ব্লগিং (Blogging) নিয়ে যত প্রশ্ন এবং তার উত্তর – 2022

অনলাইনে যত গুলো ইনকামের সহজ উপায় রয়েছে তার মধ্যে সেরা হলো ব্লগিং (blogging). যারা নতুন ব্লগিং ক্যারিয়ার শুরু করতে যাচ্ছেন বা করেছেন তাদের মনে নানা ধরনের প্রশ্ন ঘুরপাক খায়। অনেকে আমাকে ব্লগিং নিয়ে নানা ভাবে নানা ধরনের প্রশ্ন করেছেন। তাদের সবার প্রশ্নের উত্তর দিবো আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে। এজন্য আজকের এই আর্টিকেলটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। (blog google)

আমি আশাকরি আজকের এই আর্টিকেলটি সম্পর্ন পড়ার পরে আপনাদের মনে আর কোনো প্রশ্ন থাকবে না। তাহালে চলুন নিচে থেকে ব্লগিং নিয়ে যত প্রশ্ন এবং তার উত্তর জেনে আসি।

এক নজরে সম্পূর্ণ লেখা পড়ুন

ব্লগিং (Blogging) নিয়ে যত প্রশ্ন এবং তার উত্তর

প্রশ্ন – ১

কিভাবে ব্লগিং শুরু করবো?

উত্তরঃ আপনি যদি ব্লগিং শুরু করতে চান তাহালে সর্বপ্রথম আপনাকে চিন্তা করতে হবে, গুগলের ফ্রি ব্লগার দিয়ে শুরু করবেন? নাকি ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে শুরু করবেন? যদি ব্লগার দিয়ে শুরু করতে চান তাহালে একটি জিমেইল একাউন্ট খুলে blogger.com এই ওয়েবসাইটে গিয়ে ইউটিউব ভিডিও দেখে বা এই ওয়েবসাইটের আর্টিকেল পড়ে খুব সহজে ব্লগার ওয়েবসাইট তৈরি করে নিতে পারবেন।

আর যদি ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ব্লগিং শুরু করতে চান তাহালে আপনাকে একটি ডোমেইন কিনতে হবে। আপনি কি জানেন ডোমেইন কি? Domain হলো একটি ওয়েবসাইটের নাম। মানে আপনি যে নামে ওয়েবসাইট তৈরি করবেন সেই নামকে ডোমেইন বলে। এরপর আপনার প্রয়োজন হবে হোস্টিং। হোস্টিং হলো ওয়েবসাইটের মেমিরি, মানে যেখানে আপনার ওয়েবসাইটের কন্টেন্ট গুলো থাকবে।

এবার আপনি ডোমেইন এবং হোস্টিং যুক্ত করে একটি সুন্দর ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন। তাছাড়া আপনি কিছু টাকার বিনিময়ে কারও কাছ থেকে ব্লগ বানিয়ে নিতে পারবেন। এরপরে সেখানে সুন্দর মান সম্মানিত আর্টিকেল লেখার মাধ্যমে ব্লগিং শুরু করতে পারবেন। এখানে কি বিষয়ে লেখালেখি করবেন সেটা আপনার উপর নির্ভর করবে। মানে আপনার যে বিষয়ে ভালো ধারণা রয়েছে সেই বিয়ষে আর্টিকেল লিখতে পারবেন।

প্রশ্ন – ২

ব্লগিং করে কি আয় করা সম্ভব?

উত্তরঃ হ্যা ব্লগিং করে ১০০% আয় করা সম্ভব। আমাদের দেশে এমন ও অনেক ব্লগিং সাইট রয়েছে যেখান থেকে মাসে হাজার হাজার ডলার আয় করছে গুগগ এডসেন্স থেকে। কিন্ত হা মনে রাখবেন আজ আপনি ব্লগিং শুরু করলেন আর কাল থেকে আপনার টাকা আয় শুরু হবে বিষয়টা তেমন না। আপনাকে মন দিয়ে কাজ করতে হবে। আপনার সাইটে যখন ভালো পরিমানে ভিজিটরর্স আসবে তখন আপনার ইনকাম শুরু হবে।

প্রশ্ন – ৩

মোবাইল দিয়ে কি ব্লগিং করতে পারবো?

উত্তরঃ হ্যা অবশ্যই আপনি মোবাইল দিয়ে ব্লগিং করতে পারবেন। আমার দেখা এমন অনেক ব্লগার রয়েছে যারা প্রথমে মোবাইল দিয়ে ব্লগিং শুরু করেছিলো। পরে তারা যখন ব্লগিং এ সফল হয়ে ভালো পরিমানে টাকা আয় করতে শুরু করলো তখন কম্পিউটার বা ল্যাপটপ কিনছে।

আপনি যদি মোবাইল দিয়ে ব্লগিং করতে চান তাহালে Chrome Browser দিয়ে ভালো ভাবে Blogging করতে পারবেন। তবে, ক্রোমম ব্রাউজার দিয়ে ব্লগিং করতে হলে অবশ্যই এটর বিভিন্ন অপশন সম্পর্কে জানতে হবে। এই ব্রাউজার থেকে  Desktop site অপশনে গিয়ে কম্পিউটারের মতো সকল কাজ গুলো করতে পারবেন।

প্রশ্ন – ৪

ব্লগে গুগল এডসেন্স পেতে কি কি লাগবে?

উত্তরঃ গুগল এডসেন্স পাওয়া নিয়ে অনেকের অনেক ধরনের মতামত রয়েছে। আমি নিজে একজন ব্লগার এবং আমি ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করে এডসেন্স এপ্রুভাল করে সেল করে থাকি। তবে, আমি যে ভাবে ব্লগে এডসেন্স এপ্রুভাল করিয়ে থাকি, সেই এক্সপিরিয়েন্স গুলো নিচে উল্লেখ করছি।

  • ব্লগে কমপক্ষে ২০ থেকে ২৫ টি হাই কোয়ালাটির ইউনিক আর্টিকেল থাকতে হবে।
  • অনেকে বলে ব্লগে ভিজিটরর্স না আসলে AdSense এপরুভ দেয় না, কথাটা সত্তি নয়। আপনি বিনা ভিজিটরর্স এ Google AdSense পাবেন। কিন্ত ব্লগ থেকে টাকা আয় করতে হলে আপনাকে ভিজিটরর্স প্রয়োজন।
  • ব্লগ সাইটের সুন্দর একটি থিম দিয়ে ভালো ভাবে কাস্টমাইজ করতে হবে। অবশ্যই ফ্রি থিম হলেও কোনো সমস্যা নেই।
  • সইটে About Us, Contact Us, Privacy policy, Disclaimer এই পেজ গুলো অবশ্যই যুক্ত করতে হবে।
  • ডোমেইন বা সাইটের বয়স কোনো বিষয় না, মাএ ৫ দিন বয়সেও এডসেন্স এপ্রুভাল দেয়।
  • অবশ্যই সাইটে ইউনিক কন্টেন্ট / আর্টিকেল পাবলিশ করতে হবে। কোথাও থেকে কপি করে দিলে হবে না।
প্রশ্ন – ৫

ফ্রি ডোমেইন এ কি এডসেন্স পাবো?

উত্তরঃ হ্যা আপনি ফ্রি ডোমেইন (free domain) দিয়ে এডসেন্স পাবেন। এখানে ফ্রি ডোমেইন বলতে বুঝানো হয়েছে blogspot.com, .tk, .kr, .oc এই ধরনের ডোমেইন গুলো। এই ডোমেইন দিয়ে আপনি এডসেন্স পাবেন। কারণ পলিসিতে কোথাও উল্লেখ নেই যে ফ্রি ডোমেইনে এডসেন্স এপ্রুভাল দিবে না। তবে, মনে রাখবেন ফ্রি ডোমেইন থেকে এডসেন্স এপরুভ পেতে হলে অবশ্যই সাইটের কোয়াফিকেশন ভালো হতে হবে।

তবে, আপমার পরামর্শ হলো ফ্রি ডোমেইন নিয়ে কাজ না করা। কারণ ফ্রি ডোমেইন দিয়ে সাইট রেংক করতে অনেক সময় লাগে। এজন্য একটি ডোমেইন কিনে নিন। ৩৫০ টাকা থেকে শুরু করে ১২০০ টাকার মধ্যে আপনি টপ লেভেলের ডোমেইন কিনে নিতে পারবেন কোম্পানির উপর নির্ভর করে।

প্রশ্ন – ৬

ব্লগিং করতে আমার কি কি যোগ্যতা লাগবে?

উত্তরঃ ব্লগিং কাজ শুরু করা তেমন কষ্টের কিছু না। আপনি ১ থেকে ২ মাস সময় নিয়ে শিখে নিতে পারবেন। এখানে আপনাকে শিখতে হবে কিভাবে আর্টিকেল লিখতে হয় এবং কিভাবে আপনার সাইট SEO করলে গুগলের টপ লেভেলে চলে আসবে সেটা। আপনি ব্লগিং করতে চান কিন্ত আপনি আর্টিকেল লিখতে পারেন না। তাহালে অন্য কারও কাছ থেকে টাকা দিয়ে কন্টেন্ট বা আর্টিকেল কিনতে পারবেন। আর এই আর্টিকেল আপনি সাইটে পাবলিশ করতে পারবেন।

প্রশ্ন – ৭

ব্লগিং সাইট তৈরি করতে কত টাকা খরচ হবে?

উত্তরঃ আপনি যদি প্রফোসানাল মানের সুন্দর ও আকর্ষণীয় ব্লগ সাইট তৈরি করতে চান তাহালে আপনাকে অনেক টাকা খরচ হবে। তবে, মোটামোটি ভাবে ব্লগ সাইট তৈরি করতে হলে ৫ থেকে ৮ হাজার টাকার মধ্যে হয়ে যাবে। আপনাকে প্রথম খরচ করতে হবে কারণ ফ্রিতে কোনো কিছু সম্ভব না।

প্রশ্ন – ৮

আমি কিভাবে গুগল থেকে ট্রাফিক / ভিজিটরর্স পাবো?

উত্তরঃ এমন অনেক ব্লগার রয়েছে যাদের ব্লগে গুগল থেকে ট্রাফিক আসে না। যে কারণে তারা হতাশ হয়ে পড়ে। গুগল থেকে ভিজিটরর্স / ট্রাফিক পেতে হলে অবশ্যই আপনাকে কীওয়ার্ড রিচার্স করতে হবে এবং ভালো কোয়ালাটির আর্টিকেল লিখতে হবে। এটার সাথে সঠিক কীওয়ার্ড (Keyword) দিয়ে এসইও (SEO) করতে হবে। তাহালে সাইটে গুগল থেকে ভিজিটরর্স আসবে এবং আপনি ভালো পরিমানে টাকা আয় করতে পারবেন।

প্রশ্ন – ৯

কিভাবে ব্লগ সাইট থেকে আয় করব?

উত্তরঃ একটি ব্লগ ওয়েবসাইট থেকে অনেক ভাবে আয় করা যায়। যেমন- গুগল এডসেন্স, ব্লগ সাইট এডসেন্স এপরুভ করিয়ে বিক্রি করে দেওয়া, স্পন্সর, এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ইত্যাদি। তবে, এ গুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স থেকে আয় করা। আমি নিজে গুগল এডসেন্স থেকে আয় করি এবং ব্লগ তৈরি করে এডসেন্স এপরুভ করিয়ে সেল করে আয় করি।

প্রশ্ন -১০

ব্লগিং করতে কি এসইও এক্সপার্ট (SEO Expert) হতে হবে?

উত্তরঃ ব্লগিং করতে হলে আপনাকে এসইও এক্সপার্ট হতে হবে না। কিন্ত গুগলের প্রথম পেজে আপনার আর্টিকেল গুলো আনতে হবে অবশ্যই SEO Expert হতে হবে। তা না হলে কখনো গুগলে রেংক পাবেন না। আপনি যদি প্রফোসানাল ভাবে ব্লগিং করতে চান তাহালে ব্লগিং করার সাথে সাথে এসইও শিখে নিন।

প্রশ্ন -১১

ব্লগিং করতে হলে কি আমাকে লেখক হতে হবে?

উত্তরঃ  হ্যা অবশ্যই আপনাকে ব্লগিং করতে হলে একজন ভালো লেখক হতে হবে। কারণ কন্টেন্ট ইজ কিং। এজন্য ভালো হাই কোয়ালাটির কন্টেন্ট লিখে ব্লগে পাবলিশ করতে হবে। কারণ আপনার কন্টেন্ট এর জন্য মানুষের কাছে আপনার ওয়েবসাইট পরিচিতি লাভ করবে। এজন্য সব সময় ভালো কোয়ালাটির আর্টিকেল সাইটে পাবলিশ করুন।

প্রশ্ন -১২

ফেসবুক আমার ডোমেইন ব্লক করে দিয়েছে আমি কি করবো?

উত্তরঃ আপনি যদি ফেসবুকের রোলস মেনে কাজ না করেন তাহালে অবশ্যই ফেসবুক আপনার সাইটের ডোমেইন ব্লক করে দিবে। তাদের রোলস এর মধ্যে হলো – স্পামিং করা যাবে না এবং সেক্সয়াল কোনো লিংক শেয়ার করা যাবে না। আপনি যদি এই কাজ গুলো করেন তাহালে অবশ্যই ফেসবুক ডোমেইন ব্লক করে দিবে।

তবে, আপনি ডোমেইন সিলেক্ট করার  সময় .com, .net, .org, .info এই ধরনের ডোমেইন নিবেন, তাহালে Facebook domain block করে দিলে আবার আবেদন করে আনব্লক করা যাবে।

আজকে আমরা কি শিখলাম

তাহালে বন্ধুরা যারা ব্লগিং শুরু করতে চান কিন্ত তাদের মনে নানা ধরনের প্রশ্ন তৈরি হয়। সেই সকল প্রশ্নের উত্তর উপর থেকে অবশ্যই আপনি পেয়ে গেছেন। এছাড়া ব্লগিং (blogging) সম্পর্কে যদি আরো কোনো প্রশ্ন থাকে তাহালে নিচে কমেন্টে জানিয়ে দিন। আমি সেই প্রশ্ন সহ উত্তর আর্টিকেলে যুক্ত করে জানিয়ে দিবো। সব শেষে আমার লেখাটি যদি আপনার কাছে ভালো লাগে তাহালে অবশ্যই শেয়ার করবেন।

5 thoughts on “ব্লগিং (Blogging) নিয়ে যত প্রশ্ন এবং তার উত্তর – 2022”

  1. আপনি কত টাকা করে অ্যাডসেন্স অ্যাপ্রুভাল ওয়েবসাইট বিক্রি করেন????

    Reply

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap