ব্যাকলিংক কি? কিভাবে backlink তৈরি করবেন

65
1686
ব্যাকলিংক কি? কিভাবে backlink তৈরি করবেন
ব্যাকলিংক কি? কিভাবে backlink তৈরি করবেন

ব্যাকলিংক কি এবং কিভাবে backlink তৈরি করবেন এই বিষয়ে অনেক ব্লগাররা চিন্তিত। কিন্ত আপনার যদি একটি ব্লগ বা ওয়েবসাইট থাকে আর আপনি যদি গুগল সার্চ ইঞ্জিন থেকে প্রচুর পরিমানে ভিজিটরর্স পেতে চান তাহালে অবশ্যই আপনার ব্যাকলিংক প্রয়োজন হবে। মানে আপনাকে শিখতে হবে backlink কিভাবে করে

মনে রাখবেন, ব্যাকলিংক অফ পেজ এসইও (Off page SEO) এর একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এবং এর মাধ্যমে আপনি নিজের ব্লগ বা ওয়েবসাইটকে Google search engine এ অনেক ভালো রেংকে নিয়ে যেতে পারবেন। কারণ ওয়েবসাইটের ব্যাকলিংক যত বেশি হবে ততোটা আপনার ব্লগের ডোমেইন অথোরিটি (domain authority) ভালো হবে। আর ডোমেইন অথোরিটি যত ভালো হবে ততো দ্রুত আপনার আর্টিকেল গুলো গুগলে জায়গা করে নিবে।

এর ফলে আপনার ওয়েবসাইটে গুগল থেকে দিনে দিনে বেশি পরিমানে ট্রাফিক আসতে থাকবে। যে ব্লগের ডোমেইন অথোরিটি বেশি সেই ডোমেইন গুগলরের কাছে গুরুত্ব অনেক বেশি। আপনি যদি সফল ব্লগার হতে চান তাহালে গুগল সার্চ ইঞ্জিন থেকে ভিজিটরর্স আনতে হবে এবং তার জন্য আপনাকে Backlink কিভাবে করে সেটা জেনে কাজ শুরু করতে হবে।

তবে, আমার মতে এমন অনেক ব্লগার আছে যারা আসলে জানে না ব্যাক লিংক কি। এবং কিভাবে ব্যাকলিংক তৈরি করতে হবে। যার ফলে তারা গুগল সার্চ ইঞ্জিন থেকে তুলনা মূলক কম ট্রাফিক পাচ্ছে। এজন্য আজকের এই আর্টিকেলে আমি বলবো ওয়েবসাইটের ব্যাকলিংক কি এবং কিভাবে এসইও (SEO) ব্যাকলিংক তৈরি করবেন। তাহালে চলুন নিচে থেকে জেনে আসি (What are backlink in bangla)

ব্যাকলিংক কি? (What is backlink in bangla)

আমি আগেই বলেছি Backlink হলো search engine optimization (SEO) এর একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। যা নিজের ওয়েবসাইটের domain authority, search engine preference এবং search engine ranking বৃদ্ধি করার জন্য ওয়েবসাইটে ব্যাকলিংক তৈরি করতে হয়।

সহজ ভাবে বলতে গেলে, ব্যাকলিংক মানে হলো আপনার ওয়েবসাইটের URL link অন্য আর একটি ওয়েবসাইটে থাকা। এভাবে আপনি সেই ওয়েবসাইট থেকে নিজের ওয়েবসাইটের জন্য একটি এক্সটার্নাল লিংক (external link)পাবেন।

উদাহরণ,

মনে করুন, আমি নিজের ব্লগের জন্য একটি আর্টিকেল লিখলেন। এবার আমার লেখা আর্টিকেলের একটি অংশে আপনার ব্লগের আর্টকেলের URL address দিয়ে দিলাম। এতে আপনি নিজের ব্লগ বা ওয়েবসাইটের জন্য একটি Quality backlink পেয়ে যাবেন। এভাবে অন্য অন্য ওয়েবসাইটে যখন আপনার নিজের ওয়েবসাইটের URL address থাকবে তখন প্রতিটা external link গুলো হবে আপনার ওয়েবসাইটের ব্যাকলিংক

এই backlink গুলোর মধ্যে Google bots আপনার ওয়েবসাইটের link juice pass করে দেয়। এর ফলে গুগল আপনার ওয়েবসাইটের প্রতি বিশ্বাস বাড়ে এবং ধীরে ধীরে ওয়েবসাইটের  Google search ranking ভালো হয়। আশাকরি ব্যাকলিংক কি বুঝতে পারছেন। এবার বলবো ব্যাকলিংক কত প্রকার ও কি কি? তাহালে চলুন নিচে থেকে জেনে আসি।

ব্যাকলিংক কত প্রকার ও কি কি? (Type of backlink)

Backlink কত প্রকার ও কি কি এটা আমি নিচে বলে দিচ্ছি। এতে আপনারা আরো ভালো ভাবে জানতে পারবেন।

Internal links : ইন্টারনাল লিংক হলো আমাদের আর্টিকেল ভিতরে থাকা ব্যাকলিংক। আমরা যখন আর্টিকেল লিখি তখন আমাদের লেখার মধ্যে নিজের ওয়েবসাইটের internal link দিয়ে backlink তৈরি করতে হয়।

External links : এক্সটার্নাল লিংক মানে আপনার ওয়েবসাইটের লিংক অন্য ওয়েবসাইটের আর্টিকেল থেকে নিতে হয়। সেটা হলো অন্যের ওয়েবসাইট থেকে নিজের ওয়েবসাইটে লিংক আশাকে বলা হয় external link.

Link juice : অন্যের ওয়েবসাইটে যখন hyper link এর মাধ্যমে backlink তৈরি করা হয়, তখন Google bots সেই লিংকে follow করে ওয়েবসাইটে link juice পাশ করে দেয়। এটা আপনার সাইটের ডোমেইন অথোরিটি এবং সার্চ ইঞ্জিন ট্রাফিক বাড়িয়ে দেয়।

Low Quality links : আপনার ব্লগে যখন কোনো low quality, spam ওয়েবসাইট থেকে backlink আসে তখন সেটা প্রভাব আপনার ব্লগে পড়ে। মনে রাখবেন এই ধরনের backlink আপনার সাইটের জন্য ক্ষতিকর।

High Quality links : যখন কোনো ভালো ওয়েবসাইট থেকে আপনার ব্লগে লিংক আসে তখন সেটাকে বলে high quality backlink. ভালো ওয়েবসাইট বলতে যাদের DA এবং PA ভালো।

No follow links : যখন কোনো ওয়েবসাইট থেকে আশা backlink গুলো rel=nofollow ট্যাগ ব্যবহার করা হয়ে থাকে তখন সেটা no follow backlink বলে। এই লিংক গুলো google bots তারা link juice করে না। এজন্য এগুলো তেমন কাজের হয় না।

Do follow links : যখন কোনো ব্লগ থেকে আশা backlink গুলো rel=nofollow ট্যাগ ব্যবহার করা হয় না তখন তাকে do follow link বলে। এই links গুলো মাধ্যমে গুগল জুস পাস করে দেয়। এজন্য এই লিংক গুলো অনেক কাজের।

বন্ধুরা তাহালে আমি অশাকরি ব্যাকলিংক কত প্রকার ও কি কি সেটা আপনারা সহজে বুঝে গেছেন। এবার বলবো কিভাবে ওয়েবসাইটে ব্যাকলিংক তৈরি করবো। তাহালে চলুন এবার নিচে থেকে জেনে আসি।

ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করবেন (How to create backlinks in bangla tutorial)

backlink তৈরি করার জন্য আপনি অনেক গুলো ওয়েবসাইট পাবেন। কিন্ত low domain authority থাকা ওয়েবসাইট থেকে backlink গ্রহন করবেন না। সব সময় চেষ্টা করবেন ভালো এবং high quality domain authority থেকে backlink গ্রহন করার। তাছাড়া আপনি যদি এক সাথে অনেক গুলো backlink তৈরি করেন তাহালে Google সেটা spam ভাবতে পারে। এতে গুগল সার্চ ইঞ্জিন থেকে আসা ভিজিটরর্স অনেক কমে যাবে।

অনেকে জানতে চান ডোমেইন অথোরিটি চেক করবো কিভাবে। তাদের জন্য একটি লিংক দিচ্ছি। এই লিংক গিয়ে Domain Authority জেনে আসতে পারবেন। লিংক – https://ahrefs.com/website-authority-checker

ব্যাকলিংক বানানোর ৫ উপায়

নিচে দেওয়া উপায় গুলো সত্তি অনেক কার্যকরী। আমি নিজের ওয়েবসাইটের জন্য এই নিয়মে backlink তৈরি করি। আপনি যদি চান তাহালে এই নিয়মে ব্যাকলিংক তৈরি করতে পারেন।

(১) Quora website

Quora হলো খুব জনপ্রিয় একটি question & answer ওয়েবসাইট। যেখানে যেকেউ প্রশ্ন করতে পারে এবং যেকেউ উত্তর দিতে পারে। আপনি যখন মানুষের প্রশ্নের উত্তর দিবেন তখন উত্তরের সাথে নিজের ওয়েবসাইটের লিংক দিয়ে দিবেন। এতে আপনার একটি backlink তৈরি হয়ে যাবে। Quora একটি high quality domain authority website. যেটার ডোমেইন অথোরিটি ৯৩। ব্যাকলিংক বানানোর জন্য এটা আমার কাছে অনেক জনপ্রিয় মাধ্যম।

(২) Guest post

ব্যাকলিংক তৈরি করার জন্য সেরা এবং লাভ জনক উপার হলো guest post করা। কারণ এটার মাধ্যমে আপনি contextual backlink পাবেন। গেষ্ট পোষ্ট করা মানে নিজের ওয়েবসাইটের সাথে জড়িত অন্যের ওয়েবসাইটে কন্টেন্ট লিখে পাবলিশ করে দেওয়া। যখন আপনি অন্যের ওয়েবসাইটের জন্য কন্টেন্ট লিখবেন তখন আপনি নিজের ওয়েবসাইটের URL লিংক দিবেন।

এতে আপনি ভালো একটি ব্যাকলিংক পেয়ে যাবেন। মনে রাখবেন, আপনি এমন ওয়েবসাইটে guest post করবেন যেটার DA এবং PA যেন বেশি থাকে। আপনাকে বেশি পরিমানে guest posting করতে হবে না মাসে ২-৩ টা করলে হয়ে যাবে।

(৩) Blog comment

বর্তমানে অনেক ব্লগাররা ব্যাকলিংক তৈরি করার জন্য অন্যের ব্লগের কমেন্টে আর্টিকেল লিংক যুক্ত করছে। আপনার ব্লগের টফিকের সাথে মিল এমন ভালো ভালো ওয়েবসাইটের আর্টিকেলের কমেন্টে সাইটের URL যুক্ত করে backlink বানিয়ে নিতে পারেন। তবে, low quality এবং spam সাইটে কখনো করবেন না।

(৪) Directory submission site

কিছু সময় আগে এই নিয়মে backlink তৈরি করতো কিন্ত বর্তমানে খুব কম মানুষারা এই নিয়ম ব্যবহার করে। এটার নিয়ম এই সকল ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনার সাইটের URL address জমা দিতে হতো। এই ধরনের সাইটে আপনি হাজার হাজার সাইটের লিংক পাবেন। এমন কয়েকটি ওয়েবসাইটের নাম নিচে উল্লেখ করছি। যেমন-

(৫) Social media site profiles

সোশ্যাল মিডিয়া প্রফাইল থেকে আপনারা সহজে ব্যাকলিংক তৈরি করে ভালো পরিমানে ভিজিটরর্স আনতে পারবেন। এটার জন্য আপনাকে বিভিন্ন সোশাল মিডিয়াতে গিয়ে profile তৈরি করতে হবে এবং নিজের ব্লগের URL দিতে হবে। বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া বলতে, যেমন-

আকজে আমরা কি শিখলাম

তাহালে বন্ধুরা আজকে আমরা শিখলাম ব্যাকলিংক কি (what is backlink in bangla tutorial) এবং কিভাবে ওয়েবসাইটের ব্যাকলিংক তৈরি করবো। ওয়েবসাইটে গুগলের প্রথম ৫ নম্বার পেজে আনার জন্য ব্লগে ব্যাকলিংক সংখ্যা বেশি করতে হবে। মনে রাখবেন, যত higt quality backlink আপনার ওয়েবসাইটে ততো গুগল আপনার ওয়েবসাইটকে বিশ্বাস করবে। Backlinks সম্পর্কে আর কোনো বিষয়ে জানতে চাইলে নিচে কমেন্টে জানান এবং লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করার অনুরোধ রইল।

65 মন্তব্য

  1. “May I simply just say what a comfort to uncover a person that actually understands what they are discussing on the web. You certainly realize how to bring a problem to light and make it important. A lot more people must read this and understand this side of your story. I can’t believe you are not more popular because you surely possess the gift.”
    דירות דיסקרטיות במרכז

  2. ধন্যবাদ এত সুন্দর রিসোর্স আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য।

    ব্যাকলিংক strength নিয়ে একটা পোস্ট করলে অনেক উপকৃত হতাম।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে