ফ্রিল্যান্সারদের নিয়ে সমাজে ১০ টি ভুল ধারনা

0
302
ফ্রিল্যান্সারদের নিয়ে সমাজে ১০ টি ভুল ধারনা
ফ্রিল্যান্সারদের নিয়ে সমাজে ১০ টি ভুল ধারনা

বর্তমানে সমায়ে অনলাইনে টাকা আয় করার অনেক গুলো উপায় রয়েছে। তার মধে প্রায় সব গুলো এই ওয়েবসাইটে বলেছি। আর আজকে আলোচনা করবো একটু ভিন্ন বিষয় নিয়ে। আমাদের সমাজের অনেকেই ফ্রিল্যান্সারদের ছোট করে দেখে। তাদের মধ্যে অনেক ফ্রিল্যান্সার দের অনেক বড় ভাবে দেখে। আবার অনেকে ফ্রিল্যান্সার দের অনেক ছোট করে দেখে। অনেকে মনে করে তারা তো চারকি করে না।

আজকের এই আর্টিকেলে আমি ফ্রিল্যান্সারদের নিয়ে সমাজে যে ১০ ভুল ধারণা রয়েছে সেগুলো তুলে ধরবো। তাহালে চলুন নিচে থেকে জেনে আসি।

ফ্রিল্যান্সারদের নিয়ে ১০ টি ভুল ধারণা

(১) রাত না জাগলে ফ্রিল্যান্সার হওয়া যায় না

আপনি হয়তো শুনেছেন ফ্রিল্যান্সার হতে হলে আপনাকে সারা রাত জেগে কাজ করতে হবে। মানে রাত না জাগলে মনে হয় ফ্রিল্যান্সার হওয়া যায় না। আসলে এই ধারণাটা সম্পর্ন ভুল। মনে করুন আপনি অনলাইন থেকে টাকা আয় করার জন্য একটি ওয়েবসাইট তৈরি করলেন। এখন আপনি ওয়েবসাইট থেকে টাকা আয় করেন। এবার ওয়েবসাইটের কন্টেন্ট আপনি রাতে বা দিনে পাবলিশ করবেন, সেটা কিন্ত কোথায় বলা নেয়। আপনি চাইলে দিনে ওয়রবসাইটে কন্টেন্ট পাবলিশ করতে পারেন। কিংবা রাতে ওয়েবসাইটে কন্টেন্ট পাবলিশ করতে পাবেন।

এখানে আপনার বাধাধরা কোনো সময় নেই। সুতারাং রাত না জাগলে ফ্রিল্যান্সার হওয়া যায় না এটা ভাবা ভুল। তবে, ফাইবার এবং আপওয়ার্ক মার্কেটপ্লেস কাজ নেওয়ার সময় আপনাকে প্রথমে রাত জাগতে হবে। কারণ এখানে রাতে বেশি পরিমানে কাজ দেওয়া হয়। কারণ, আমাদের দেশের সময়ের সাথে বাহিরের দেশের সময়ের সম্পর্ন তফাৎ। তাছাড়া ফ্রিল্যন্সিং ওয়েবসাইটের বায়ার্ন গুলো সব বিদেশী। তবে, আপনার মধে যদি ভালো স্কিল (skill) থাকে তাহালে দিনে ও আপনি কাজ করতে পারবেন। আসলে রাত জাগতে হবে এমন কোনো নিয়ম নেই।

(২) ফ্রিল্যান্সাররা অশিক্ষিত হয়

অনেকে মনে করেন যারা ফ্রিল্যান্সিং করে তারা স্কুল কলেজ ড্রপ করে ফ্রিল্যান্সার হয়। এই বিষয়টা সম্পর্নভাবে ভুল। কারণ ফ্রিল্যান্সার হতে হলে আপনাকে স্কিল ডেভেলপ করতে হবে। আপনি যদি অশিক্ষিত হন তাহালে কিভাবে বিদেশী বায়ার্নের সাথে ইংরেজিতে কথা বলে কাজ নিবেন। আমি এমন বুয়েট পড়ালেখা করা ভাইদের ও চিনি যারা প্রফেশনাল ভাবে ফ্রিল্যান্সিং করে।

(৩) ফ্রিল্যান্সিং মানেই লক্ষ টাকা ইনকাম

এই বিষয়টা সম্পর্ন ভুল। আপনি বিভিন্ন জায়গাই স্কিনশর্ট দেখে মনে করবেন ফ্রিল্যান্সার হয়ে গেলে মাসে মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন। কিন্ত মনে রাখবেন এই দুনিয়াতে সকল প্রফেশনাল কাজই কষ্টের। আপনাকে সকল কাজে সফল হতে গেলে প্রচুর ধৈর্যশীল হতে হবে। আজ ফ্রিল্যান্সার হয়ে গেলেন আর অনেক টাকা আয় করলেন এটা কিন্ত ভুল।

মনে করেন আপনি এই মাসে ফাইভারে ১৫ – ২০ টা অর্ডার পেলেন। তার মানে মাসে ৪০ – ৪৫ হাজার টাকা আয় করলেন। হতাৎ আপনি অসুস্থ হয়ে গেলেন ১ মাস কোনো কাজ করতে পারলেন না। সে মাসে কিন্ত আপনি টাকা আয় করতে পারলেন না। সুতারাং ফ্রিল্যান্সার মানে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করা না।

(৪) ফ্রিল্যান্সিং মানে কামলা খাটা

বিষয়টা আসলে তেমন না। আপনি চাইলে ক্লয়েন্টের কাজ না করে ও আয় করতে পারবেন। মনে করেন আপনার একটি ওয়েবসাইট রয়েছে। সেখানে আপনি আর্টিকেল পাবলিশ করে এবং গুগল এডসেন্স থেকে আপনার ইনকাম হয়। তাহালে আপনার কিভাবে কামলা খাটা হলো। আমি নিজেও একজন ফ্রিল্যান্সার। আমার ইনকামের প্রধান উৎস এই ওয়েবসাইট থেকে। তাহালে আমি কিভাবে কামলা খাটলাম?

(৫) ফ্রিল্যান্সার মানেই রোবট

অনেকে ভাবে সব ফ্রিল্যান্সাররা রোবট, তাদের মধ্যে দয়া মায়া নেই। বিষয়টা ভুল। আসলে ফ্রিল্যান্সারদের পেশাটা এমন যাদের সারা দিন রাত কম্পিউটারের সামনে বসে থাকতে হয়। তার মানে তারা দুনিয়ার কথা ভুলে যাবে। হিসাব করে দেখা গেছে ফ্রিল্যান্সাররা একটু বেশি রোমান্টিক হয়।

(৬) কম্পিউটার কিনলে ফ্রিল্যান্সার হয়ে যাবে

অনেকে চিন্তা করে কম্পিউটার আছে তাহালে মনে হয় ও ফ্রিল্যান্সার। কিন্ত বিষয়টা ঠিক তেমন না। ফ্রিল্যান্সার হতে হলে আপনার মধ্যে ক্লিল থাকতে হবে। কম্পিউটার বা ল্যাপটপ থাকলে যদি ফ্রিল্যান্সার হওয়া যেতো তাহালে প্রতি ঘরে ঘরে ফ্রিল্যান্সার জন্ম হতো। আপনি ঋণ করে কম্পিউটার কিনলেন কিন্ত অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে পারছেন না তাহালে ২ – ৩ মাস পরে জায়গা জমি বিক্রি করে টাকা পরিশোধ করতে হবে। এজন্য ঋণ করে কম্পিউটার কেনার আগে নিজের স্কিল ডেভেলপ করুন। মনে রাখবেন, মোবাইল দিয়ে অনেক ফ্রিল্যান্সিং কাজ করা সম্ভব।

(৭) বড় ভাই যেটা করছে সেটা করলে সফল

আমরা অনেকে চিন্তা করি আমাদের আশেপাশে বড় ভাইয়া যেটা করছে সেটা আমরা করলে মনে হয় ফ্রিল্যান্সার হয়ে যাবো। এটা কিন্ত আসলে বড় ভুল। মনে করুন আমি ব্লগিং করে মাসে ৩০- ৪০ হাজার টাকা আয় করি, এখন আপনি যদি আমার দেখে ব্লগিং শুরু করেন তাহালে কিন্ত ভুল করলেন। আপনার মনকে প্রশ্ন করুন আপনি কি নিয়ে কাজ করবেন। কোন কাজটা আপনার মনে ভালো লাগবে। কারণ মনের উর্ধে গিয়ে কাজ করলে সে কাজে কখনো সফল হওয়া যায় না।

(৮) আজ না কাল শুরু করবো

আমাদের মধ্যে প্রায় সবার একটা মনোভাব আছে যেটা কোনো কাজ শুরু করার আগে আজ না কাল করবো। কিন্ত কাল দিন আসলে সেই একই রকম চিন্তা তৈরি হয়ে যায়। এগুলো আসলে আমাদের জন্য বড় ভুল। মনে রাখতে হবে “সময় কারো জন অপেক্ষা করে না”। সুতারাং যে করবেন সেটা এখন আজ থেকে শুরু করুন।

(৯) টাকা ইনকাম করার জন্য ফ্রিল্যান্সিং করা

আপনি যদি মনে করেন ফ্রিল্যান্সিং করে অনেক টাকা ইনকাম করবেন তাহালে আপনি কখনো ফ্রিল্যান্সার হতে পারবেন না। কারণ ফ্রিল্যান্সার হতে হলে আপনার স্কিল ডেভেলপ করতে হবে। না হলে আপনি কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন না। বারবার মার্কেটপ্লেস থেকে হতাশ হয়ে ফিরে আসবেন। হা আপনি টাকা আয় করতে পারবেন যখন আপনি ভালো কাজ করতে পারবেন। এজন্য আগে নিজের স্কিল ডেভেলপ করুন, পরে টাকা ইনকামের কথা চিন্তা করুন। আর কখনো এমন মনোভাব প্রকাশ করবেন না দ্রুত কাজ শিখে টাকা ইনকাম করবো।

(১০) ফ্রিল্যান্সিং করে কেবল অনলাইন ইনকাম

অনেকে চিন্তা করে ফ্রিল্যান্সিং করে শুধুমাএ অনলাইনে ইনকাম করা সম্ভব। আসলে কথাটা সত্তি নয়। আপনি অনলাইনে ছাড়াও অপলাইন থেকেও ইনকাম করতে পারবেন। মনে করুন আপনি একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার, অনলাইনে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে ব্যানার, লোগো ছবির কাজ করে ইনকাম করেন। এটার পাশাপাশি আপনি যে কোনো প্রেসে কাজ করে ব্যানার, ছবির কাজ করে ভালো পরিমানে টাকা আয় করতে পারবেন।

সব কথার শেষ কথা আপনি যে কাজ পারেন সেটা আগে প্রমাণ করুন। দেখবেন কাজ নিজে আপনাকে খুঁজে নিবে। মনে রাখবেন কাজ জানলে টাকার অভাব হবে না। ফ্রিল্যান্সিং এমন একটি পেশা যেখানে প্রথমে আপনাকে অনেক পরিশ্রম করতে হবে। তবে আপনি সফল হবেন, ইনকাম করতে পারবেন মাসে হাজার হাজার টাকা।

আজকে আমরা কি শিখলাম

তাহালে বন্ধুরা আজকে আমরা শিখলাম সমাজের মানুষরা ফ্রিল্যান্সারদের নিয়ে যে ১০ টি ভুল ধারণা সেই সম্পর্কে। ফ্রিল্যান্সিং বিষয়ে প্রতিদিন নতুন নতুন তথ্য পেতে নিয়মিত ভাবে আমাদের এই ওয়েবসাইট ভিজিট করুন। আমার লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন। ধন্যবাদ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে