সার্ক কি? সার্ক কিভাবে গঠিত হয়

সার্ক কি: আজকের আর্টিকেলে আলোচনা করবো দক্ষিণ এশিয়ায় দেশ গুলো নিয়ে কিভাবে সার্ক (saarc) গঠিত হয়েছে এবং SAARC কি এর সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিবো।

সার্ক কি? (What is SAARC in bengali)

দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক একটি সংস্থা হলো সার্ক। এটা মূলত দক্ষিণ এশিয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থা। সার্কের সদস্য দেশ গুলো হলো বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ভারত, শ্রীলঙ্কা, ভুটান, মালদ্বীপ, নেপাল এবং আফগানিস্থান।

সার্ক প্রতিষ্ঠিত হওয়ার প্রথম দিকে ৭ টি দেশ মিলে সার্ক গঠিত হয়। পরে ২০০৭ সালে নতুন দেশ হিসেবে আফগানিস্থান সার্কে অন্তর্ভুক্ত হয়।

১৯৮৫ সালে বাংলাদেশের শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান সার্ক প্রতিষ্ঠিত করেন। তবে, জেনারেল হুসাইন মুহাম্মাদ এরশাদ দ্বারা প্রথম সার্কের পথ চলা আরম্ভ হয়।

সার্ক অন্তর্ভুক্ত দেশের নেতারা দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক উন্নয়ন করা এবং অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশ গুলোর সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ও সহযোগিতার লক্ষ্যে একটি সসদপত্রে আবদ্ধ হন।

সার্ক এর পূর্ণরূপ কি?

সার্ক এর পূর্ণরূপ South Asian Association For Regional Co-operation.

সার্ক এর প্রতিষ্ঠাতা কে?

১৯৮৫ সালের ৮ই ডিসেম্বর শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান এর দ্বারা সার্ক প্রতিষ্ঠিত হয়। সেই সময় বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ভারত, মালদ্বীপ, ভুটান, শ্রীলঙ্কা, নেপাল এই ৭ টি দেশ নিয়ে সার্ক প্রতিষ্ঠিত হয়। পরে ২০০৭ সালে নতুন দেশ হিসেবে আফগানিস্থান অন্তর্ভুক্ত হয়।

সার্কের লক্ষ্য সমূহ কি কি? | সার্ক কেন গঠিত হয়েছিল? | সার্ক কি ধরনের সংস্থা?

SAARC হলো একটি আঞ্চালিক সহোযোগি সংস্থা। এটি একই অঞ্চলের পাশাপাশি কয়েকটি দেশ নিয়ে গঠিত।

সার্ক প্রতিষ্ঠিত করার মূল লক্ষ্য হলো, সার্কের সদস্য দেশ গুলোর মধ্যে সম্মিলিত চেষ্টা ও পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে উক্ত দেশ গুলোর মানুষের জীবনযাক্রার মান উন্নয়ন করা।

এছাড়া সার্কের আরো কিছু লক্ষ্য রয়েছে, সেগুলো হলো –

  • স্বদেশ গুলোর মধ্যে ভ্রাভৃত্ব সৃষ্টি ও একে অপরের সাথে মিলে মিশে চলা।
  • স্বদেশ গুলোকে বিভিন্ন বিষয়ে আত্মনির্ভরশীল হতে সাহায্য করা।
  • সদস্য দেশ গুলো স্বাধীনতা রক্ষা ও ভৌগোলিক অখণ্ডতার নীতি মেনে চলা।
  • সদস্য দেশ গুলো এক দেশ অন্য দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয় হস্তক্ষেপ না করা।
  • সদস্য দেশ গুলো আন্তর্জাতিক সংস্থার সাথে সহযোগিতাপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি করে দেশ গুলোর উন্নয়ন করা।

আশাকরি, সার্ক গঠনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য গুলো আপনারা সহজে বুঝতে পারছেন।

সার্কের সদর দপ্তর কোথায়?

সার্কের সদর দপ্তর নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডু। রাষ্ট্রের শীর্ষ মিটিং সাধারণ বাৎসরিক ভিত্তিতে নির্ধারণ করা হয় এবং পররাষ্ট্র সচিবদের সভা দুই বছর পরপর অনুষ্ঠিত হয়।

সার্কের সদস্য দেশ কয়টি? | সার্কের সদস্য সংখ্যা কত?

সার্কের সদস্য দেশ হলো ৮ টি। এই দেশ গুলো হলো, বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ভুটান, মালদ্বীপ, শ্রীলঙ্কা এবং আফগানিস্থান।

সার্কের পর্যবেক্ষক দেশ হলো ৯ টি। যথা –

  1. চীন
  2. অস্ট্রেলিয়া 
  3. ইরান
  4. জাপান 
  5. মিয়ানমার 
  6. দক্ষিণ কোরিয়া
  7. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র 
  8. মরিশাস
  9. ইউরোপীয় ইউনিয়ন

সার্ক কিভাবে গঠিত হয়?

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে এবং অব উপনিবেশিকরণের শুরুতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আঞ্চলিক ক্ষেত্রে পারস্পরিক সহযোগিতার বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে অনেক গুলো সংগঠন গড়ে উঠে।

তখন দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশের মধ্যে সহযোগিতা গড়ে তোলার লক্ষ্যে সার্ক গঠিত হয়। ১৯৮০ সালে দক্ষিণ এশিয়ার দেশ গুলোর রাষ্ট্রনায়কগন রাষ্ট্রের প্রাকৃতিক ও মানবসম্পদের পূর্নব্যবহার করার লক্ষ্যে নানা রকমের চিন্তা ভাবনা আরম্ভ করেন।

এর ফলশ্রুতি ১৯৮৫ সালে দক্ষিণ এশিয়ার ৭টি দেশ বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ভারত, শ্রীলঙ্কা, ভুটান, মালদ্বীপ, নেপাল নিয়ে সার্ক গঠিত হয়। পরে ২০০৭ সালে সার্কে নতুন ৮ নম্বর দেশ হিসেবে আফগানিস্থান যুক্ত হয়।

সার্কের বর্তমান চেয়ারম্যান কে ২০২২ | সার্কের বর্তমান মহাসচিব কে ২০২২

সার্কের বর্তমান চেয়ারম্যান বা মহাসচিব হলেন পাকিস্তানের কূটনীতিক আমজাদ হোসেন সিয়াল।

সার্কের বর্তমান সদস্য সংখ্যা কত? | সার্কের সদস্য দেশ কয়টি

সার্কের এর বর্তমান সদস্য সংখ্যা ৮টি। এই সদস্য দেশ গুলো হলো –

  • বাংলাদেশ 
  • ভারত 
  • পাকিস্তান 
  • নেপাল 
  • ভুটান 
  • মালদ্বীপ 
  • শ্রীলঙ্গা
  • আফগানিস্তান

সার্ক সনদ কি বা কাকে বলে?

দক্ষিণ এশিয়ার একটি আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থা হলো সার্ক (saarc). ১৯৭৯ সালের শেষের দিকে বাংলাদেশের তৎকালীন রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান উদ্যোগ নেয় এই সংস্থা গঠন করার।

অবশেষে ১৯৮৫ সালে ৮ই ডিসেম্বর বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় ৭টি দেশ বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ভারত, নেপাল, মালদ্বীপ, ভুটান নিয়ে সার্ক আত্তপ্রকাশ করে।

এই ৮ই ডিসেম্বর সার্ক চুক্তি বা সার্ক সনদ স্বাক্ষর দিবস হিসেবে বলা হয়। দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থা ইংরেজিতে বলা হয় South Asian Association For Regional Co-operation.

শেষ কথা

আজকের আলোচনার বিষয় what is saarc in bangla. সার্ক সম্পর্কে যদি কোনো প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকে তাহলে কমেন্ট লিখে জানাবেন এবং আর্টিকেলটি ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করবেন।

2 thoughts on “সার্ক কি? সার্ক কিভাবে গঠিত হয়”

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap