জীবন বীমা কি? বীমা কত প্রকার ও কি কি

আমার ব্লগের অনেকে জীবন বীমা বা লাইফ ইন্সুরেন্স (life insurance) সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন। তাই আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাদের বলবো জীবন বীমা কি? (What is life insurance).

আসলে আমাদের প্রায় সকলে অবশ্যই জানা উচিত জীবন বীমা কি এবং বীমা কত প্রকার ও কি কি? এর সাথে আরো বলবো আমাদের সকলের কেন বীমা করা জরুরি।

বর্তমান এই যুগে যেকোনো সময় যেকোনো ধরনের দুর্ঘটনা হয়ে যেতে পারে। সেই দুর্ঘটনা আপনার আমার যে কারও সাথে হতে পারে। আবার আপনার মূল্যবান যেকোনো জিনিসের সাথেও হতে পারে।

আসলে জীবনে কোন সময় কি হবে, সেটা আমরা কেউ জানি না। তাই এই দুর্ঘটনা যুক্ত জীবনে আমাদের নিজের এবং নিজের মূল্যবান জিনিস গুলোর নামে বীমা করে রাখলে, পরে যখন খারাপ সময় আসবে তখন আর্থিক ভাবে অনেক লাভ বা সাহায্য পাওয়ার সুযোগ থাকবে।

জীবন বীমার সব থেকে লাভজনক দিক হলো, এর মাধ্যমে আপনি মৃত্যুর পরেও আপনার পরিবার ছেলে মেয়েরা আর্থিক ভাবে সাহায্য পাবে। তাই আমি আপনাদের বলবো বর্তমান সময়ে জীবন বীমা আমাদের সবার জন্য অবশ্যই জরুরি।

তাহালে, চলুন আমরা জেনে আসি জীবন বীমা কাকে বলে (What is life insurance)? আরো জানবো কেন বীমা করবেন? তাছাড়া, আবার জানবো সাধারন বীমা কি (What is general insurance).

জীবন বীমা কি?

জীবন বীমা বা লাইফ ইন্সুরেন্স হলো এমন এক ধরনের বীমা যেখানে একজন ব্যাক্তি একটি ইন্সুরেন্স কোম্পনিকে নিয়মিত ভাবে প্রিমিয়ার জমা দেয়, এবং ভবিষ্যতে একটি নির্ধারিত সময়ের পর বা সেই ব্যাক্তির মৃত্যুর পরে একটি ভালো পরিমানে টাকা পাওয়ার উদ্দেশ্যে।

জীবন বীমা কেন করবেন এর প্রয়োজনীয়তা কি?

আপনার পরিবার রয়েছে, আপনার পরিবারে একমাএ আর্থিক ভাবে আপনি সহযোগীতা করছেন, তাহালে অবশ্যই Term life insurance করে রাখা আপনার জন্য জরুরি।

আসলে Term life insurance হলো এমন একটি বীমা যেখানে, যার নামে ইন্সুরেন্স করা হয়েছে তিনি যদি কোনো কারণে মারা যায়, তাহালে তার মৃত্যুর পরে তার নির্ধরণ করা পরিবার টাকা দেওয়া হয়।

ইন্সুরেন্স নেওয়া ব্যাক্তির মৃত্যুর পরে পরিবারকে কত টাকা দেওয়া হবে, সেটা বীমা নেওয়ার আগে বিবেচনা করতে হবে। আপনার বেঁচে নেওয়া রাশি, যাকে বলা হয় sun insured value এর উপরে আপনার প্রিমিয়াম এর পরিমানটা নির্ধারণ করা হবে।

আশাকরি, বুঝতে পারছেন জীবন বীমা কি এবং জীবন বীমা কেন করা জরুরি, সেই বিষয়ে হয়তো সহজে বুঝতে পারছেন।

বীমা মানে কি?

বর্তমান সময়ে বীমা নিয়ে অনেকের অনেক ভুল ধারণা রয়েছে। অনেক মনে করেন বীমা মানে এক ধরনের investment scheme যেখানে টাকা জমা রাখা হয়। এবং এই জমা রাখা টাকা গুলো আমরা এক সময় সুদে আসলে উত্তলন করে নিতে পারবো।

ঠিক যে রকম হয়, saving scheme, bank recurring, fixed deposit, mutual fund ইত্যাদি গুলোতে হয়। কিন্ত, মনে রাখবেন, বীমা এভাবে টাকা জমা রেখে ভবিষ্যতে সুদে আসলে টাকা আয় করার মাধ্যম এটা নয়।

আসলে মানুষরা এখানে ইন্সুরেন্স এবং investment scheme এই দুইটার পার্থক্য বুঝতে ভুল করে। মনে রাখবেন, বীমা কখনো আপনার direct profit হিবাসে আয় করতে সাহায্য করবে না।

বীমা বা ইন্সুরেন্স আপনার ভবিষ্যতে হওয়া ক্ষতির বিপরীতে ভালো পরিমানে টাকা পেতে সাহায্য করে। তাই, বীমা স্কিম এর মাধ্যমে আপনি সরাসরি কোনো আর্থিক সহযোগীতা না পেলেও, ভবিষ্যতে জীবনে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন ক্ষতির বিনিময়ে বীমা কোম্পনির কাছ থেকে ভালো পরিমানে টাকা পেয়ে যাবেন।

বীমা কত প্রকার ও কি কি?

মনে রাখবেন, বীমা ৩ প্রকার হয়ে থাকে। যথা-

  • জীবন বীমা (Life insurance)
  • স্বাস্থ্য বীমা (Health insurance)
  • সাধারন বীমা (General insurance)

এই তিন প্রকার বীমার ব্যাপারে আমি নিচে বিস্তরিত ভাবে আলোচনা করেছি। তবে, এই ধরনের বীমা করার আগে প্রতিটা বীমা সম্পর্কে ভালো ভাবে জেনে নেওয়া জরুরি। 

বীমা অনেক ধরনের রয়েছে, তাই আপনি যেকোনো একটি বীমা করে রাখতে পারেন। তবে, বর্তমানে ৮ প্রকারের বেশি বীমা দেখা যায়। এই ৮ প্রকার বীমা গুলো হলো,

  1. জীবন বীমা (life insurance)
  2. স্বাস্থ্য বীমা (health insurance)
  3. দুর্ঘটনা বীমা (accidental insurance)
  4. সাধারন বীমা (general insurance)
  5. ভ্রমন বীমা (travel insurance)
  6. অগ্নি বীমা (fire insurance)
  7. সম্পত্তি বীমা (property insurance)
  8. ঘরের ইন্সুরেন্স (building insurance)

সাধারণ বীমা কি?

সাধারন বীমা আসলে এমন একটি বীমা, যেখানে জীবন বীমা ছাড়া সকল ধরনের বীমা রয়েছে। সহজ ভাবে বলতে গেলে এই বীমা মানুষের জীবনের সাথে জড়িত নয়।

এক কথায় বলতে গেলে আপনার জীবন এবং স্বাস্থ্য ছাড়া অন্যান্য মূল্যবান জিনিস গুলোর উপরে বীমা করাকে বলা হয় সাধারন বীমা। সাধারন বীমাতে, আপনার মূল্যবান জিনিস গুলো চুরি বা ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা পাওয়া উপর বীমা করা হয়।

যেমন, travel insurance, fire insurance, motor insurance, building insurance, accidental insurance ইত্যাদি বীমা গুলোকে বলা হয় সাধারন বীমা।

স্বাস্থ্য বীমা কি?

এখানে স্বাস্থ্য বীমার মানে অনেক সহজ। যে বীমা আপনার ভবিষ্যতে স্বাস্থ্যের সুরক্ষা করার জন্য সকল খরচ বহন করতে সেটা বলা হয় স্বাস্থ্যা বীমা।

যার নামে বীমা রয়েছে তিনি যদি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি থাকে, তাহালে ঔ ব্যাক্তির চিকিৎসা খরচ সম্পর্ন ভাবে বহন করবে স্বাস্থ্যা বীমা কোম্পানি।

স্বাস্থ্য বীমার কেন করবেন এবং এর প্রয়োজনীয়তা কি?

আজকের দিনে স্বাস্থ্য বীমা অনেক বেশি জরুরি। কারণ, বর্তমানে মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দিনে দিনে কমে যাচ্ছে। তাই, ছোট ছোট রোগের কারণে, আমাদের হাসপাতালে ভর্তি হতে হচ্ছে। এতে প্রচুর টাকা খরচ করতে হচ্ছে।

তাই, আপনার যদি একটি স্বাস্থ্য বীমা করা থাকে, তাহালে সেই খারাপ সময়ে আপনার টাকার প্রয়োজন হবে এবং তখন আপনার এক টাকাও নিজের থেকে খচর করা লাগবে না। হাসপাতালের সম্পর্ন খরচ বীমা কোম্পানির তরফ থেকে দিয়ে দেওয়া হবে।

আশাকরি, সহজে বুঝতে পারছেন কেন আজকের এই দিনে স্বাস্থ্য বীমা করা এতটা জরুরি।

বীমার প্রিমিয়াম কি?

আসলে বীমার প্রিমিয়ার এর মানে হলো, সেই টাকার পরিমান যেটা আপনাকে বা বীমাকৃত ব্যাক্তি মাসে মাসে বা বাছরিক (yearly) ভাবে বীমা কোম্পানিকে দিবেন বীমা বা insurance করার পরে। 

আজকে আমরা কি শিখলাম

তাহালে, বন্ধুরা আজকে আমরা জানলাম জীবন বীমা কি এবং বীমা কত প্রকার ও কি কি সেই ব্যাপারে। এছাড়া আরো কিছু বীমার বিষয়ে আমি বলেছি। 

আমি আপনাকে পরামর্শ দিবো আপনি অবশ্যই  দুইটি বীমা করে রাখেন। এই বীমা দুইটি হলো, জীবন বীমা এবং স্বাস্থ্য বীমা। আমার লোখা আর্টিকেলটি যদি আপনাদের ভালো লাগে তাহালে কমেন্টে জানাবেন এবং শেয়ার করবেন।

2 thoughts on “জীবন বীমা কি? বীমা কত প্রকার ও কি কি”

  1. সত্যিই আপনি একজন সফল ফ্রিলেন্সার. আশা করছি আপনি অনেক দুর পর্যন্ত এগিয়ে যাবেন। দেখা হবে বিজয়ে। বিজয় হোক বাংলা ব্লগারদের।

    Reply

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap