Affiliate marketing কি? এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করুন

0
308
Affiliate marketing
বন্ধুরা আজকে আমি এই আর্টিকেলে বলবো এফিলিয়েট মার্কেটিং টিউটোরিয়াল সম্পর্কে। আপনার যদি একটি ব্লগ ওয়েবসাইট বা একটি ইউটিউব চ্যানেল থাকে তাহালে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এর আগের আর্টিকেলে আমি বলেছি ব্লগ থেকে টাকা আয় করার এবং ইউটিউব থেকে টাকা আয় করার মাধ্যম গুলো সম্পর্কে। তবে, তার মধ্যে google AdSense সেরা মাধ্যম বলে প্রমাণিত হয়েছে। কিন্ত বর্তমানে এফিলিয়েট মার্কেটিং করেও টাকা আয় করাটা অনেক বেশি লাভজনক হয়েছে। (affiliate marketing bangla tutorial)
চলুন তাহালে, জেনে আসি Affiliate marketing কি? এফিলিয়েট মার্কেটিং করে কিভাবে শুধু করবেন। এটা থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করবেন সেই সব প্রশ্ন গুলো সম্পর্কে। মনে রাখবেন, এফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা ইনকাম করার জন্য আপনাকে একটি ইউটিউব চ্যানেল বা ব্লগ ওয়েবসাইট প্রয়োজন হবে। তাছাড়া আপনি ফেসবুক পেজে বা অন্য সোশ্যাল মিডিয়াতে এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারেন তবে, সেটা বেশি লাভ হবে না। (এফিলিয়েট মার্কেটিং pdf)
বন্ধুরা তাহালে চলুন আমরা নিচে থেকে জেনে আসি এফিলিয়েট মার্কেটিং এর সম্পর্ন বিস্তারিত সম্পর্ক (এফিলিয়েট মার্কেটিং বাংলাদেশ)
 
এফিলিয়েট মার্কেটিং কি? (what is affiliate marketing)
 
এফিলিয়েট মার্কেটিং হলো এমন একটি মাধ্যম যার মাধ্যমে অনলাইন কোম্পানির ডিজিটাল প্রোডাক্ট, অনলাইন ফিজিক্যাল প্রোডাক্ট সহ অনলাইনে কিনতে যেকোনো জিনিস নিজের ইউটিউব, ব্লগ বা সোশ্যাল মিডিয়া পেজে এফিলিয়েট লিংক প্রোমোট করতে পারি। যখন আপনার প্রোমোট করা লিংক থেকে কেউ কিনবে তখন আপনি কিছু পরিমানে কমিশন পাবেন। আপনাকে কত কমিশন দেওয়া সেটা ঠিক করবে অনলাইন ওয়েবসাইট কোম্পানি।

তাহালে সহজভাবে বলতে পারি – এফিলিয়েট মার্কেটিং এমন একটি মার্কেটিং যার মাধ্যমে আপনি যেকোনো অনলাইন প্রোডাক্ট মানুষের কেনার আগ্রহ করাবেন। আর সেই প্রোডাক্ট কেউ কিনলে আপনি কমিশন পাবেন। আপনি অনলাইনে যেকোনো ডিজিটাল প্রোডাক্ট বিক্রয় করতে পারবেন। যেমন- ওয়ার্ডপ্রেস থিম, ডোমেইন, হোস্টিং, অনলাইন সফটওয়্যার এর মার্কেটিং নিজের ওয়েবসাইট বা ইউটিউবে বিক্রি করতে পারবেন।

আমি আশাকরি আপনারা বুঝতে পারছেন এফিলিয়েট মার্কেটিং কি?
 
এফিলিয়েট মার্কেটিং কিভাবে শুরু করবো? (How to start Affiliate marketing?)
 
(১) প্রথমে আপনার একটি ওয়েবসাইট, ইউটিউব চ্যানেল, অন্য সোশ্যাল মিডিয়া পেজ, ফেসবুক পেজ থাকতে হবে এবং সেগুলোতে প্রচুরসংখ্যক ভিজিটরর্স থাকবে হবে। আর এই চারটি বিয়ষে মার্কেটিং করার সেরা মাধ্যম।
(২) আপনার কাছে যদি ফেসবুক পেজ, ব্লগ, ইউটিউব চ্যানেল থাকে তাহালে যেকোনো একটি affiliate program এ জয়েন করতে পারেন। তারপরে তাদের প্রোডাক্ট গুলো প্রোমোট করতে পারেন।
 
(৩) affiliate program এ জয়েন করার পরে আপনি তাদের কোন কোন প্রোডাক্ট গুলো আপনার ব্লগে, ইউটিউবে এবং পেজে প্রোমোট করবেন সেটা নির্বচন করতে হবে।
 
(৪) আপনি যে সমস্ত প্রোডাক্ট গুলো বেঁচে নিবেন সেগুলো বিনিময়ে আপনাকে একটি এফিলিয়েট লিংক দেওয়া হবে। সেই লিংক প্রোমোট করার পরে ভিজিটরর্সরা সরাসরি লিংক থেকে ক্রয় করতে পারবে।
 
(৫) এবার আপনি প্রোডাক্টের এফিলিয়েট লিংক ব্লগে, ওয়েবসাইটে, ফেসবুক পেজে বা গুরুপে এবং ইউটিউব চ্যানেলে শেয়ার করে মার্কেটিং করতে পারবেন।
 
(৬) আপনার শোয়ার করা product গুলো থেকে কেউ যদি পন্য কিনে তাহালে আপনি কমিশন (commission) পাবেন।
 
উপরের এই ৬ টি জিনিসের মাধ্যমে আপনি affiliate marketing শুরু করতে পারবেন। আশাকরি কিভাবে এফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করবেন সেটা সহজে বুঝতে পারছেন।
 
এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করুন
 
এফিলিয়েট মার্কেটিং করে মানুষ প্রতিমাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছে। আপনি প্রথম থেকে চেষ্টা করলে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করতে পারবেন। কিন্ত affiliate marketing করার জন্য আনাকে অবশ্যই একটি সময় নিয়ে বুঝতে হবে। মানে আপনাকে কিছু জায়গাই দক্ষ (Expert) হতে হবে।
মনে করুন, আপনি ব্লগে বা ইউটিউব চ্যানেলে ডোমেইন হোস্টিং এর লিংক প্রোমোট করলেন। এখন ১ মাসে আপনার প্রোমোট করা লিংক থেকে ১৫ জন ক্রয় করলো। প্রতিটা প্রোডাক্ট থেকে আপনি কমিশন পেলেন ২০% করে। আর বিক্রয় করা প্রোডাক্টের মূল্য ৫০০০ টাকা করে। তাহালে ১ মাসে আপনার ইনকাম হবে।
 
প্রোডাক্টের মূল্য ৫০০০ x ১৫ = ৭৫০০০ টাকা
 
আপনি কমিশন পচ্ছেন ৭৫০০০ ÷ ২০ = ৩৭৫০ টাকা
 
তাহালে আপনি একমাসে ৩৭৫০ টাকা কমিশন পাবেন। আর আপনি যত বিক্রয় করতে পারবেন ততো আপনার বেশি কমিশন আসবে। এভাবে ধীরে ধীরে আপনি বেশি পরিমানে ইনকাম করতে পারবেন।
 
এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করাটা সম্পর্ন নির্ভর করে,
  • আপনি কত টাকার জিনিস বিক্রয় করতে পেরেছেন।
  • প্রতিটা জিনিস থেকে আপনাকে কোম্পানি কত টাকা করে কমিশন দিচ্ছে সেটার হিসাবে।
  • আপনি কতটি প্রোডাক্ট এফিলিয়েট লিংক (affiliate link) এর মাধ্যমে বিক্রয় (sell) করেছেন।
  • যে প্রোডাক্ট গুলো আপনি প্রোমোট করেছেন সেটার বাজারে কি পরিমানে চাহিদা রয়েছে।
উপরেন জিনিস গুলো উপরে এবং কোম্পানির দেওয়া কমিশন এর নির্ভর করবে আপনি মাসে কত আয় করতে পারবেন।
 
লাভজনক এফিলিয়েট মার্কেটিং সাইট গুলো
 
আপনি ছোট বড় সব ধরনের অনলাইন কোম্পানির affiliate program ব্যবহার করতে পারেন। তবে, তাদের মধ্যে এমন বিখ্যাত কিছু নেটওয়ার্ক আছে যারা আপনাকে বেশি পরিমানে কমিশন দিবে। সেই সমস্ত এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক গুলো নাম নিচে উল্লেখ করছি।
  1. Amazon affiliate program
  2. Filpkart affiliate program
  3. Ebay affiliate program
  4. Go daddy (domain history) affiliate program
  5. Hostgator affiliate program
এগুলো ছাড়াও আপনি আরো অনেক গুলো এফিলিয়েট প্রোগ্রাম পাবেন। তারাও আপনাকে ভালো পরিমানে কমিশন দিবে। তাদের নাম জানতে Google এ গিয়ে affiliate program লিখে সার্চ দিয়ে বিস্তারিত জেনে জয়েন (join) করে কাজ করুন।
 
affiliate marketing সম্পর্কে কিছু প্রশ্ন এবং তার উত্তর
 
প্রশ্ন – ১: affiliate program এ জয়েন করতে কত টাকা লাগে? 
 
উত্তরঃ এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এ জয়েন করতে আপনার কোনো টাকার প্রয়োজন হবে না। আপনি সম্পর্ন ফ্রিতে জয়েন করতে পারবেন।
 
প্রশ্ন – ২: affiliate product কিভাবে প্রোমোট করবো?
 
উত্তরঃ এফিলিয়েট প্রোডাক্ট প্রোমোট বা মার্কেটিং করার জন্য সেরা উপায় গুলো হলো ব্লগ ওয়েবসাইট, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ এর মাধ্যমে প্রোমোট করা। সেখানে প্রচুর সংখ্যক ট্রাফিক থাকতে হবে।
 
প্রশ্ন – ৩: কি ধরনের প্রোডাক্ট প্রমোশন বা মার্কেটিং করবেন?
 
উত্তরঃ বর্তমানে কিছু লাভজনক পন্য বিক্রয় হওয়া প্রোডাক্ট হলো – 
  1. মোবাইল / স্মার্টফোন
  2. বই (Books)
  3. ডোমেইন ও হোস্টিং
  4. ওয়ার্ডপ্রেস থিম (WordPress theme)
  5. জামা কাপড়
  6. ল্যাপটপ (Laptop)
  7. আরো অনেক প্রোডাক্ট
এফিলিয়েট মার্কেটিং থেকে আয় করা টাকা কিভাবে তুলবেন?
 
এফিলিয়েট থেকে আয় করা টাকা আপনি নিজের ব্যাংক একাউন্টে নিতে পারবেন। তাছাড়া এফিলিয়েট মার্কেটিং এর কমিশনের টাকা গুলো আপনি মাস্টার কার্ড এ নিতে পারবেন। সেখানে টাকা নেওয়ার জন্য সব রকমের অপশন পাবেন।

আজকে আমরা কি শিখলাম

তাহালে বন্ধুরা আজকে আমরা শিখলাম এফিলিয়েট মার্কেটিং কি? এফিলিয়েট মার্কেটিং কিভাবে শুরু করবো? কত টাকা আয় করবেন? কিভাবে টাকা তুলবেন? সম্পর্ন বিয়ষে বিস্তারিত আলোচনা করলাম। এইরআর্টিকেল সম্পর্কে যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তাহালে নিচে কমেন্ট করুন। আমি উত্তর দিবো। আর এফিলিয়েট মার্কেটিং গাইডলাইন আপনার কাছে যদি ভালো লাগে তাহালে বন্ধুদের সাথে শোয়ার করবেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে