মার্কেটিং কাকে বলে? এর জনক কে? (বিস্তারিত জানুন)

মার্কেটিং কাকে বলে: মার্কেটিং শব্দের সাথে আমরা প্রায় সকলে পরিচিত। যদিও marketing সম্পর্কে আমাদের বিস্তারিত জানা নেই। তাই আজকের আর্টিকেলে মার্কেটিং কি এবং কিভাবে করবেন এর সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো। 

আপনি হওতো জানেন মার্কেটিং ছাড়া কোনো ব্যবসা সঠিক ভাবে চলতে পারে না। ব্যবসায় সফলতা অর্জনের মূল মন্ত্র হলো মার্কেটিং।

মার্কেটিং এর কথা শুনে আপনি মনে মনে ভাবছেন, আমি জানি এর মানে কি? কিন্ত, আপনি মার্কেটিং এর মানে ভালো করে জানেন না।

আপনি মনে করছেন মার্কেটিং মানে একজন লোকের কাছে জামা-কাপড় বিক্রি করার কৌশল না। মার্কেটিং মানে পণ্য বিক্রি বা সেলস করার প্রক্রিয়াকে বুঝায় না।

মনে রাখবেন, মার্কেটিং এর মানে সম্পূর্ণ আলাদা, তাই এই সম্পর্কে সঠিক ভাবে জেনে নেওয়াটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

তাহলে, মার্কেটিং কি (what is marketing) এবং কোন প্রক্রিয়াকে বলা হয় মার্কেটিং?

মার্কেটিং হলো এমন একটি ব্র্যান্ড, ব্যবসা, পণ্য বা সার্ভিস কে জনগণের কাছে ও মার্কেটে প্রচার করা এবং সেগুলির ডিমান্ড বৃদ্ধি করার উদ্দেশ্য করা একটি প্রক্রিয়া।

এই প্রক্রিয়াতে বিভিন্ন ধরনের মার্কেটিং কৌশল ব্যবহার করা হয়। ছোট বড় সব ধরনের কোম্পানি বা ব্যবসায়ীকে তাদের পণ্য বা ব্র্যান্ড এর মার্কেটিং করতে হয়।

আর এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সাধারণ জনগণের কাছে তাদের পণ্য বা ব্র্যান্ডের ব্যাপারে জানিয়ে দিতে পারেন। বর্তমানে কার্যকর মার্কেটিং কৌশল ছাড়া একটি বিজনেস বা ব্র্যান্ড কখনো সফলতা পায় না।

মার্কেটিং কি? (What is marketing in bangla)

মার্কেটিং হলো কোন পণ্য, সার্ভিস, ব্যবসা বা ব্র্যান্ডের প্রচার ও প্রসার করার কাজে ব্যবহার করা একটি প্রক্রিয়া।

মার্কেটিং এর প্রধান উদ্দেশ্য হলো সাধারণ জনগণের কাছে নিদিষ্ট পণ্য, সার্ভিস, ব্যবসা বা ব্র্যান্ডের ডিমান্ড বা ভ্যালু বৃদ্ধি করা।

মার্কেটিং হলো এমন একটি management process যার মাধ্যমে যেকোনো সার্ভিস একটি ধারণার মধ্যে দিয়ে পণ্য আকারে সাধারণ গ্রাহকের কাছে চলে যাচ্ছে।

বলা যায় এটা এমন একটি বিজনেস প্রসেস যেখানে সাধারণ গ্রাহকের চাহিদা গুলো খুঁজে বের করে প্রোডাক্ট বা সার্ভিসের মাধ্যমে তাদের সন্তুষ্ট করা হয়।

মার্কেটিং হলো এমন একটি প্রক্রিয়া বা কৌশল, যার মাধ্যমে ব্যবসার সার্ভিস বা প্রোডাক্ট এর প্রতি সম্ভাব্য সাধারণ গ্রাহকদের আকর্ষন বা আগ্রাহী করে তোলা হয়। আর এটাই হলো marketing এর সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ প্রক্রিয়া।

মার্কেটিং কাকে বলে? | Marketing কাকে বলে

কোন ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠান যখন মুনাফা অর্জনের জন্য এবং লক্ষ্য অর্জন করে বিনিয়োগ সৃষ্টির পরিকল্পনা, প্রচার-প্রসার, মূল্যায়ন, পণ্য ও সেবাসমূহ বন্টন করার প্রক্রিয়াকে মার্কেটিং বলে।

মার্কেটিং (marketing) কে আবার বাজারজাতকরণ বলা হয়।

সহজে বলতে গেলে, মার্কেটিং হলো পণ্য বা সেবাসমূহের প্রচার করা এবং বিক্রয়ের কাজ, বাজার গবেষণা ও বিজ্ঞাপন প্রচরণার সংশ্লিষ্ট একটি কার্যক্রম।

ফিলিপ কোটলার মতে – মার্কেটিং হল একটি বিনিময় অল্প টাকার ব্যবসার আইডিয়া জেনে ব্যবসা শুরু করার প্রক্রিয়া, যার মাধ্যমে কাস্টমারের চাহিদা ও প্রয়োজন পূরণ করা হয় তার সন্তটির সাথে।

মার্কেটিং এর জনক কে?

মার্কেটিং এর জনক হলেন ফিরিপ কোটলার (Philip Kotler). তিনি আমেরিকার শিকাগো শহরে বসবাস করেন।

মার্কেটিং কত প্রকার

বর্তমানে অনেক রকমের মার্কেটিং রয়েছে। মনে করুন আপনি লোকবল সমৃদ্ধ বাজারে কোনো বস্তুর ভালো দিক সম্পর্কে জোরে জোরে আওয়াজ করে লোকসমাগম করলেন।

এবার বাজারে উপস্থিত লোকগন সেই বস্তুর ভালো দিক গুলো জেনে সেই বস্তুর প্রতি আকর্ষন হলো। এর মধ্যে অনেকে কিন্ত সেই বস্তুটি ক্রয় করবে। এটাই হলো মার্কেটিং।

তবে, বর্তমানে দুই ধরনের মার্কেটিং হয়ে থাকে।

  1. গতানুগতিক মার্কেটিং (Traditional marketing)
  2. ডিজিটাল মার্কেটিং (Digital marketing)

চলুন এই দুই প্রকার মার্কেটিং সম্পর্কে নিচে থেকে বিস্তারিত জেনে আসি।

গতানুগতিক মার্কেটিং (Traditional marketing) কি

আমরা প্রত্যেক দিন কোনোনা কোন ভাবে গতানুক মার্কেটিং এর আওতায় চলে আসি। এজন্য আমরা প্রায় সবাই গতানুগতিক মার্কেটিং এর সাথে পরিচিত।

এই মার্কেটিং মানুষের দেখতে সহজ হয় এবং বুঝতে সহজ হয়। যুগের পর যুগ আমরা এই গতানুগতিক মার্কেটিং এর সাথে চলে আসতেছি।

এই Traditional marketing এর মাধ্যমে নিজের ব্র্যান্ড বা প্রোডাক্টকে সহজে প্রচার করে বিক্রি করতে পারি।

চলুন জেনে আসি গতানুগতিক মার্কেটিং কিসের উপর নির্ভর করে –

  • টিভি বিজ্ঞাপন
  • রেডিও বিজ্ঞাপন
  • ক্যালেন্ডার বিজ্ঞাপন
  • ব্যানার বিজ্ঞাপন
  • ব্রশিউর বিজ্ঞাপন
  • ম্যাগাজিন বিজ্ঞাপন
  • নিউজ পেপার বিজ্ঞাপন
  • ফ্লায়ার বিজ্ঞাপন ইত্যাদি

উপরের বিজ্ঞাপন গুলোর মাধ্যমে আপনার ব্র্যান্ড বা সার্ভিস মিলিয়ন মিলিয়ন মানুষের কাছে পৌঁছে যাবে। মানুষ সহজে আপনার ব্র্যান্ড বা সার্ভিস সম্পর্কে জানতে পারবে।

আপনার বিজ্ঞাপন গুলো যখন টিভি, রেডিও, ব্যানার, নিউজ পেপার ইত্যাদি জায়গায় প্রচার করা হবে তখন সব বয়সের বা সকল পেশার মানুষরা দেখতে পাবেন।

এর ফলে আপনার পণ্যের বিক্রি বৃদ্ধি পাবে। তাই আপনিও নিজের ব্যবসার প্রচার করার জন্য এই গতানুগতিক মার্কেটিং (Traditional marketing) শুরু করতে পারেন। এতে দেশ বিদেশে আপনার ব্যবসা বা পণ্য পরিচিতি লাভ করবে।

ডিজিটাল মার্কেটিং (Digital marketing) কি

বর্তমানে আমাদের অধিকাংশ মানুষের কাছে অনলাইন অনেক জনপ্রিয়। রাত এবং দিনের অধিকাংশ সময় মানুষরা ব্রাউজারে ও সোশ্যাল মিডিয়াতে পড়ে থাক।

এখন মানুষরা কোনো কিছু জানা, গল্প, আড্ডা নিয়ে ইন্টারনেটের উপর নির্ভরশীল। এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে নিচের পণ্যের প্রচার করার জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং ব্যবহার করতে পারেন।

এই ডিজিটাল মার্কেটিং বা অনলাইন মার্কেটিং করার জন্য করার জন্য হাজার হাজার প্লাটফর্ম রয়েছে। এই জনপ্রিয় মাধ্যম গুলো আপনি পণ্যের প্রচারের জন্য ব্যবহার করতে পারবেন।

এর মধ্যে জনপ্রিয় ডিজিটাল মার্কেটিং মাধ্যম গুলো হলো –

  • গুগল বিজ্ঞাপন
  • ইমেইল মার্কেটিং
  • ওয়েবসাইট মার্কেটিং
  • অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং 
  • কন্টেন্ট মার্কেটিং
  • সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং
  • মোবাইল মার্কেটিং
  • ইনবাউন্ট মার্কেটিং ইত্যাদি।

ইন্টারনেট এর ব্যবহার করে মিলিয়ন মিলিয়ন মানুষের কাছে আপনার প্রোডাক্ট বা সার্ভিস পৌঁছে দিতে পারবেন। বর্তমানে অধিকাংশ কোম্পানি তাদের পণ্যের সেল বৃদ্ধি করার জন্য digital marketing ব্যবহার করছে।

শেষ কথা

আজকে আলোচনার বিষয় ছিলো মার্কেটিং কাকে বলে এবং মার্কেটিং এর জনক কে?। আশাকরি এই বিষয় সম্পর্কে সহজে বুঝতে পারছেন।

মার্কেটি সম্পর্কে যদি আর কোনো বিষয় জানতে চান তাহলে নিচে কমেন্টে লিখে জানাবেন এবং marketing কাকে বলে ভালো লাগলে শেয়ার করবেন।

7 thoughts on “মার্কেটিং কাকে বলে? এর জনক কে? (বিস্তারিত জানুন)”

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap