ফেসবুক কি? ফেসবুকের ব্যবহার ও ইতিহাস

ফেসবুক কি (What is Facebook in bangla tutorial)? বর্তমানে এখনো এমন অনেক মানুষ রয়েছে যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন কিন্ত ফেসবুক কি সেই বিষয়ে জানেন না।

উইকিপিডিয়া ওয়েবসাইটের একটি আর্টিকেল থেকে জানা গেছে বর্তমানে বিশ্বের জনপ্রিয় ওয়েবসাইটের মধ্যে চতুর্থ নম্বারে রয়েছে Facebook. তাছাড়া বর্তমানে ইন্টারনেটে সব থেকে বেশি ভিজিট হওয়া ওয়েবসাইট এর দিক থেকে তৃতীয় নম্বারে জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ফেসবুক

প্রথম নম্বারে রয়েছে Google, দ্বিতীয় নম্বারে রয়েছে YouTube এবং তৃতীয় নম্বারে রয়েছে বিশ্বের সব থেকে জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুক। আমাদের মধ্যে এমন অনেক ফেসবুক ইউজার রয়েছে যারা অনেক আগে থেকে ফেসবুক ব্যবহার করছেন।

কিন্ত বর্তমান সময়ে এমন অনেক ইন্টারনেট ইউজার রয়েছে যাদের কাছে Facebook নতুন একটি বিষয়। এজন্য আজকে আমি এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনাদের জানাবো ফেসবুক কি, এবং ফেসবুকের ব্যবহার ও ইতিহাস সম্পর্কে।

এই আর্টিকেলের মাধ্যমে নতুন User রা Facebook এর সম্পর্কে বিস্তরিত ভাবে জানতে পারবেন। আসলে ফেসবুক হলো এমন একটি ওয়েবসাইট যার মাধ্যমে আপনারা ছবি, ভিডিও, ধারণা, অভিজ্ঞতা, জ্ঞান, নিজের ব্যক্তিগত জীবনের কিছু অংশ এই ওয়েবসাইটে সক্রিয় থাকা ইউজারদের সাথে শেয়ার করতে পারবেন।

তবে, হা এই সকল প্রক্রিয়া করার জন্য অবশ্যই আপনাকে একটি নতুন Facebook account তৈরি করতে হবে। আর এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনারা দেশ বিদেশের নানা ধরনের মানুষের সাথে বন্ধুত্ব করতে পারবেন।

আপনি বিশ্বের যেকোনো জায়গাই Facebook user দের কাছে Friend request পাঠাতে পারবেন। আর সেই ব্যাক্তি যদি আপনার পাঠানো friend request টি accept করে তাহালে তিনি আপনার Facebook Friend হয়ে যাবে।

ফেসবুক ফ্রেন্ডরা আপনার প্রোফাইল এর শেয়ার করা প্রতিটা কন্টেন্ট, ছবি, ভিডিও এবং স্টাটাস (status) গুলো দেখতে পারবে এবং লাইক কমেন্টের মাধ্যমে নিজের মতামত প্রাকাশ করতে পারবেন।

বর্তমানে ফেসবুকে আধুনিক সব ফিচারস গুলো যুক্ত করার কারণে দিনের পর দিন এই online platform ব্যবহারকারীদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাছাড়া ইন্টারনেট ব্যবহারকারী প্রায় সকলের কাছে Facebook একটি মজার platform.

ফেসবুক কি? (What is Facebook in bangla)

যখন প্রশ্ন করা হয় ফেসবুক অর্থ কি? বা Facebook মানে কি তখন উত্তর দেওয়া অনেক সহজ হয়ে যাবে। আসলে Facebook হলো বর্তমান বিশ্বের জনপ্রিয় একটি Social Media Website.

আপনারা যদি ফেসবুক ব্যবহার করতে চান তাহালে আপনাদের প্রয়োজন হবে একটি স্মার্টফোন বা কম্পিউটার ডিভাইস। আর যেহেতু এটা একটি অনলাইন ওয়েবসাইট সেহেতু এটা ব্যবহার করার জন্য জন্য অবশ্যই ইন্টারনেট (Internet) এর জন্য হবে।

এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে দেশ বিদেশের চেনা জানা বন্ধু, ফ্যামিলি মেম্বারদের সাথে অনলাইনে যুক্ত হতে পারবেন। আর এভাবে ফেসবুকের মাধ্যমে অনলাইন ওয়েবসাইটে যুক্ত হয়ে একে অপরের সাথে চ্যাটিং (chatting) এর মাধ্যমে কথা বলার সাথে সাথে জীবনের প্রতিটা মুহূর্ত শেয়ার করতে পারি।

মনে রাখবেন, এই ধরনের social networking website গুলোতে আপনারা সম্পর্ন ফ্রীতে profile বা account তৈরি করতে পারবেন। তারপরে আপনি নিজের profile এর মাধ্যমে তথ্য শেয়ার, চ্যাটিং, ছবি আপলোড, ভিডিও কল, কন্টেন্ট শেয়ার এবং নতুন বন্ধু বানানোর মতো সুবিধা গুলো পাবেন।

আসলে Facebook বা অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়ার ওয়েবসাইট গুলোর প্রধান উদ্দেশ্য হলো একজন ব্যাক্তিকে ইন্টারনেটের মাধ্যমে অনলাইনে সামাজিক ভাবে সংযুক্ত হওয়ার সুবিধা দেওয়া। আশাকরি সহজে বুঝতে পারছেন ফেসবুক কি (what is Facebook).

ফেসবুক (Facebook) এর সাথে জড়িত কিছু শব্দ

আপনি যদি ফেসবুকের নতুন ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন এবং ফেসবুকের বিষয় সম্পর্কে কিছু না জানেন তাহালে নিচে থেকে Facebook এর সাথে জড়িত জনপ্রিয় কিছু শব্দ জেনে নিনন।

১. Facebook Marketplace

আসলে ফেসবুক এমন একটি সেবা, যা সাধারণ মানুষের জন্য লাভের জন্য নিয়ে আশা হয়েছে। আপনারা Facebook market place এর মাধ্যমে যেকোনো পণ্য লিস্ট করে অন্যান্য ফেসবুক ইউজারদের কাছে বিক্রিয় করতে পারবেন।

যদি সহজ ভাবে বলি তাহালে, ফেসবুকের মাধ্যমে অনলাইনে মাধ্যমে সহজে ক্রয় বিক্রিয় করতে পারবেন। আর এই প্রক্রিয়া ব্যবহার করতে হয় ফেসবুক মার্কেটপ্লেস এর মাধ্যমে।

২. Facebook Page

আপনারা যদি ফেসবুকের মাধ্যমে ব্যবসা করতে চান তাহালে public page তৈরি করার আলদা অপশন রয়েছে। ফেসবুকে বেশি ভাগ ব্যবসা পরিচারনা করার জন্য Page তৈরি করা হয়। আর এই পেজকে Business Page বলা হয়।

৩. Facebook Live

ফেসবুক লাইভ হলো ফেসবুকের একটি সেবা বা সার্ভিস। এখান থেকে যেকোনো ব্যবহারকারী নিজের স্মার্টফোন বা কম্পিউটার / ল্যাপটপ ক্যামেরার মাধ্যমে live video streaming করতে পারবেন।

৪. Facebook Group

আপনার যদি একটি Facebook account থাকে তাহালে ফেসবুকে গ্রুপ তৈরি করতে পারবেন। গ্রুপ এর ক্ষেএে একটি টপিক, বিষয় নিয়ে আলদা একটি পেজ বানানো যাবে। সেখানে বিভিন্ন মানুষরা তাদের মতামত, পরামর্শ গ্রুপে শেয়ার করতে পারবেন।

তাছাড়া ব্যবসা করার উদ্দেশ্যে ব্যবসায়ীরা একটি Facebook Group তৈরি করে ব্যবসার সাথে জড়িত বিভিন্ন ধরনের পণ্যের প্রচার করতে পারবেন।

৫. Friend Request

ফেসবুকে অন্যান্য ইউজারদের নিজের ফেসবুকে বন্ধু বানানোর জন্য তাকে friend request পাঠাতে পারবেন। তিনি যদি friend request accept করেন তাহালে তিনি আপনার ফেসবুক বন্ধু হয়ে যাবে। এভাবে আপনারা সবার কাছে friend request পাঠাতে পারবেন।

৬. Facebook Like

ফেসবুকে শেয়ার করা যেকোনো পোষ্ট, কন্টেন্ট, ইমেজ, ভিডিও, স্টাট্যাস গুলো যদি আপনার পছন্দ হয় বা সমর্থন করার একটি মাধ্যম হলো like. তবে, বর্তমানে যেকোনো পোষ্টে like ছাড়া নিজের মতামত প্রকাশ করার জন্য অনেক emoji ব্যবহার করতে পারবেন।

৭. Facebook Comment

আপনি যদি ফেসবুকে post করা কোনো বিয়ষে আপনার মতামত বা পরামর্শ জানাতে চান তাহালে কমেন্ট করে জানাতে পারবেন। আবার আপনার কমেন্ট যদি কারও কাছে ভালো লাগে তাহালে তিনি সেটা লাইক বা রিপ্লে কমেন্টে করতে পারবেন।

৮. Facebook Share

অন্যের যেকোনো post করা ইমেজ, কন্টেন্ট, ভিডিও যদি আপনার কাছে ভালো লাগে তাহালে সেটা শোয়ার (share) করতে পারবেন।

৮. Block Friend

আপনি চাইলে ফেসবুক একাউন্ট থেকে যেকোনো friends বা user দের block করে রাখতে পারেন। ব্লক করার পরে সেই ইউজার আর কোনো ভাবে আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন না। তাছাড়া আপনার প্রোফাইলের সাথ জড়িত কোনো রকমের তথ্য দেখতে পাবেন না।

ফেসবুকের ব্যবহার – Uses of Facebook

আমি আগেই বলেছি ফেসবুক একটি ফ্রি সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফার্ম যেখানে যেকেউ সম্পর্ন ফ্রীতে একটি account তৈরি করতে পারবেন। এজন্য স্কুল, কলেজে পড়া স্টুডেন্ট, শিক্ষক থেকে শুরু করে বয়স্ক মানুষরা সবাই ফেসবুক ব্যবহার করেন।

বিভিন্ন ক্ষেএে ফেসবুকের ব্যবহার করা হয়। সেগুলো আমি নিচে বলে দিচ্ছি –

  • বন্ধু বান্ধব থেকে শুরু করে আপনজনের সাথে নিজের জীবনের কিছু অংশ ইমেজ, ভিডিও, স্টাট্যাস গুলো এর মাধ্যমে শেয়ার করতে পারবেন।
  • বিশ্বের যেকোনো জায়গা থাকা মানুষের সাথে video call এবং voice call এর মাধ্যমে কথা বলতে পারবেন।
  • নিজের তথ্য গুলো ফেসবুকের মাধ্যমে শেয়ার করতে পারবেন এবং অন্যদের শেয়ার করা তথ্য গুলো গ্রহণ করতে পারবেন।
  • Facebook page এবং Facebook group এর মাধ্যমে নিজের ব্যবসার প্রচার এবং মার্কেটিং করতে পারবেন।
  • Facebook marketplace এর মাধ্যমে যেকোনো নতুন বা পুরাতন পণ্য কিনতে বা বিক্রিয় করতে পারবেন। 
  • বর্তমানে সারা বিশ্বে কখন কি হচ্ছে সেটা আপডেট জানতে পারবেন।
  • নিজেকে সব সময় অনলাইনে active রাখতে পারবেন।
  • বিশ্বের যেকোনো জায়গা থেকে নতুন নতুন বন্ধু বানিয়ে নিতে পারবেন।
  • বিভিন্ন মজাদার কন্টেন্ট, ইমেজ, ভিডিও এবং পোষ্ট দেখে সময় কাটাতে পারবেন।
  • ফেসবুকে বিভিন্ন ধরনের অনলাইন গেম খেলতে পারবেন।
  • Facebook paid advertisement এর মাধ্যমে যেকোনো প্রডাক্ট বা সার্ভিস এর অনলাইন মার্কেটিং করতে পারবেন।
  • নিজের ফেসবুক পেজের ভিডিওতে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

তাহালে আশাকরি সহজে বুঝতে পারছেন কি কি কাজে ফেসবুক ব্যবহার করা হয়। 

ফেসবুকের ইতিহাস – History of Facebook

আমাদের মধ্যে অনেকে আছে যারা ফেসবুকের ইতিহাস জানেন না। তবে মনে রাখবেন ফেসবুকের ইতিহাস কিন্ত অনেক মজার। ফেসবুক প্রথম social media network হিসাবে 4 February 2004 সালে চালু করা হয়েছিলো।

প্রথমে ফেসবুকের নাম দেওয়া হয়েছিলো The Facebook. পরে The নাম থেকে বাদ দিয়ে শুধু Facebook নাম রাখা হয়। মূলত ফেসবুকের প্রতিষ্ঠা হলো Mark Zuckerberg এবং তার কিছু বন্ধু Andrew McCollum, Eduardo severin, Dustin MoskovitzChris Hughes এদের দ্বারা প্রথম ফেসবুক প্রতিষ্ঠিত হয়।

ফেসবুক কে বানিয়েছেন?

Mark Zuckerberg নামের Harvard university এর স্টুডেন্ট  (student) এবং তার কিছু ক্লাসমেটদের সাথে নিয়ে বানিয়েছেন Facebook.

নিউ ফেসবুক একাউন্ট কিভাবে খুলবো?

আপনি যদি একটি নিউ ফেসবুক একাউন্ট খুলতে চান তাহালে প্রথমে আপনাকে যেতে হবে Facebook.com এই ওয়েবসাইটে।

ফেসবুক ডটকম ওয়েবসাইটে যাবার পরে আপনি Create a new account লেখা দেখতে পাবেন।

Create a new account লেখার নিচে থাকা বক্স এ সকল তথ্য গুলো দিতে হবে। তথ্য গুলোর মধ্যে আপনাকে দিতে হবে Name, Email / Phone number, New password.

তারপরে নিচে থাকা sign up বাটুনে ক্লিক করতে হবে এবং আপনাকে একটি verification box দেখতে পাবেন।

মানে আপনি নতুন ফেসবুক একাউন্ট খোলার সময় যে মোবাইল নম্বার বা ইমেইল নম্বার দিয়েছিলেন সেটা দিয়ে ভেরিফিকোশন করতে হবে।

ভেরিফিকোশন এর ক্ষেএে মোবাইল নম্বার বা ইমেইল আইডিতে ফেসবুকের তরফ থেকে কোড পাঠানো হবে, সেই কোডটি Facebook verification box এ দিয়ে continue বাটুনে ক্লিক করতে হবে।

স্বাগতম আপনার একটি নতুন ফেসবুক একাউন্ট তৈরি করার কাজ সম্পর্ন হয়েছে। এবার আপনি profile & cover picture আপলোড করে ফেসবুক ব্যবহার করতে পারবেন। আর এটাই ছিলো নিউ ফেসবুক একাউন্ট খোলার সহজ নিয়ম।

আজকে আমরা কি শিখলাম

তাহালে বন্ধুরা আজকে আমরা শিখলাম ফেসবুক কি (what is Facebook), ফেসবুকের ব্যবহার ও ইতিহাস সম্পর্কে। তাছাড়া ফেসবুক ব্যবহারের সুবিধা গুলোও বলেছি। ফেসবুকের সাথে জড়িত কোনো প্রশ্ন বা পরামর্শ যদি থাকে তাহালে কমেন্টে জানাতে পারেন। আর শেষে আমার লোখাটি ভালো লাগলে অবশ্যই

শেয়ার করবেন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap