে সময় সুযোগ চলে যাবে কখনো বুঝতে পারবেন না। যখন আপনি ক্লাস, পড়াশোনা, চাকরি করবেন তখন আপনি ব্যাস্ততা ভরা জীবনের সাথে পরিচিত হবেন।

এজন্য আপনার কাছে দুইটা অপশন থাকবে, সময়ের গুরুত্ব বুঝে সঠিক সময়ে নিজের কাজ গুলো সম্পর্ন করা। আর সময়ের চিন্তা না করে কাজ গুলো সময়ে সম্পর্ন না করা। মনে রাখবেন, একজন সফল ব্যাক্তির প্রথম গুন হলো সে সময়ের মূল্য অনেক ভালো ভাবে জানে এজন্য তিনি সফল।

#৫. টাকার গুরুত্ব বুঝতে পারবেন

আপনি যখন স্কুল বা কলেজ জীবনে চাকরি করা শুরু করবেন তখন থেকে টাকার গুরুত্ব বুঝতে পারবেন। টাকা আয় করা কতটা কষ্টের এবং এক টাকা আয় করতে গেলে কতটা পরিশ্রম করতে হয় সেটা অনেক সহজে বুঝতে পারবেন।

যার ফলে আপনার মধ্যে অপ্রয়োজনীয় টাকা খরচ করতে বার বার ভাবতে হবে এবং টাকার সঠিক ব্যবহারের উপর আপনার ভালো জ্ঞান থাকবে। এভাবেই চাকরির বেতনের টাকা দিয়ে বুঝতে পারবেন টাকার গুরুত্ব।

#৬. নিজেকে ব্যাস্ত রাখা

আমাদের মধ্যে এমন অনেকে আছেন যারা ছাত্রজীবনে অনেক ধরনের ভুল করে থাকি। আর এই ভুলের কারণে সারাজীবন আমাদের কষ্ট পেতে হয়। এজন্য আপনি যখন পড়াশোনার পাশাপাশি একটা চাকরি করবেন তখন আপনার কাছে অন্য বিষয় নিয়ে ভাবার সময় থাকবে না।

আপনি অনেক ব্যাস্ত থাকার ফলে চাকরি ও পড়াশুনোর দিকে মন দিবেন। এভাবে ছাত্রজীবনে আপনি সুন্দর একটি ভবিষ্যৎ তৈরি করতে পারবেন। যেখানে অপ্রয়োজনীয় বিষয়ে ভাবার বা চিন্তা করার সময় থাকবে না।

#৭. নিজের পরিচয় তৈরি করা

আপনাকে কেউ যখন বলবে তুমি কি করো? তখন তুমি অনেক প্রাউডের সাথে বলতে পারবেন আমি পড়াশোনা করার পাশাপাশি একটা পার্ট-টাইম চাকরি করি। এতে আপনার নিজের একটি পরিচয় তৈরি হবে এবং মানুষরা আপনাকে অধিক বেশি পরিমানে সম্মান করবে।

মনে রাখবেন, নিজেকে আর্থিক ভাবে স্বাধীন রাখাটা সত্যি অনেক সম্মানের ব্যাপার। আপনি এই বিষয়ে তখন বুঝতে যখন নিজেকে আর্থিক ভাবে স্বাধীন রাখতে পারবেন।

#৮. আত্নবিশ্বাস বৃদ্ধি করা

আপনার নিজের উপর বিশ্বাস না থাকলে কিন্ত অনেক সহজ কাজ ও হয় না, আবার অনেক সময় নিজের আত্নবিশ্বাস এর কারণে অনেক কঠিক কাজ হয়ে যায়। এজন্য জীবনের সকল কাজে নিজেকে বিশ্বাসী করে তুলেন।

আপনি যখন পড়াশোনার পাশাপাশি পার্ট-টাইম চাকরি করবেন তখন আপনাকে নানা ধরনের কাজ করতে হবে। যার ফলে আপনার মধ্যে নতুন নতুন দক্ষতা বৃদ্ধি পাবে। এতে আপনার আত্নবিশ্বাস বেড়ে যাবে। এতে, জীবনে আপনি নিজের উপর বিশ্বাস মনের জোরে কঠিন কাজ গুলো করার দক্ষতা রাখবেন।

#৯. নতুন নতুন বন্ধু তৈরি হবে

অবশ্যই ছাত্রজীবনে স্কুল কলেজে নতুন নতুন বন্ধু বান্ধব তৈরি হয়ে থাকে। কিন্ত আপনি যখন কোনো প্রতিষ্ঠানে চাকরি করবেন তখন সেখানে নতুন কিছু বন্ধু তৈরি হবে যা আপনার স্কুল কলেজের বাইরে। মনে রাখবেন নিজের কর্মস্থান থেকে তৈরি হওয়া বন্ধুদের গুরুত্ব সব সময় একটু আলদা থাকে। মনে রাখবেন, ক্যারিয়ারের জন্য এই ধরনের বন্ধু অনেক সাহায্য করবে।

ছাত্রজীবনে সেরা কিছু পার্ট-টাইম জব

আসলে ছাত্রজীবনে পড়ালেখার পাশাপাশি একটা পার্ট-টাইম চাকরি বা পার্ট-টাইম জব করাটা সত্যি আপনার জন্য অনেক ভালো। এজন্য আপনি যেকোনো একটি চাকরি করতে পারবেন। কারণ নতুন চাকরি থেকে আপনি সব সময় নতুন কিছু শিখতে পারবেন।

তাছাড়া, ভবিষ্যতে যদি আপনার বিশেষ কোনো লাইনে চাকরি করার মন থাকে তাহালে আপনি সেই একই লাইনে জড়িত ইন্টার্নশীপ করতে পারবেন। তবে, ইন্টার্নশীপ করলে আপনার বেতন বা স্যালারি কম হবে। এতে আপনি ৪ থেকে ৫ মাসের মধ্যে সেই কোম্পানি থেকে ভালো মানের কাজ শিখতে পারবেন।

আপনাকে অবশ্যই কোম্পানি থেকে একটি এক্সপ্রেরিয়েন্স সার্টিফিকেট দেওয়া হবে। এই experience certificate দেখিয়ে আপনি ভালো ভালো কোম্পানিতে চাকরির জন্য আবেদন করতে পারবেন।

আপনি যদি ছাত্রজীবনে টাকা আয় করার কথা ভাবছেন তাহালে নিচের বিভিন্ন ধরনের ঘরে বসে পার্ট টাইম জব গুলো করতে পারেন।

Best part-time jobs for students

ব্লগিং (Blogging): অনলাইন থেকে টাকা আয় করার সেরা উপায় ব্লগিং। আপনি একটি ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করে সেখানে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন। (আমি নিজেও পড়াশোনার পাশাপাশি ব্লগিং করতাম। এখন পড়াশোনা শেষ করে প্রফোসানাল ভাবে blogging করি।

YouTube channel: অনলাইন থেকে টাকা আয় করা দ্বিতীয় সেরা উপার হলো ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে ভিডিও পাবলিশ করা। এবং আপনার ভিডিওতে গুগল এডসেন্স এর এড বা বিজ্ঞাপন দেখিয়ে টাকা আয় করা।

Content writing job: ছাত্রজীবনে কন্টেন্ট রাইটিং জব খুবই ভালো একটি চাকরি। আপনি বিভিন্ন ওয়েবসাইটে বাংলা, ইংরেজিতে আর্টিকেল বা কন্টেন্ট লিখে পেইড সার্ভে ওয়েবসাইট থেকে আয় করতে পারবেন।

Digital marketing: আপনি নিজের ঘরে বসে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ শিখে পার্ট-টাইম বা ফুল-টাইম কাজ করে আয় করতে পারবেন। বর্তমানে ডিজিটাল মার্কেটিং খুবই জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে।

Part-time sales & marketing work: ছাত্রজীবনে আপনি পড়ালেখার পাশাপাশি পার্ট-টাইমে বিভিন্ন কোম্পানির প্রডাক্ট গুলো বিক্রয় করে টাকা আয় করতে পারবেন।

Tuition: আপনি নিজে পড়াশোনার পাশাপাশি ঘরে বসে বাচ্ছাদের পড়িয়ে টাকা করতে পারেন। অনেক স্টুডেন্টরা এই tuition করে লেখাপড়ার খরচ নিজে বহন করছে।

Food delivery: আপনি অবশ্যই ছাত্রজীবনে পার্ট-টাইম জব হিসাবে ফুড ডেরিভারি জব করতে পারবেন। আপনি একটু লক্ষ্য করলে দেখতে পাবেন আপনার শহরে অনেকে এই স্টুডেন্ট জব (student job) কাজ করছে।

আমার হিসাবে ছাত্রদের বা স্টুডেন্টদের জন্য উপরের পার্ট-টাইম জব গুলো সেরা।

আজকে আমরা কি শিখলাম

তাহালে বন্ধুরা আজকে আমরা শিখলাম ছাত্রজীবনে পার্ট টাইম চাকরি করার লাভ ও সুবিধা ২০২১। আমার লেখা ছাত্রজীবনে পার্ট টাইম চাকরি আর্টিকেলটি কেমন লাগলো? এবং এই সম্পর্কে যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তাহালে  কমেন্টে জানান। আর ভালো লাগলে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

3 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে