Http কি? Http এর কাজ কি

আপনার মনে কি কখনো প্রশ্ন জেগেছে Http কি?এবং Http এর কাজ কি? যদি প্রশ্ন জেগে থাকে তাহলে আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে বিস্তারিত জেনে নিন।

আমি ধরলাম আপনিও আমার মতো একজন ব্লগার। তাই আপনার ওয়েবসাইট হ্যাঁকারদের হাত থেকে বাঁচানোর জন্য এইচটিটিপি কি জানা গুরুত্বপূর্ণ।

আবার, আপনি ইন্টারনেটে যে ওয়েবসাইট ব্যবহার করে বিভিন্ন তথ্য জানার চেষ্টা করছেন সেটা কতটুকু নিরাপদ।

এই সব ওয়েবসাইট গুলোতে নিজের ব্যাক্তিগত তথ্য গুলো প্রদান করলে সেগুলো হ্যাক হয়ে যাবে কিনা সেটার সম্পর্কে আজকের আলোচনা জেনে যাবেন।

এখানে নিজের ব্যাক্তিগত তথ্য বলতে, আমরা অনেক সময় বিভিন্ন ওয়েবসাইটে একাউন্ট খোলার সময় বা কমেন্ট করার সময় নিজের নাম, ঠিকানা, ফোন নম্বর, ইমেইল এড্রেস ব্যবহার করি।

আপনার এই সব ব্যাক্তিগত তথ্য গুলো কতটুকু নিরাপদ সেটাও আজকে জেনে যাবেন। তাই আজকের এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়ুন।

Http কি? (What is http)

HTTP এর পূর্ণরূপ হলো Hyper Test Transfer Protocol. আমরা যখন কোনো ওয়েব ব্রাউজার ওপেন করে কোনো ওয়েবসাইট ভিজিট করি তখন চোখের সামনে সেই ওয়েবসাইটের সকল তথ্য গুলো দেখি সেটাই hyper test.

আপনি হয়তো জানেন সকল ওয়েবসাইট কোনো না কোনো সার্ভারে হোস্ট করা থাকে। আর ঔ সব ওয়েবসাইটকে আমরা ব্রাউজারের মাধ্যমে ভিজিট করে দেখি।

এর মানে ওয়েবসাইট সার্ভার থেকে ট্রেন্সফার করে ব্রাউজারে আসতেছে। সার্ভার থেকে ব্রাউজারে আসার সময় কিছু নিয়ম নীতি মেনে আসতে হয় সেটাকে বলে protocol.

এই সকল সিস্টেম গুলোকে বলা হয় HTTP. 

ওয়েবসাইটের সকল কনটেন্ট সার্ভার থেকে ব্রাউজারে আসা এবং ব্রাউজার থেকে ওয়েবসাইট দেখার জন্য যে অনুরোধ পাঠানোর কাজটি এই HTTP এর মাধ্যমে করা হয়।

HTTP হলো একটি পাবলিক ট্রান্সফার প্রটোকল। আপনি যখন কোনো তথ্য ওয়েবসাইটে প্রবেশ করান তখন সেটা সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকে। হোক সেটা হ্যাকার বা অন্য সাধারণ কেউ।

একটা উদাহরণ দিলে সহজে বুঝতে পারবেন। মনে করুন আপনি কোনো একটি তথ্য অনুসন্ধান করার জন্য http://www.amarblog.xyz ভিজিট করছেন যেটা http সাপোর্ট। 

তাছাড়া, আপনি কোন কোম্পানির ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন সেটাও নিশ্চিত না। মনে করুন আপনি ওয়াইফাই (wifi) ব্যবহার করে উক্ত সাইটটি ভিজিট করছেন।

এবার আপনি যখন তথ্য জানার জন্য amarblog.xyz লিখে সার্চ করছেন তখন রিকুয়েষ্ট যাচ্ছে amarblog.xyz এর সার্ভারের কাছে সাইট দেখানোর জন্য।

আপনি একটু লক্ষ্য করলে বুঝতে পারবেন এখানে প্রথমে রিকুয়েষ্ট যাচ্ছে ওয়াইফাই (wifi) এর কাছে তারপর যাচ্ছে amarblog.xyz এর সার্ভারে। 

এখন আপনি যদি এয়ারটেল কোম্পানি ইন্টারনেট ব্যবহার করেন তাহলে তাদের গেটওয়ের মাধ্যমে আপনার রিকুয়েষ্ট যাচ্ছে amarblog.xyz এর সার্ভারে।

এবার amarblog.xyz এর সার্ভার আপনার রিকুয়েষ্ট পেয়ে ওয়াইফাই রাউটার বা এয়ারটেল ইন্টারনেট গেটওয়ের মাধ্যমে চলে আসছে। যার ফলে আপনি amarblog.xyz ওয়েবসাইটের তথ্য গুলো দেখতে পাচ্ছেন।

মনে করুন, http://www.amarblog.xyz ওয়েবসাইটটি একটি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান, যেখান থেকে আপনি অনলাইনে পণ্য কিনতে পারবেন।

এখন অনলাইনে পণ্য কিনতে হলে আপনাকে প্রথমে একাউন্ট খুলতে হবে এবং তার জন্য আপনার নাম, ঠিকানা, ফোন নম্বর, ইমেইল এড্রেস, ক্রেডিট কার্ড নম্বর দিতে হবে।

আপনার তথ্য গুলো amarblog.xyz ওয়েবসাইটে দেওয়ার পরে ওয়াইফাই ও এয়ারটেল ইন্টারনেট কোম্পানির গেটওয়ের মাধ্যমে amarblog.xyz সার্ভারে চলে যাচ্ছে।

এখন ওয়ারটেল ইন্টারনেট গেটওয়েতে যদি কোনো হ্যাকার বসে থাকে তাহলে আপনার ওয়েবসাইটে দেওয়া সকল তথ্য চলে যাবে হ্যাকারের হাতে।

আসলে HTTP কানেকশন অনেকটা এরকম, আপনি একটি খোলা চিঠি লিখে ডাকপিয়ন এর মাধ্যমে আপনার বন্ধুর কাছে পাঠালেন।

এখন মাঝ পথে ডাকপিয়ন যদি আপনার খোলা চিঠির লেখা গুলো পড়ে তারপর আপনার বন্ধুর কাছে চিঠিটা পৌঁছে দিলো। এক্ষেত্রে কিন্ত আপনার চিঠির লেখা গুলো ফাঁস হয়ে গেল।

এখানে আপনার বন্ধু হলো ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান আর ডাকপিয়ন হলো ওয়াইফাই বা এয়ারটেল ইন্টারনেট কোম্পানিতে বসে থাকা হ্যাকার।

HTTP এর পূর্ণরূপ কি?

Http এর পূর্ণরূপ হলো Hyper Test Transfer Protocol.

HTTP এর জনক কে?

Http এর জনক হলো Timothy jhon bernerse lee.

কিভাবে বুঝবেন কোন ওয়েবসাইট HTTP দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে?

মনে করুন আপনি amarblog.xyz ওয়েবসাইট ভিজিট করছেন তথ্য জানার জন্য। সেটা দেখতে নিচের ছবির মতো।

এবার উপরের চিত্রে লক্ষ করুন একটা তীর চিহ্ন দেওয়া একটি ইনফরমেশন আইকন দেখতে পাচ্ছেন। আপনি যদি অন্যান্য ওয়েবসাইট গুলো ভিজিট করতে গিয়ে এরকম ইনফরমেশন আইকন দেখতে পান তাহলে বুঝবেন উক্ত ওয়েবসাইট HTTP প্রটোকল যুক্ত।

এই ওয়েবসাইট গুলো সিকিউরিটি না। তাই এই ধরনের ওয়েবসাইট গুলোতে আপনার গোপন তথ্য প্রবেশ করাবেন না, হ্যাক হয়ে যেতে পারে।

এবার আপনি যদি উপরের ইনফরমেশন আইকনে ক্লিক করেন তাহলে ড্রপডাউন তালিকা আসবে। যার উপরে লক্ষ্য করলে দেখতে পাবেন বলা হয়েছে your connection to this site is not secure. 

এই ধরনের ওয়েবসাইট গুলোতে ব্যাক্তিগত তথ্য গুলো না দেওয়ার চেষ্টা করবেন। এতে করে আপনি নিরাপদ থাকবেন।

এই সকল ওয়েবসাইট গুলোতে আপনি যদি সার্চ বক্সে গিয়ে যে বিষয় গুলো সার্চ করবেন, সেগুলো ও হ্যাকারদের হাতে চলে যাবে।

আপনি হয়তো মনে করছেন, এগুলো আর এমন কি তথ্য? তাহলে শুনুন অনেক মার্কেটিং কোম্পানি আপনার বিষয় সম্পর্কে জানার জন্য বসে আছে। 

কারণ, তারা আপনার পছন্দের বিষয় গুলোর উপর বিজ্ঞাপন দেখানোর জন্য বসে আছে। সুতরাং আপনার তথ্য গুলো তাদের কাছে অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

Http এর কাজ কি?

আপনি হয়তো জানেন ওয়েবসাইট সকল ডাটা বা তথ্য গুলো সার্ভারে জমা থাকে। আর ক্লায়েন্ট যখন তথ্য গুলো জানার জন্য রিকুয়েষ্ট দেয় তখন তথ্য গুলো রেসপন্স করা হয়।

আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে ক্লায়েন্ট কি? ক্লায়েন্ট হলো আমাদের ব্যবহার করা প্রত্যেকটি ব্রাউজার।

এবার একজন ক্লায়েন্টকে কি পরিমান তথ্য দেখানো হবে এবং কি পরিমানে তথ্য রিসিভ করা হবে সেটা নির্ধারণ করে দেওয়া হলো http এর মূল কাজ।

আশাকরি, এইচটিটিপি (http) এর কাজ কি আপনারা সহজে বুঝতে পারছেন।

Http এর সুবিধা

কোনো ক্লায়েন্টের মাধ্যমে ডাটা গুলো অনেক দ্রুত সেন্ড এবং রিসিভ করার জন্য http সেরা। মানে http অনেক দ্রুত কাজ করে।

http ওয়েবসাইট গুলোতে কোনো সিকিউরিটি না থাকার কারণে, যেকেনো ফাইল ওয়েবসাইট থেকে ইচ্ছে মতো সহজে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

Http এর অসুবিধা

আপনারা হয়তো জানেন, প্রত্যেক জিনিসের সুবিধার পাশাপাশি বেশ কিছু অসুবিধা অবশ্যই থাকে। আর এই অসুবিধা গুলো আমাদের জন্য ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

যেমন,

Http এর মাধ্যমে যে সব ডাটা গুলো সেন্ড এবং রিসিভ করা হয় সেগুলো নিরাপদ না। কারণ, এই ওয়েবসাইট গুলোতে ডাটা গুলো সুরক্ষিত রাখার জন্য কেনো প্রটেকশন ব্যবহার করা হয় না।

আপনি যখন কোনো ব্রাউজারে ডাটা গুলো শেয়ার করবেন তখন আপনার নাম, ঠিকানা, ইমেইল, ক্রেডিট কার্ডের তথ্য হ্যাক হয়ে যেতে পারে।

http এর সুবিধা ও অসুবিধা গুলো দেখলে বুঝা যায় এর সুবিধার থেকে অসুবিধা অনেক বেশি। তাই আপনারা সব সময় https এর উপর গুরুত্ব দিবেন।

কিভাবে http প্রটোকলযুক্ত ওয়েবসাইট গুলো নিরাপদে ভিজিট করবেন?

আপনারা চাইলে http প্রটোকলযুক্ত ওয়েবসাইট গুলো নিরাপদে ভিজিট করার জন্য ভিপিএন (VPN) ব্যবহার করতে পারেন।

VPN মানে কি এবং কিভাবে ভিপিএন ব্যবহার করবেন এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এই আর্টিকেলটি পড়ুন।

শেষ কথা

আজকের আর্টিকেলে আমরা জানলাম Http কি? এইচটিটিপি এর কাজ কি সম্পর্কে। এছাড়া এর পূর্ণরুপ এবং সুবিধা ও অসুবিধা গুলোর ব্যাপারেও ইঙ্গিত পেয়েছেন।

HTTP সম্পর্কে যদি কোনো প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকে নিচের কমেন্টে অবশ্যই লিখে জানাবেন এবং ভালো লাগলে ফেসবুকের বন্ধুদের জন্য শেয়ার করবেন।

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap