মাদারবোর্ড কি? এর কাজ কি এবং এর কয়টি অংশ থাকে

মাদারবোর্ড কি বা মাদারবোর্ড কাকে বলে, মাদারবোর্ড এর কাজ কি এবং এর কয়টি অংশ থাকে এই সম্পর্কে আজকে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

বর্তমানে কম্পিউটারের মতো অধিকাংশ ইলেক্ট্রনিক যন্ত্র গুলো বিদ্যুৎ শক্তির মাধ্যমে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে চলে। 

আর এটা আমরা সবাই জানি যে কম্পিউটারের মাদারবোর্ড নষ্ট হয়ে গেলে কম্পিউটার সাময়িকভাবে নষ্ট হয়ে যায়।

বৈদ্যুতিক শক্তি নির্ভর এই যন্ত্র গুলোতে যে বৈদ্যুতিক শক্তি সরবরাহকারী ব্যবস্থা থাকে, সেই ব্যবস্থা প্রথমে পরবর্তী তড়িৎ প্রবাহকে কম ভোল্টজের সমতড়িৎ প্রবাহে পরিণত করে কম্পিউটারের মাদারবোর্ডে পাঠায়।

এই বৈদ্যুতিক শক্তি মাদারবোর্ড গ্রহণ করে কম্পিউটারের সমস্ত অংশকে এক সাথে যুক্ত করে একটি একক প্লাটফর্ম তৈরি করে।

যে প্লাটফর্মটি কম্পিউটারের মেমোরি, হার্ড ড্রাইভ, সিপিইউ, ভিডিও কার্ড, সাউন্ড কার্ড, অপটিক্যাল ড্রাইভ সহ অন্যান্য কার্ডকে সরাসরি বা তারের মাধ্যমে যুক্ত রাখে।

আজকের আর্টিকেলে আমি মূলত আলোচনা করবো মাদারবোর্ড কি এবং মাদারবোর্ড এর কাজ কি সেই সম্পর্কে।

এক নজরে সম্পূর্ণ লেখা পড়ুন

মাদারবোর্ড কি (What is motherboard in bangla)

কম্পিউটারে মাদারবোর্ড এমন একটি প্রিন্টেড ইলেকট্রনিক কম্পোনেন্ট যুক্ত সার্ভিস বোর্ড। যা তৈরি করা হয় কম্পিউটারের মূল ফাউন্ডেশন হিসেবে।

পিসির বডির গায়ে ব্যাক সাইটে এই মাদারবোর্ড লাগানো থাকে। মাদারবোর্ড কম্পিউটারের অন্যান্য সকল ডিভাইসকে সহজে নিয়ন্ত্রণ করে সিস্টেম চালু রাখে।

এর সাথে সাথে কম্পিউটারের সিপিইউ, রাইটার, র‍্যাম এবং অন্যান্য সকল হার্ডওয়্যারের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে। আশাকরি, বুঝতে পারছেন মাদারবোর্ড কি (what is motherboard in bangla)

মাদারবোর্ড কাকে বলে?

যে ডিভাইসের সাথে কম্পিউটারের অন্যান্য সকল ডিভাইস যুক্ত হয়ে পরিপূর্ণ একটি কম্পিউটার তৈরি করা হয় তাকে মাদারবোর্ড বলে।

মাদারবোর্ডে এ কি কি থাকে?

  • ক্যাপাসিটর
  • ইনড্যাক্টর
  • নর্থব্রিজ
  • হিট সিংক
  • স্ক্রু হোল
  • সাউথ ব্রিজ
  • সিপিইউ সকেট
  • রেইড
  • ইউএসবি হোডার
  • সিডি-ইন
  • মেমোরি স্লড
  • জাম্পারস্
  • এফডব্লিউ এইচ
  • ব্যাক পেন কানেক্টের
  • সিস্টেম প্যানেল কানেক্টর
  • থ্রি পিন কেস পেন কানেক্টর
  • এটিএ/আইডিই ডিস্ক ড্রাইভ প্রাইমারি কানেকশন 
  • সিরিয়াল পোর্ট কানেক্টর
  • এক্সপেনশন স্লটস্ ইত্যাদি।

মাদারবোর্ড কত প্রকার ও কি কি?

মাদারবোর্ড এর প্রকারভেদ এবং কম্পিউটার মাদারবোর্ড ৫ প্রকার হয়ে থাকে। এই প্রকারভেদ গুলো তাদের ব্যবহার, আকার, ক্ষমতা, লেভেল, উৎপাদনের উপর নির্ভর করা হয়েছে।

পাঁচ প্রকারের মাদারবোর্ড হলো –

  1. মাইক্রো এটিএক্স মাদারবোর্ড (Micro ATX motherboard)
  2. স্ট্যান্ডার্ড এটিএক্স মাদারবোর্ড (Standard ATX motherboard)
  3. ন্যানো এটিএক্স মাদারবোর্ড (Nano ATX motherboard)
  4. পিকো এটিএক্স মাদারবোর্ড (Pico ATX motherboard)
  5. মিনি এটিএক্স মাদারবোর্ড (Mimi ATX motherboard)

মাদারবোর্ড এর ছবি

আপনি হয়তো মাদারবোর্ড সম্পর্কে তথ্য জানার জন্য আজকের এই আর্টিকেলটি পড়ছেন। তাই মাদারবোর্ড চেনার জন্য নিচে মাদারবোর্ড এর ছবি দেওয়া হলো। আশাকরি ছবিটি দেখে আপনি কিছুটা জ্ঞান অর্জন করতে পারবেন।

মাদারবোর্ড এর ছবি

মাদারবোর্ড এর কাজ

কম্পিউটারের প্রধান অংশ হলো মাদারবোর্ড তাই এটার অনেক গুলো কাজ করছে। নিচে উল্লেখযোগ্য কিছু কাজ সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।

১. কম্পিউটারের বিভিন্ন উপাদানে বৈদ্যুতিক সংকেত পাঠায়।

২. মাদারবোর্ড কম্পিউটারের বিভিন্ন ডিভাইস গুলোর মধ্যে সমন্বয় করতে সাহায্য করে এবং তাদের মধ্যে একটি ইন্টারফেস তৈরি করে।

৩. মাদারবোর্ডের যন্ত্র অংশ গুলো বিভিন্ন আকারের হয়ে থাকে। যেমন মাইক্রো এটিএক্স, মিনি এটিএক্স ইত্যাদি।

৪. কম্পিউটারে মাদারবোর্ড কেন্দ্রীয় ব্যবস্থা হিসেবে কাজ করে। তাছাড়া, মাদারবোর্ডে হার্ডডিস্ক, রেম (ram), সিপিইউ গুলোর মতো যন্ত্র গুলো কাছাকাছি ইনস্টল করা থাকে।

৫. Motherboard এক রকমের প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করে যার উপর নানা ধরনের এক্সপেনশন বা বিস্তারকারী শ্লটস থাকে।

মাদারবোর্ড এর দাম

বাজারে আপনি অনেক ধরনের মাদারবোর্ড পাবেন। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু মাদারবোর্ড এর দাম নিচে উল্লেখ করা হলো।

  • Asus Expedition EX-B560M-V5 Intel M-ATX Motherboard ১০,৬০০ টাকা।
  • Gigabyte GA-H61M-DS2 3rd / 2nd Gen Micro ATX PC Mainboard ৫,২০০ টাকা।
  • Gigabyte GA-H61M-DS2 Desktop Motherboard (Used) ২,৭০০ টাকা।
  • MSI B450M Mortar Max Gaming Motherboard ৯,৫০০ টাকা।
  • Gigabyte GA-B85M-D3V-A Intel 4th Gen Motherboard ৪,৫০০ টাকা।
  • Gigabyte B550 Aorus Elite AX V2 Motherboard ১১,৬০০ টাকা।
  • Gigabyte GA-G41MT-D3 DDR3 Motherboard ৩,০০০ টাকা।
  • Esonic H61FFL Desktop Motherboard ৩,৮০০ টাকা।
  • Asus Prime B450M-A AMD Motherboard ৮,৭০০ টাকা।
  • Asus P5KPL-AM Motherboard with Intel G31 Chipset ২,০০০ টাকা।

মাদারবোর্ড কি ঠিক করা যায়?

মাদারবোর্ড ঠিক করার বিষয় আপনাকে ছোট একটি পরামর্শ দেই। মনে করুন, আপনার কম্পিউটার বা মোবাইলের মাদারবোর্ডের দাম ২০ হাজার টাকা।

এখন আপনি যখন নষ্ট মাদারবোর্ড ঠিক করার জন্য কোনো মেকানিকের কাছে যাবেন, তখন হয়তো সেটা ঠিক করার জন্য ১৫ হাজার টাকা চাইতে পারে। আমার এক ছোট ভাই ঠিক করার জন্য গিয়েছিলো তার কাছে এমন দাম চেয়েছিলো।

যদিও মাদারবোর্ড ঠিক করা যায় কিন্ত আপনি ঠিক করতে যত টাকা লাগবে তার সাথে আর কিছু টাকা দিয়ে নতুন একটি মাদারবোর্ড ক্রয় করুন।

মাদারবোর্ড বিভিন্ন অংশের নাম? | মাদারবোর্ড পরিচিত

মাদারবোর্ড কি বা মাদারবোর্ড কাকে বলে এই বিষয় আপনি জেনে গেছেন। নিচের ছবিতে মাদারবোর্ডের বিভিন্ন অংশের নাম দেখতে পাচ্ছেন। চলুন নিচে থেকে বিস্তারিত জেনে আসি।

মাদারবোর্ড বিভিন্ন অংশের নাম মাদারবোর্ড পরিচিত

(1) সিপিইউ স্লট (CPU Slot)

১ নম্বরে আপনি দেখতে পাচ্ছেন সিপিইউ যেটা সাদা রঙ্গের চারকোনা একটি বোড। যেখানে সিপিইউ বা প্রসেসর বসানোর জায়গা।

আপনি যদি মাদারবোর্ডে dule core, core i3, core i5 জেনারেশন বসাতে চান তাহলে এখানে বসাতে পারবেন।

(2) সিপিইউ ফ্যান ও হিটসিংক মাউটিং (CPU fan & Heatsink munting points)

২ নম্বরে আপনি যেটা দেখতে পাচ্ছেন সেটার কাজ সিপিইউকে ঠান্ডা করার জন্য কুলিং ফ্যান বা হিটসিংক মাউটিং বসাতে হয়।

(3) পাওয়ার সংযোজক (ATX Power connector)

৩ নম্বরে যেটা দেখতে পাচ্ছেন তার নাম পাওয়ার কানেক্টর। মাদারবোর্ডে যত ইলেক্ট্রনিক পাওয়ার প্রয়োজন সেটা এই পিনের মাধ্যমে ট্রানফার করা হয়।

(4) র‍্যাম স্লট (Ram slot)

৪ নম্বরে যে স্লট দেখতে পাচ্ছেন এখানে র‍্যাম ইনস্টল করতে হয়। এখানে আপনি ২ জিবি, ৪ জিবি র‍্যাম ইনস্টল করতে পারবেন। এখানে আপনি দুইটা স্লট দেখতে পাচ্ছেন যার ফলে ভবিষ্যতে র‍্যাম বৃদ্ধি করে নিতে পারবেন।

(5) আইডিই সংযোগ (IDE connector)

আগে এই ডিভাইসের সাহায্যে হার্ডডিস্ক বা অপটিক্যাল ডিভাইস করত কিন্ত বর্তমানে এই কানেক্টর আর ব্যবহার করা হয় না।

(6) নর্থব্রিজ (Northbridge)

এটা কাঁটার মতো দেখতে একে হিটসিংক বলা হয়।  এটার নিচে ছোট ছোট মাইক্রোচিপ রয়েছে যাকে নর্থব্রিজ বলা হয়। যখন এই মাইক্রোচিপ গরম হয়ে যায় তখন হিটসিংক তাপ গ্রহণ করে নেয়।

(7) এজিপি স্লট (AGP slot)

এই স্লটে গ্রাফিক্স কার্ড ইনস্টল করতে হয়। আপনি যদি কম্পিউটার হাই গ্রাফিক্স গেম খেলতে চান তাহলে এখানে এক্সটার্নাল গ্রাফিক্স কার্ড ইনস্টল করতে হবে।

(8) সাউথব্রিজ (Southbridge)

এখানে অনেক গুলো ছোট ছোট মাইক্রোচিপ বসানো থাকে, যেগুলো গ্রুপ হয়ে একসাথে কাজ করে। এটাকে সাউথব্রিজ বলা হয়।

(9) সিআইপি স্লট (CIP slot)

আপনি সাদা যে ৫টি স্লট দেখতে পাচ্ছেন এগুলোকে বলা হয় সিআইপি স্লট। এখানে আপনি এক্সাট্রা সাউন্ড কার্ড, wifi card, ভিডিও কার্ড, নেটওয়ার্ক কার্ড ইত্যাদি যুক্ত করতে পারবেন।

(10) সিমস ব্যাটারি (SMOS Battery)

১০ নম্বরে আপনি যে কালো গোল পোর্ট দেখতে পাচ্ছেন সেটাকে সিমস ব্যাটারি বলে। এই ব্যাটারির সাহায্যে কম্পিউটারের ডেট, টাইম আপডেট থাকে। 

(11) অডিও পোর্ট (Audio port)

নীল, সবুজ এবং গোলাপি রঙের যে ৩টি পোর্ট দেখতে পাচ্ছেন এটাকে অডিও পোর্ট বা 3.1 অডিও জ্যাক বলে। এখানে আপনি হেডফোন, মাইক, স্পিকার যেকোনো কিছু লাগাতে পারবেন।

(12) ইউএসবি পোর্ট (USB port)

যেকোনো সাব ডিভাইস এই USB port ব্যবহার করতে পারবেন। যেমন মাউস, কীবোর্ড, পেনড্রাইভ, মেমোরি কার্ড ইত্যাদি।

(13) ইথারনেট পোর্ট (Ethernet port)

১৩ নম্বরে আপনি ৩টি পোর্ট দেখতে পাচ্ছেন। প্রথমটি হলো ল্যান পোর্ট এবং পরের দুইটি হলো ইথারনেট পোর্ট। কম্পিউটারে ইন্টারনেট সংযোগ করতে হলে এই ইথারনেট পোর্টের মাধ্যমে ল্যান ক্যাবল কানেক্ট করতে হবে।

(14) ইউএসবি পোর্ট (USB port)

আমি ১২ নম্বরে একবার usb port এর কথা বলেছি। এর মাধ্যমে আপনি মেমোরি কার্ড, পেনড্রাইভ, কীবোর্ড, মাউস ইত্যাদি কানেক্ট করতে পারবেন।

(15) প্যারালাল পোর্ট (parallel port)

গোলাপি রঙের এই পোর্টকে বলা হয় প্যারালাল পোর্ট। এই পোর্টের মাধ্যমে আপনি যেকোনো প্রিন্টার কম্পিউটার সাথে যুক্ত করতে পারবেন।

(16) ভিজিএ পোর্ট (VGA port)

ভিজিএ পোর্টের মাধ্যমে কম্পিউটারের মনিটর বা LCD যুক্ত করতে হয়। vga port দেখতে কালো রঙের হয়।

(17) কীবোর্ড স্লট (Keyboard slot)

নীল রঙের এই স্লটের সাথে কীবোর্ড সংযুক্ত করা হয়।

(18) মাউস স্লট (mouse slot)

গোলাপি রঙের এই স্লটের সাথে কম্পিউটারের মাউস সংযোগ করা হয়।

উপরে আমি মাদারবোর্ড এ কি কি থাকে এবং বিভিন্ন অংশের নাম সংক্ষিপ্ত আকারে আলোচনা করেছি।

শেষ কথা

আজকে আমরা জানলাম মাদারবোর্ড কি বা মাদারবোর্ড কাকে বলে, মাদারবোর্ড এর কাজ কি, মাদারবোর্ড এ কি কি থাকে, মাদারবোর্ড এর দাম সহ আরো বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে।

মাদারবোর্ড নিয়ে যদি আপনাদের আর কোনো প্রশ্ন থাকে তাহলে নিচে কমেন্টে অবশ্যই লিখে জানাবেন। শেষে what is motherboard in bangla আর্টিকেলটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন।

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap