WordPress vs Blogger ওয়েবসাইট তৈরির জন্য কোনটা ভালো?

2
425
WordPress vs Blogger ওয়েবসাইট তৈরির জন্য কোনটা ভালো?
WordPress vs Blogger ওয়েবসাইট তৈরির জন্য কোনটা ভালো?

আপনি যখন একটি ফ্রি ব্লগ তৈরির কথা ভাববেন তখন আপনার কাছে বেশ কিছু আলাদা আলাদা blogging platform থাকবে। যেমন WordPress, Blogger, Wix, Tumblr সহ আরো অনেক। কিন্ত বর্তমানে ব্লগিং (blogging) ওয়েবসাইট তৈরি করার মধ্যে ৩৪% ওয়েবসাইট গুলো ওয়ার্ডপ্রেস (WordPress) দিয়ে তৈরি করা হয়। আর শতকরা ১% ওয়েবসাইট তৈরি করা হয় ব্লগার Blogger বা blogspot দিয়ে। (Blogger vs WordPress)

তবে, মনে রাখবেন Blogger vs WordPress ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য দুইটাই অনেক জনপ্রিয় এবং সেরা ব্লগিং প্লাটফর্ম। আর এই দুইটা platform দিয়ে আপনি অনেক সুন্দর করে আধুনিক ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন। তবে, ওয়ার্ডপ্রেস এবং ব্লগার এই দুইটার মধ্যে বেশ ভালো রকমের পার্থক্য রয়েছে।

আমাদের মধ্যে অনেক ইউজার রয়েছে যাদের কাছে ব্লগার প্লাটফর্ম ব্যবহার করেন এবং এটা তাদের কাজে বেশ ভালো মনে হয়। কারণ এখানে প্রযুক্তিগত কোনো সমস্যার মুখে পড়তে হয় না। অপর দিকে অনেক সংখ্যক ইউজার রয়েছে যাদের কাছে WordPress platform ব্যবহার করে অনেক ভালো মনে হয়। কারণ এটার বাড়তি ক্ষমতা এবং ফিচারস (features) থাকার জন্য।

তবে, আপনি যখন প্রশ্ন করবেন ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য কোন প্লাটফর্ম ভালো WordPress নাকি Blogger? তখন এই প্রশ্নের উত্তর পেতে হলে আপনাকে জানতে হবে দুইটা প্লাটফর্ম এর Blogger vs WordPress মধ্যে পার্থক্য গুলো সম্পর্কে। তাহালে আপনি যেকোনো একটি platform বেঁচে নিয়ে ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন।

তাহালে চলুন নিচে থেকে জেনে আসি ব্লগ বা ওয়েবসাইট বানানোর জন্য কোন প্লাটফর্মটি ভালো ব্লগার নাকি ওয়ার্ডপ্রেস

WordPress vs Blogger কোন ব্লগিং প্লাটফর্ম সেরা

আমি নিচে এই দুইটা প্লাটফর্ম এর সুবিধা অসুবিধা এবং পার্থক্য নিয়ে আলোচনা করবো তাতে আপনি বুঝে নিবেন ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য কোন প্লাটফর্ম আপনার জন্য ভালো ও সেরা। তার আগে জেনে নিবো একটি একটি ভালো ও সেরা প্লাটফর্ম এ কি কি থাকা প্রয়োজন।

ভালো এবং সেরা ব্লগিং প্লাটফর্মে কি কি বিশিষ্ট থাকতে হবে?

(১) সহজ ব্যবহারঃ আপনি যখন একটি ব্লগিং প্লাটফর্ম তৈরি করার কথা চিন্তা করবেন তখন প্রথমে চিন্তা করতে হবে সেই প্লাটফর্মটি যেন সহজ এবং সরল হয়। যাতে যেকোউ সহজে ব্লগে আর্টিকেল পাবলিশ করে দ্রুত ট্রাফিক নিয়ে আসতে পারে।

অবশ্যই পড়ুন – ডোমেইন কেনার আগে যে বিষয় গুলো দেখে নিবেন? – ২০২১

(২) আধুনিক ও নমনীয়তাঃ ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য আপনি যেই প্লাটফর্ম বেঁচে নেন না কেন সেটা যেন আধুনিক হয়। কারণ ওয়েবসাইটের জন্য আধুনিক প্লাটফর্ম খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

(৩) সৌন্দর্য এবং স্টাইলঃ বর্তমানে মানুষারা যে জিনিসটা দেখতে পছন্দ করে সেটাই অধিক ভালো জানে। তাহালে আমাদের ও সেই বিষয় মাথায় রাখতে হবে। তাই আপনার ব্লগিং প্লাটফর্মটি এমন বেঁচে নিবেন যাতে ওয়েবসাইটটি আকর্ষণীয় এবং স্টাইলিশ করে তুলতে পারেন।

(৪) নিরাপত্তা (security) : বর্তমান সময়ে বিভিন্ন হ্যাকার সব সময় ওয়েবসাইট গুলো হ্যাক (hack) করার চেষ্টা করছে। সেজন্য আপনি যে প্লাটফর্ম দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করার কথা চিন্তা করছেন সেটা যেন অনলাইন নিরাপত্তা (online security) দিতে পারেন।

চলুন এবার আমরা একটু জেনে আসি WordPress এবং Blogger কি?

WordPress কি?

ওয়ার্ডপ্রেস হলো এমন একটি সহজ, সরল শক্তিশালী অনলাইন টুল ( tool) যেটা ব্যবহার করে আপনারা খুব সহজে ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন। বর্তমানে ইন্টারনেটে যতগুলো ওয়েবসাইট বানানো হয় তার ৩৪% website তৈরি করা হয় ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে। wordpress এমন এক open source SMS software যেটা দিয়ে যেকেউ ব্লগ বা ওয়েবসাইট বানাতে পারবে। এটা বানানোর জন্য আপনাকে আলদা করে Codding Knowledge জানার প্রয়োজন হবে না।

Blogger কি?

ব্লগার হলো খুব সাধারন অনলাইন blog publishing tool যেটা ব্যবহার করে যেকেউ খুব সহজে একটি ফ্রি ব্লগ বানাতে পারবে। blogger হলো google এর একটি ফ্রি সার্ভিস। যা ২০০৩ সালে Pyra labs কোম্পানি থেকে অর্জন করে নিয়েছে। ব্লগ দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করতে হলে আপনাকে একটি জিমেইল একাউন্ট (Gmail account) প্রয়োজন হবে।

অবশ্যই পড়ুন – ব্লগিং (Blogging) শিখতে হলে কি কি বিষয়ে জানতে হবে

আর ব্লগার ওয়েবসাইট বানানোর জন্য কোনো প্রকার টাকার প্রয়োজন হবে না। এখানে আপনি blogger থেকে sub-domain এবং ফ্রি হোস্টিং (hosting) পাবেন। তবে, আপনি যদি প্রফেশনাল ভাবে ব্লগিং করার চিন্তা করেন তাহালে ডোমেন কিনে ওয়েবসাইট তৈরি করবেন। তাহালে আমরা ব্লগার এবং ওয়ার্ডপ্রেস এর বিয়ষে জানলাম।

Blogger vs WordPress এর মধ্যে পার্থক্য কি কি এবং কোনটা ভালো?

(১) Setting Up a New Blog

ব্লগার তৈরি করার সময় আপনার মাএ কয়েক মিনিট প্রয়োজন হবে এবং যার জন্য কোনো প্রকার ধারণা থাকা লাগবে না। আপনি Blogger website এ গিয়ে Create Your Blog অপশনে ক্লিক করে Gmail Account বা Google Account ব্যবহার করে Title, Description এবং Theme ব্যবহার করে সহজে ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন।

তবে,

ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য আপনাকে অবশ্যই কিছু ধারণার প্রয়োজন হবে। ওয়ার্ডপ্রেস হলো একটি CMS Software যা ব্যবহার করার জন্য আপনাকে web hosting প্রয়োজন হবে। এখানে ওয়েব হোস্টিং এ ওয়ার্ডপ্রেস ইনস্টল করে ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে। এটা যদি আপনি না জানেন তাহালে করতে পারবেন না। তবে, ইউটিউব (YouTube) ভিডিও দেখে আপনি জেনে দিতে পারবেন।

তাহালে, কোনো রকম ঝামেলা ছাড়ায় ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য ব্লগার বিজয়ী হলো।

(২) মালিকানা (Owner)

আপনি যদি ব্লগার দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করেন তাহালে সম্পর্ন মালিকানা আপনার হাতে থাকবে না। কারণ ডোমেনটা আপনার হাতে থাকলেও হোস্টিং আপনার হাতে থাকবে না। কেননা আপনি ব্লগারের ফ্রি হোস্টিং ব্যবহার করেছেন। যেকোনো সময় যদি ব্লগার তাদের হোস্টিং বন্ধ করে দেয় তাহালে আপনার বানানো ওয়েবসাইট বন্ধ হয়ে যাবে। যেমন- Google plus বন্ধ করে দিয়েছে।

তবে,

আর আপনি যদি ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করেন তাহালে সম্পর্ন নিয়ন্ত্রণ আপনার হাতে থাকবে। কারণ ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করতে হলে আপনাকে ডোমেন হোস্টিং সব ক্রয় করে নিতে হচ্ছে। আপনি যতদিন ওয়েবসাইট বন্ধ না করবেন ততো দিন বন্ধ হবে না।

তাহালে, মালিকানার দিক থেকে বিজয়ী হলো ওয়ার্ডপ্রেস।

(৩) ডিজাইন ও ফাংশন

ব্লগার দিয়ে সহজে ওয়েবসাই তৈরি করার জন্য এটার ফাংশন ক্ষমতা ওয়ার্ডপ্রেসের তুলনায় অনেক সীমিত। নতুন ব্লগার হিসাবে আপনার অনেক ভালো লাগবে কিন্ত ধীরে ধীরে আপনি যখন ওয়ার্ডপ্রেসের বিষয়ে জানবেন এবং দেখবেন তখন আপনার আর ভালো লাগবে না। তাছাড়া ব্লগিংয়ের থিম তেমন আকর্ষণীয় বা আধুনিক না।

তবে,

ওয়ার্ডপ্রেস প্লাটফর্ম ব্যবহার করে আপনি অনেক সুন্দর আকর্ষণীয় স্টাইল ডিজাইন করতে পারবেন। তাছাড়া আমার ব্যাক্তিগত ভাবেও অনেক পছন্দ। এখানে আপনি ফ্রি এবং প্রিমিয়াম  আকর্ষণীয় থিম রয়েছে যেটা আমি সম্পর্ন নিজের পছন্দ মতো ডিজাইন করে নিতে পারবেন। আমি নিজেও প্রথমে ব্লগার ইউজার ছিলাম তবে, এডসেন্স পাবার পরে ওয়ার্ডপ্রেসে রুপান্তিত করে নিয়েছি।

তাহালে, ডিজাইন ও ফাংশনের দিক থেকে ওয়ার্ডপ্রেস সেরা।

(৪) নিরাপত্তা (Security)

আপন যখন ব্লগিং করার সময় ভালো একটি প্লাটফর্ম বেঁচে নিবেন তখন নিরাপত্তার বিষয়ে আপনার বিশেষভাবে নজর দিতে হবে। কারণ আপনার ব্লগ ওয়েবসাইটটি হ্যাক (Hacked) হয়ে যেতে পারে। blogger এর ক্ষেএে আপনি সম্পর্ন security পাবেন। কারণ গুগল নিজে এর নিরাপত্তা দিয়ে থাকে। সেহেতু ব্লগার হ্যাক হওয়া থেকে ১০০% নিরাপদ।

তবে,

ওয়ার্ডপ্রেস ও অনেকটা নিরাপদ কিন্ত ওয়ার্ডপ্রেসের backup, security, login protection গুলো নিয়ে অবশ্যই আপনার মাথা ঘামাতে হবে। তবে, এর জন্য free WordPress plugin ব্যবহার করলে আপনি চিন্তা মুক্ত থাকতে পারবেন। আপনি সাইটের নিরাপত্তার জন্য wordfence plugin ব্যবহার করতে পারেন।

তাহালে, নিরাপত্তার দিক থেকে ব্লগার বিজয়ী (winer)।

(৫) ওয়েবসাইট তৈরির খরচ

আপনি যদি ব্লগার দিয়ে ওয়েবসাইট বানাতে চান তাহালে সম্পর্ন ফ্রিতে বানাতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে আলদা ভাবে ডোমেন হোস্টিং ক্রয় করতে হবে না। যারা ফ্রি ব্লগ তৈরি করার কথা ভাবছেন তাদের জন্য ব্লগার অনেক কাজের।

তবে,

আপনি যদি ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান তাহালে আপনাকে বেশ কিছু টাকা খরচ করতে হবে। যেহেতু আমরা আগে জেনেছি WordPress CMS software তার জন্য এটা ইনস্টল করার জন্য ওয়েব হোস্টিং একাউন্টের প্রয়োজন হবে। এজন্য আপনাকে হোস্টিং কেনার জন্য ১৫০০ থেকে ২৫০০ টাকা খরচ করতে হবে।

তাহালে, ওয়েবসাইট তৈরির খরচের দিক থেকে Blogger এগিয়ে (বিজয়ী)।

(৬) SEO (search engine optimization)

আপনি হয়তো জানেন এসইও (SEO) এই ওয়েবসাইটের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে। কিন্ত blogger এ SEO (search engine optimization) একেবারে নেই বললেও চলে। ব্লগারে আলদা ভাবে SEO optimization functions দেয় না। যা একজন ব্লগারের জন্য অনেক বড় দুর্বলতা।

তবে,

WordPress এর SEO অনেক লাভজনক। এখানে প্রত্যেক ধরনের SEO functions গুলো সহজে ব্যবহার করতে পারবেন। আপনি বিভিন্ন ধরনের SEO plugin ব্যবহার করে SEO friendly website তৈরি করতে পারবেন। তাছাড়া On page SEO করার জন্য Yoast SEO Plugin ব্যবহার করে আর্টিকেল গুলো অনপেজ এসইও (on page seo) করতে পারবেন। সেক্ষেএে WordPress এ on page seo নিয়ে আপনাকে চিন্তা ভাবনা করতে হবে না।

তাহালে, SEO (search engine optimization) এর দিক থেকে ওয়ার্ডপ্রেস বিজয়ী হলো।

(৭) ভবিষ্যৎ

Blogger ও WordPress দুইটার ভবিষ্যৎ ভালো কিন্ত কিছু বছর আগে থেকে Blogger user অনেক অংশে কমে গেছে। সেই তুলনায় WordPress user অনেক অংশে বেড়ে গেছে। তার প্রধান কারণ হলো ব্লগিংকে বর্তমানে মানুষ ক্যারিয়ার হিসাবে নিতে চাই। তাছাড়া ব্লগার এর তুলনায় ওয়ার্ডপ্রেসের ভবিষ্যৎ অনেক ভালো।

অবশ্যই পড়ুন – আর্টিকেল লেখার কৌশল – ২০২১ (কনটেন্ট রাইটিং টিপস)

আমাদের মনে রাখতে হবে, ব্লগার কিন্ত গুগলের একটি ফ্রি সার্ভিস। সেকারণে তারা যেকোনো সময় বন্ধ করে দিতে পারে। যেমন Google Plus বন্ধ করে দিয়েছে গুগল। অন্যদিকে WordPress হলো CMS software যেটা open source. তাই যেকেই ইচ্ছা করলে ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন। এই সকল সুবিধার জন্য দিনে দিনে WordPress এর ভবিষ্যৎ ভালো হয়ে যাচ্ছে।

তাহালে, ভবিষ্যৎ এর দিক থেকে ওয়ার্ডপ্রেস বিজয়ী।

উপসংহার (Conclusion)

আসলে WordPress এবং Blogger দুইটাই অধিক পরিমানে ব্যবহিত blog platforms. সেহেতু দুইটার আলদা আলদা বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এখন আপনাকে ঠিক করে নিতে হবে কোন প্লাটফর্ম ভালো এবং সেরা। আপনি যদি simple blog তৈরি করতে চান তাহালে Blogger বেঁচে নিতে পারেন আর যদি প্রফেশনাল ভাবে ব্লগ তৈরি করতে চান তাহালে ওয়ার্ডপ্রেস আপনার জন্য সেরা হবে।

আজকে আমরা কি শিখলাম

তাহালে, বন্ধুরা শেষে আশাকরি Blogger vs WordPress এর পার্থক্য আপনাদের বুঝাতে পারলাম। এখন কোনটা ভালো সেরা আপনি বুঝে উত্তর দিতে পারবেন। আর সব শেষে আমার লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

2 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে